কঠোর অবস্থানে পুলিশ, পাটুরিয়া ফেরিঘাটে যাত্রীবাহী যান চলাচল পুরোপুরি বন্ধ

দেশব্যাপী চলমান অঘোষিত লকডাউনের মধ্যে পাটুরিয়া ফেরিঘাট পর্যন্ত যাত্রীবাহী যান সীমিত আকারে চলছিল। ঈদকে সামনে রেখে দোকানপাট খোলার ঘোষণা আসার পর এই রুটে বেড়ে যায় জনসাধারণের চলাচল।
মানিকগঞ্জের গোলড়া বাসস্ট্যান্ডে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কে পুলিশের ব্যারিকেড। ছবি: স্টার

দেশব্যাপী চলমান অঘোষিত লকডাউনের মধ্যে পাটুরিয়া ফেরিঘাট পর্যন্ত যাত্রীবাহী যান সীমিত আকারে চলছিল। ঈদকে সামনে রেখে দোকানপাট খোলার ঘোষণা আসার পর এই রুটে বেড়ে যায় জনসাধারণের চলাচল।

এমন পরিস্থিতিতে সামাজিক বা শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখার স্বাস্থ্যবিধি বিঘ্নিত হচ্ছিল। তাই করোনার সংক্রামণ এড়াতে প্রাইভেট কার ও মোটরসাইকেলসহ সব ধরনের যাত্রীবাহী যান চলাচল বন্ধ করতে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কে ব্যারিকেড দিয়েছে মানিকগঞ্জ পুলিশ।

জেলার গোলড়া বাসস্ট্যান্ড থেকে আটকে দেওয়া হচ্ছে পাটুরিয়াগামী যাত্রীবাহী সব ধরণের যান। তবে, ওষুধসহ জরুরি পণ্যবাহী গাড়ির চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে।

আজ রোববার সকাল সাড়ে ১০টায় ঢাকা-আরিচা মহাসড়কে ব্যারিকেড দেওয়ায় চেকপোস্ট এলাকা পায়ে হেঁটে ফের মোটরসাইকেল বা অটোরিকশা করে গন্তব্যে যাচ্ছেন অনেকেই। এতে করে একদিকে যেমন মানা হচ্ছে না স্বাস্থ্যবিধি, অন্যদিকে, যাত্রীদেরকে গুণতে হচ্ছে সাধারণ সময়ের চেয়ে ৮/১০ গুণ বেশি ভাড়া।

মানিকগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার হাফিজুর রহমান বলেন, ‘সকাল থেকেই ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে মানুষ এই রুটে আসছে। তাদের গাড়িগুলো আটকে দিয়ে ফেরত পাঠানো হচ্ছে। তবে, জরুরি পণ্যবোঝাই ট্রাক, অ্যাম্বুল্যান্স, লাশবাহী গাড়িগুলোকে যেতে দেওয়া হচ্ছে।’

এছাড়াও, দেশের দক্ষিণ ও দক্ষিণ পশ্চিমাঞ্চলের জেলাগুলো থেকে পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌপথ পাড়ি দেওয়া কোনো যাত্রীবাহী গাড়ি ঢাকায় আসতে দেওয়া হবে না বলেও জানান তিনি।

মানিকগঞ্জের পুলিশ সুপার রিফাত রহমান শামীম বলেন, ‘ঢাকা থেকে ঢাকা-আরিচা মহাসড়ক দিয়ে কোন যাত্রীবাহী গাড়ি আসতে দেওয়া হবে না। উপজেলাগুলোতেও এই নিষেধাজ্ঞা থাকবে।’

Comments