পুলিশকে সুরক্ষা সামগ্রী দিয়েছে ত্রিমাত্রিক-৩০ বিসিএস কো-অপারেটিভ সোসাইটি

করোনা মহামারি মোকাবিলায় পুলিশকে কাজকে আরও গতিময় করাবার জন্য এবং কাজের প্রতি তাদের উৎসাহ বাড়ানোর প্রচেষ্টার অংশ হিসেবে সুরক্ষা সামগ্রী প্রদান করেছেনে ত্রিমাত্রিক-৩০ বিসিএস অফিসার কো-অপারেটিভ সোসাইটি লিমিটেড।

করোনা মহামারি মোকাবিলায় পুলিশকে কাজকে আরও গতিময় করাবার জন্য এবং কাজের প্রতি তাদের উৎসাহ বাড়ানোর প্রচেষ্টার অংশ হিসেবে সুরক্ষা সামগ্রী প্রদান করেছেনে ত্রিমাত্রিক-৩০ বিসিএস অফিসার কো-অপারেটিভ সোসাইটি লিমিটেড।

৩০তম বিসিএস এর বিভিন্ন ক্যাডারের ২২ জন কর্মকর্তার সমন্বয়ে গঠিত সংগঠনটি গতকাল রাজারবাগে অবস্থিত কেন্দ্রিয় পুলিশ হাসপাতালে এই সুরক্ষা সামগ্রী প্রদান করে যার মধ্যে ছিল কেএন ৯৫ মাস্ক, ফেস শিল্ড, সার্জিক্যাল গ্লোভস এবং হ্যান্ড রাব।

হাসপাতালের পক্ষে সুরক্ষা সামগ্রী গ্রহণ করেন ডা. এমদাদুল হক, পুলিশ সুপার (প্রশাসন ও অর্থ) এবং মো. সাইফুল ইসলাম সানতু, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন)।

ত্রিমাত্রিক-৩০ বিসিএস এর সম্পাদক ও বিসিএস স্বাস্থ্য ক্যাডারের ডাক্তার লতিফুল বারী করোনা মহামারী মোকাবেলায় পুলিশ সদস্যদের অনন্য ভূমিকার বিষয়ে তুলে ধরেন এবং দেশের এই প্রেক্ষাপটে ত্রিমাত্রিক-৩০ সংগঠনের সাত জন ডাক্তারের পক্ষ থেকে পুলিশ হাসপাতাল ও যে কোন সদস্যদের স্বাস্থ্য বিষয়ক যেকোনো পরামর্শ, সহযোগিতা, উৎসাহ ও মনোবল বৃদ্ধির ব্যাপারে সর্বদা পাশে থাকবেন বলে অঙ্গীকার করেন।

সুরক্ষা সামগ্রীর জন্য ত্রিমাত্রিক-৩০ এর প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে, কেন্দ্রীয় পুলিশ হাসপাতালের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সাইফুল ইসলাম বলেন, বিভিন্ন হাসপাতালে সুরক্ষা সামগ্রী বিতরণ কার্যক্রম একটি সময়োপযোগী ও প্রশংসনীয় উদ্যোগ।

সংগঠনটির প্রতিষ্ঠাতা এবং পুলিশের অতিরিক্ত উপপুলিশ কমিশনার মো. জাহাঙ্গীর আলম বলেন যে, দেশের করোনা মহামারি মোকাবিলায় সম্মুখযোদ্ধা ডাক্তার, পুলিশ সদস্য ও স্বাস্থ্যকর্মীরা ঝুঁকি নিয়ে দেশের মানুষের জন্য কাজ করছেন।

সংগঠনটি এ ধরনের কল্যাণমূলক কার্যক্রমের মাধ্যমে সম্মুখযোদ্ধাদের পাশে থেকে ভবিষ্যতে কাজ করে যাবে বলে জাহাঙ্গীর আলম অঙ্গিকার ব্যক্ত করেন। সংগঠনটি পরবর্তীতে কুড়িগ্রামে সুরক্ষা সামগ্রী প্রদান করবেন বলে জানিয়েছে।

Comments

The Daily Star  | English

44 lives lost to Bailey Road blaze

33 died at DMCH, 10 at the burn institute, and one at Central Police Hospital

9h ago