একই সঙ্গে ডেঙ্গু ও করোনায় আক্রান্ত স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালের জনসংযোগ কর্মকর্তা

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা মো. শরিফ মাহমুদ অপুর প্রথমে ডেঙ্গু ও পরে করোনা শনাক্ত হয়।
Sharif Mahmud Apu
স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা মো. শরিফ মাহমুদ অপু। ছবি: সংগৃহীত

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা মো. শরিফ মাহমুদ অপুর প্রথমে ডেঙ্গু ও পরে করোনা শনাক্ত হয়।

গতকাল বৃহস্পতিবার ফেসবুক পোস্টে এই কর্মকর্তা তার অসুস্থতার কথা জানান।

পোস্টে তিনি লিখেন, ‘ভূপেনের “সাগর সঙ্গমে সাঁতার কেঁটেছি কত কখনতো হই নাই ক্লান্ত’ এই গানটি থেকে আমি শক্তি সঞ্চয় করে জীবন সংগ্রামে নব উদ্যমে এগিয়ে চলি। সৃষ্টিকর্তা আমাকে সংগ্রামে কখনো হারতে দেননি। এর পেছনে অবশ্য মানুষের আশীর্বাদ/দোয়া’ই প্রধান ভূমিকা রেখেছে। এবার একসঙ্গে ডেঙ্গু ও করোনা’র সঙ্গে লড়তে হবে। আল্লাহই জানেন এবার ফলাফল কী হবে। কিন্তু আমিতো ক্লান্ত হবার লোক নই। আমার সন্তান দুইটির জন্য/ মানুষের জন্য আমাকে বাঁচতে হবে।’

তিনি আরও লিখেন, ‘গত ৪ দিন আগে আমি মাননীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী মহোদয়ের বাসায় থেকে প্রথম আলোর সিনিয়র রিপোর্টার (Rozina Islam) আপার সাথে মাননীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী’ের সঙ্গে সম্পাদকীয় পরিষদের একটি সভা আয়োজনের বিষয়ে ফোনে কথা বলছিলাম। আপা আমার কণ্ঠ শুনে জানতে চাইলেন আমার শরীর খারাপ কী না। আমি বললাম একটু গা টা গরম লাগছে। উনি সাথে সাথেই বললেন অপু ভাই আপনি এক মিনিটও দেরি না করে এখনই বাসায় চলে যান। একটু পর উনি আবারও জানতে চাইলেন বাসাতে কী না। এরপর বললেন একদম আইসোলেশনে চলে যান। আর যত দ্রুত সম্ভব করোনা পরীক্ষা করান।’

‘আমি বাসায় ঢুকেই আলাদা রুমে চলে গেলাম। করোনা পরীক্ষা করার জন্য যোগাযোগ করলাম। নমুনা দিলাম। আজ রিপোর্ট এসেছে করোনা পজিটিভ। এর পূর্বে ডেঙ্গুও পজিটিভ এসেছিল।’

‘করোনাকালে মাননীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মহোদয় প্রায় প্রতিদিন অফিস করছেন। স্যারের সঙ্গে অফিস করার পাশাপাশি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের করোনা সেলেও দায়িত্ব পালন করেছি। তাছাড়া নিজের গ্রামের বাড়ি কুমিল্লার বুড়িচংয়ে ত্রাণ ও ঈদ উপহার প্রদান করলাম। এসব ব্যস্ততার মধ্যে আমাকে শেষ পর্যন্ত করোনা ধরেই ফেললো। ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী বাসায় আইসোলেটেড হয়ে চিকিৎসা নিচ্ছি।’

‘আপনারা সবাই আমার জন্য দোয়া করবেন আমি যাতে দ্রুত সুস্থ হয়ে আপনাদের সেবায় আবারও ব্যস্ত হতে পারি। বেঁচে থেকে আবারও দায়িত্ব পালন করতে চাই।  আপনাদের সকলের জন্য ও শুভকামনা। ঘরে থাকবেন। সাবধানে থাকবেন।’

Comments

The Daily Star  | English

A different Eid for residents of St Martin's Island

Number of animals sacrificed half than usual, price of essentials high

1h ago