করোনা আপডেট: কক্সবাজার, মাদারীপুর, লক্ষ্মীপুর, পিরোজপুর, ফরিদপুর

দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় ১২,৭০৪টি নমুনা পরীক্ষা করে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত আরও ২,৯১১ জনকে শনাক্ত করা হয়েছে। কক্সবাজারে আরও ৬২ জন, মাদারীপুরে চার পুলিশ সদস্যসহ ২৬ জন, লক্ষ্মীপুরে আরও ২২ জন, পিরোজপুরে পূবালী ব্যাংকের ব্যবস্থাপকসহ নতুন করে সাত জন ও ফরিদপুরে আরও ৩০ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে।

দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় ১২,৭০৪টি নমুনা পরীক্ষা করে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত আরও ২,৯১১ জনকে শনাক্ত করা হয়েছে। এর মধ্যে কক্সবাজারে ৬২ জন, মাদারীপুরে চার পুলিশ সদস্যসহ ২৬ জন, লক্ষ্মীপুরে আরও ২২ জন, পিরোজপুরে পূবালী ব্যাংকের ব্যবস্থাপকসহ নতুন করে সাত জন ও ফরিদপুরে আরও ৩০ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে।

কক্সবাজারে আরও ৬২ জনের করোনা শনাক্ত

কক্সবাজার মেডিকেল কলেজে আইইডিসিআরের ফিল্ড ল্যাবে আজ মঙ্গলবার ২৩৩ জনের নমুনা পরীক্ষায় ৬৫ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। তাদের মধ্যে নতুন শনাক্ত ৬২ জন। আর, দ্বিতীয় দফা পরীক্ষায় শনাক্ত হয়েছে তিন জনের। এ নিয়ে জেলার এ পর্যন্ত ৮৫২ জন কোভিড-১৯ পজিটিভ শনাক্ত হলো।

কক্সবাজার সরকারি মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. অনুপম বড়ুয়া এই তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, নতুন শনাক্তদের মধ্যে রয়েছেন কক্সবাজার সদর উপজেলায় ৩৬ জন, চকরিয়ায় আট জন, উখিয়ায় পাঁচ জন, টেকনাফে দুই জন, রামুতে একজন, পেকুয়ায় ছয় জন, মহেশখালিতে দুই জন, কুতুবদিয়ায় একজন ও চট্টগ্রাম জেলার লোহাগাড়া উপজেলার একজন।

জেলায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে এ পর্যন্ত ২১ জন মারা গেছেন বলে তিনি জানান। 

মাদারীপুরে ৪ পুলিশ সদস্যসহ ২৬ জনের করোনা শনাক্ত

মাদারীপুরে গত ২৪ ঘন্টায় চার পুলিশ সদস্যসহ ২৬ জনের করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে জেলায় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ালো ১৪৯ জনে।

মাদারীপুরের সিভিল সার্জন মো. সফিকুল ইসলাম আজ মঙ্গলবার সন্ধ্যায় এ সব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

সিভিল সার্জন কার্যালয় সূত্র জানায়, গত ২৪ ঘণ্টায় জেলার ২১৭ জনের করোনা পরীক্ষার প্রতিবেদন আসে স্বাস্থ্য বিভাগের কাছে। এর মধ্যে ২৬ জনের রিপোর্ট পজিটিভ। নতুন শনাক্ত ২৬ জনের মধ্যে সবচেয়ে বেশি ১১ জন শনাক্ত হয়েছে সদর উপজেলায়।

সূত্র আরও জানায়, মাদারীপুর সদর থানা পুলিশের এক উপ-পরির্দশক ও জেলা গোয়েন্দা পুলিশের এক সদস্যের এবং শিবচর থানার দুই পুলিশ সদস্যের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এ ছাড়াও, কালিকিনি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সরকারি অ্যাম্বুলেন্সের চালক ও পল্লী বিদ্যুতের এক কর্মকর্তাসহ আট জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। শিবচর উপজেলা মোট পাঁচ জন ও রাজৈর উপজেলায় দুজনের করোনা শনাক্ত হয়েছে।

জানতে চাইলে মাদারীপুরের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মাহাবুব হাসান বলেন, ‘কোভিড-১৯-এ আমাদের আরও চার পুলিশ সদস্য আক্রান্ত হয়েছেন। তাদের সংস্পর্শে আসা ১৪ জনকে আমরা কোয়ারেন্টিন করেছি। এ নিয়ে জেলায় মোট আট পুলিশ সদস্যের করোনা শনাক্ত হলো।’

আক্রান্ত পুলিশ সদস্যদের করোনা উপসর্গ নেই বলে তিনি জানান।

মাদারীপুরের সিভিল সার্জন মো. সফিকুল ইসলাম বলেন, ‘আজ দুপুরে জেলার ২৬ জনের করোনা শনাক্তের প্রতিবেদন পেয়েছি। এটা জেলায় এক দিনে সর্বোচ শনাক্ত। আক্রান্তদের বেশির ভাগই উপসর্গহীন। তাদেরকে হোম আইসোলেশন ও প্রাতিষ্ঠানিক আইসোলেশনে রেখে চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘জেলায় এখন পুলিশ, স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মীসহ সকল শ্রেণি পেশার মানুষ করোনায় আক্রান্ত হচ্ছেন। পরিস্থিতি ক্রমশই খারাপের দিকে যাচ্ছে। এ অবস্থায় আমাদের সকলকে সর্বোচ সর্তক অবস্থানে থেকে পরিস্থিতি মোকাবিলা করতে হবে।’

লক্ষ্মীপুরে আরও ২২ জনের করোনা শনাক্ত

লক্ষ্মীপুরে আরও ২২ জনের করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে জেলায় এ পর্যন্ত ২৪২ জনের করোনা শনাক্ত হলো। জেলা সিভিল সার্জন ডা. আব্দুল গাফফার আজ মঙ্গলবার দুপুরে দ্য ডেইলি স্টারকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, নতুন শনাক্ত ২২ জনের মধ্যে জেলা সদরে রয়েছেন নয় জন, রামগঞ্জে সাত জন ও রায়পুরে ছয় জন।

জেলা সদরে নয় জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে উল্লেখ করে সদর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. নিজাম উদ্দিন বলেন, ‘আক্রান্তদের বাড়ি লকডাউন করে তাদের হোম আইসোলেশনে রাখা হয়েছে। এ নিয়ে উপজেলায় ১১০ জন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে।’

রামগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. গুনময় পোদ্দার জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় তার উপজেলায় ছয় জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। আক্রান্তদের হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে। এ নিয়ে উপজেলায় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৪৮ জন।

রায়পুর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. জাকির হোসেন দ্য ডেইলি স্টারকে জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় উপজেলায় ছয় জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এদের মধ্যে পাঁচ জনই পুলিশ বলে জানান তিনি।

লক্ষ্মীপুর সিভিল সার্জন ডা. আব্দুল গাফফার দ্য ডেইলি স্টারকে জানান, জেলায় করোনা শনাক্ত রোগীর সংখ্যা এখন ২৪২ জন। এদের মধ্যে সদর উপজেলায় ১১০ জন, রামগঞ্জে ৪৮ জন, কমলনগরে ২১ জন, রামগতিতে ১৯ জন ও রায়পুরে ৪৪ জন। এদের মধ্যে হাসপাতালে আইসোলেশনে ভর্তি আছে ৯৫ জন, হোম আইসোলেশনে আছেন ৫০ জন, সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৯০ জন।

জেলায় এ পর্যন্ত করোনায় পাঁচ জন মারা গেছেন বলে জানান তিনি।

পিরোজপুরে পূবালী ব্যাংকের ব্যবস্থাপকসহ নতুন করে ৭ জনের করোনা শনাক্ত

পিরোজপুরে পূবালী ব্যাংকের পিরোজপুর শাখার ব্যবস্থাপকসহ জেলায় নতুন করে সাত জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। আক্রান্তদের চার জনের বাড়ি পিরোজপুর সদর উপজেলায়, আর, অপর তিন জনের বাড়ি মঠবাড়িয়া উপজেলায়।

সিভিল সার্জন ডা. মো. হাসনাত ইউসুফ জাকী আজ মঙ্গলবার দ্য ডেইলি স্টারকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, ‘পিরোজপুরে পূবালী ব্যাংক এর এক কর্মকর্তার এর আগে ২৫ মে করোনা শনাক্ত হওয়ার পর, ওই ব্যাংকের ১৫ জন কর্মকর্তা ও কর্মচারীর নমুনা সংগ্রহ করে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। আজ পাওয়া প্রতিবেদনে জানা যায় ব্যাংকের ব্যবস্থাপকসহ আরও তিন কর্মকর্তা করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত।’

২৫ মে-র পর থেকেই ব্যাংকের ওই শাখা লকডাউন আছে। আগামী ১০ দিনের মধ্যে ওই ব্যাংকের কোন কর্মকর্তা কিংবা কর্মচারীর করোনা শনাক্ত না হলে, ব্যাংকটি খুলে দেওয়া হবে বলেও জানান সিভিল সার্জন। 

জেলায় নতুন শনাক্ত সাত জনের বাড়ি স্থানীয় প্রশাসন আজ মঙ্গলবার লকডাউন করেছে বলে জানান তিনি।

সিভিল সার্জন অফিস সূত্রে জানা যায়, জেলায় এ পর্যন্ত ৭৪ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। তাদের মধ্যে ২৩ জনের বাড়ি পিরোজপুর সদর উপজেলায়, ১২ জনের বাড়ি ভান্ডারিয়ায় , ১৪ জন মঠবাড়িয়ার, ১১ জন ইন্দুরকানি উপজেলার, সাত জন নাজিরপুরের, ছয় জন নেছারাবাদের ও একজন কাউখালী উপজেলার।

জেলায় এ পর্যন্ত নয় জন করোনা রোগী সুস্থ হয়েছেন।

ফরিদপুরে পুলিশ, দমকল বাহিনীর সদস্যসহ আরও ৩০ জনের করোনা শনাক্ত

ফরিদপুরে পুলিশ ও দমকল বাহিনীর কর্মীসহ আরও ৩০ জনের করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে জেলায় এ পর্যন্ত ৩৩৫ জনের করোনা শনাক্ত হলো। সিভিল সার্জন মো. ছিদ্দীকুর রহমান দ্য ডেইলি স্টারকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, ফরিদপুরের সালথায় ৪৭ বছর বয়সী দমকল বাহিনীর এক কর্মী এবং ভাঙ্গায় ৩৬ বছর বয়সী এক পুলিশ কনস্টেবলের করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে।

তিনি আরও জানান, ফরিদপুরে নতুন করে যে ৩০ জনের করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে তাদের মধ্যে ভাঙ্গা উপজেলায় রয়েছেন ১১ জন ও সদর উপজেলায় রয়েছেন নয় জন। এ ছাড়া, সদরপুর উপজেলায় তিন জন, মধুখালী ও নগরকান্দা উপজেলায় দুই জন করে এবং সালথা, চরভদ্রাসন ও আলফাডাঙ্গা উপজেলায় একজন করে রয়েছেন।

এ পর্যন্ত ফরিদপুরে ৩৩৫ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। তাদের মধ্যে ফরিদপুর সদর উপজেলায় ৮৮ জন, ভাঙ্গা উপজেলায় ৭২ জন, বোয়ালমারী উপজেলায় ৫৩ জন, নগরকান্দা উপজেলায় ৩২ জন, চরভদ্রাসন উপজেলায় ৩০ জন, আলফাডাঙ্গা উপজেলায় ২৭ জন, সদরপুর উপজেলায় ১৫ জন, মধুখালী উপজেলায় ১১ জন ও সালথা উপজেলায় সাত জন রয়েছেন।

Comments