করোনা আপডেট: নোয়াখালী, গোপালগঞ্জ, চাঁদপুর, পটুয়াখালী ও রাঙ্গামাটি

নোয়াখালীতে গত ২৪ ঘণ্টায় একই বাড়ির ১১ জনসহ আরও ৩৯ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। গোপালগঞ্জে নতুন করে ২০ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এ ছাড়াও, করোনা উপসর্গ নিয়ে চাঁদপুরে করোনা উপসর্গ নিয়ে পাঁচ জন এবং পটুয়াখালীতে দুজনের মৃত্যু হয়েছে। তবে, রাঙ্গামাটিতে করোনা থেকে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৩২ জন।
Coronavirus-1.jpg
করোনাভাইরাস। ছবি: সংগৃহীত

নোয়াখালীতে গত ২৪ ঘণ্টায় একই বাড়ির ১১ জনসহ আরও ৩৯ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। গোপালগঞ্জে নতুন করে ২০ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এ ছাড়াও, করোনা উপসর্গ নিয়ে চাঁদপুরে করোনা উপসর্গ নিয়ে পাঁচ জন এবং পটুয়াখালীতে দুজনের মৃত্যু হয়েছে। তবে, রাঙ্গামাটিতে করোনা থেকে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৩২ জন।

নোয়াখালীতে আরও ৩৯ জনের করোনা শনাক্ত

নোয়াখালী সংবাদদাতা জানান, জেলায় বাবা মেয়েসহ একই বাড়ীর ১১ জনসহ আরও ৩৯ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এই নিয়ে জেলায় করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা হলো ৮৮০ জন। শুক্রবার বিকেলে নোয়াখালী সিভিল সার্জন ডা. মো. মোমিনুর রহমান এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

সদর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের করোনা ফোকাল পার্সন ও মেডিকেল অফিসার ডা. নিলিমা ইয়াছমিন বলেন, ‘গত ২৪ ঘণ্টায় সদর উপজেলায় আরও এক জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। শনাক্ত হওয়া ব্যক্তিকে হোম কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে।

বেগমগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা অসীম কুমার দাস জানান, ‘এ উপজেলায় আরও ৩৮ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এদের মধ্যে চৌমুহনী পৌরসভার এক জন কাউন্সিলর ও তার মেয়েসহ একই বাড়ীর ১১ জন আছেন। আক্রান্তদের বাড়ি লকডাউন করে হোম আইসোলেশনে রাখা হয়েছে।’

নোয়াখালী সিভিল সার্জন ডা: মো: মোমিনুর রহমান বলেন, ‘জেলায় করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ৮৮০ জন। এদের মধ্যে বেগমগঞ্জ উপজেলায় ৪২১ জন, সদর উপজেলায় ১৯৮ জন, কবিরহাটে ৬৮ জন, সেনবাগে ৫৬ জন, চাটখিলে ৫৫ জন, সোনাইমুড়ীতে ৪৭ জন, সুবর্ণচরে ২১ জন, কোম্পানিগঞ্জে আট জন ও হাতিয়ায় ছয় জন আছেন। এ পর্যন্ত মারা গেছেন ২৪ জন এবং আইসোলেশনে আছেন ৭৫৯ জন।’

গোপালগঞ্জে আরও ২০ জনের করোনা শনাক্ত

ফরিদপুর সংবাদদাতা জানান, গোপালগঞ্জে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আরও ২০ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে জেলায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২৪২ জনে। গোপালগঞ্জের সিভিল সার্জন নিয়াজ মোহাম্মদ এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

সিভিল সার্জন বলেন, ‘নতুন আক্রান্তদের মধ্যে গোপালগঞ্জ সদর উপজেলায় সাত জন, মুকসুদপুর উপজেলায় দুই জন, টুঙ্গিপাড়া উপজেলায় তিন জন, ও কাশিয়ানী উপজেলায় আট জন আছেন।  আক্রান্তদের বাড়িসহ আশপাশের  কয়েকটি বাড়ি লকডাউন করা হয়েছে। সেই সঙ্গে আক্রান্তদের পরিবারের সদস্যদের হোম কোয়ারেন্টিনে থাকার পারমর্শ দেওয়া হয়েছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘মোট আক্রান্ত ২৪২ জনের মধ্যে মুকসুদপুর উপজেলায় ৫৮ জন, কাশিয়ানী উপজেলায় ৬৪ জন, গোপালগঞ্জ সদর উপজেলায় ৩৬ জন, টুঙ্গিপাড়া উপজেলায় ৩৮ জন ও কোটালীপাড়া উপজেলায় ৪৬ জন। এ পর্যন্ত সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ১২০ জন। জেলার বিভিন্ন হাসপাতালে ও বাড়িতে আইসোলেশনে চিকিৎসাধীন ১২১ জন এবং মারা গেছেন এক জন।’

করোনা উপসর্গ নিয়ে চাঁদপুরে আরও ৫ জনের মৃত্যু

চাঁদপুর সংবাদদাতা জানান, করোনা উপসর্গ নিয়ে চাঁদপুরে আরও পাঁচ ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে হাজীগঞ্জ উপজেলায় পৌর যুবদলের সাবেক আহবায়ক আবদুল আউয়াল সর্দার (৪৫) আজ শুক্রবার সকালে নিজ বাড়িতে জ্বর ও শ্বাসকষ্টে মারা গেছেন।

একই ওয়ার্ডের ৫০ বছর বয়সী আরেক ব্যক্তি সকালে শ্বাসকষ্টে নিজ বাড়িতে মারা যান এবং একই উপজেলা সাত নং বড়কুল ইউনিয়নের এন্নাতলি গ্রামে ৬০ বছর বয়সী এক বৃদ্ধ তার বাড়িতে মারা গেছেন।

হাজীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. শোয়েব আহমেদ বলেন, ‘মৃতদের মধ্যে পৌর যুবদলের সাবেক আহবায়ক আবদুল আউয়াল সর্দার আগ থেকেই শ্বাসকষ্টে ভুগছিলেন। আগের দিন বৃহস্পতিবার করোনা নমুনা সংগ্রহ করা হয়। শুক্রবার বাকি এক জনের নমুনা সংগ্রহ করা হলেও অন্যজনের করা হয়নি।

রাত দুটার দিকে চাঁদপুর সদর উপজেলায় এক ব্যক্তি করোনার উপসর্গ নিয়ে মারা গেছেন। তিনি উপজেলার রামপুর ইউনিয়নের বড় সুন্দর গ্রামের পাটওয়ারী বাড়ি বাসিন্দা। শুক্রবার সকালে তার করোনা নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। পরে বিশেষ ব্যবস্থায় দাফন করা হয়।

সদর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. সাজেদা বেগম বলেন, ‘মৃত ব্যক্তির করোনার উপসর্গ ছিল। অনেকদিন ধরে তিনি অসুস্থ ছিলেন।’

এ ছাড়াও, মতলব দক্ষিণ উপজেলায় আরেক ব্যক্তি করোনা উপসর্গ নিয়ে মারা গেছেন। তিনি বৃহস্পতিবার রাতে উপজেলার উপাদী দক্ষিণ ইউনিয়নে নিজ বাড়িতে মারা যান। রাতেই তাকে দাফন করা হয়।

পটুয়াখালীতে করোনা উপসর্গ নিয়ে কলেজ শিক্ষকসহ দুজনের মৃত্যু

পটুয়াখালী সংবাদদাতা জানান, করোনা উপসর্গ নিয়ে বৃহস্পতিবার রাতে পটুয়াখালীতে অবসরপ্রাপ্ত কলেজ শিক্ষকসহ দুজনের মৃত্যু হয়েছে। এদের একজনের বাড়ি পটুয়াখালী সদর উপজেলায় ও অপর জনের জেলার মির্জাগঞ্জ উপজেলার কিসমতপুর গ্রামে।

বৃহস্পতিবার রাত ১১ টার দিকে অবসরপ্রাপ্ত ওই কলেজ শিক্ষক পটুয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে মারা যান। গত বুধবার থেকে তিনি জ্বর, শ্বাসকষ্টসহ করোনা উপসর্গে আক্রান্ত ছিলেন। তার নমুনা সংগ্রহ শেষে আজ দুপুরে গ্রামের বাড়িতে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়।

পটুয়াখালী সিভিল সার্জন ডা. জাহাংগীর আলম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এ ছাড়াও জেলার মির্জাগঞ্জ উপজেলার কাকড়াবুনিয়া ইউনিয়নে অপর ব্যক্তির মৃত্যু হয়। তিনি জ্বর ও শ্বাসকষ্ট নিয়ে বৃহস্পতিবার রাতে নিজ বাড়িতে মারা যান। তিনি ঢাকায় গাড়ি চালাতেন। তার নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। কোভিড প্রটোকল অনুযায়ী তার দাফনের ব্যবস্থা করা হয়েছে বলে জানান সিভিল সার্জন।

রাঙ্গামাটিতে আক্রান্ত ৭০ জনের ৩২ জন করোনামুক্ত

রাঙ্গামাটি সংবাদদাতা জানান, আজ শুক্রবার পর্যন্ত পর পর দুই রিপোর্ট নেগেটিভ আসায় জেলায় মোট ৩২ জনকে করোনামুক্ত হিসেবে ঘোষণা করেছে জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ।

রাঙ্গামাটির সিভিল সার্জন কার্যালয়ের করোনা বিষয়ক ফোকাল পার্সন ডা. মোস্তফা কামাল এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

ডা. মোস্তাফা বলেন, ‘রাঙ্গামাটিতে এ পর্যন্ত ৭০ জন করোনা পজিটিভ হয়েছেন। গত ১৫ মে থেকে আক্রান্তদের নেগেটিভ নমুনা রিপোর্ট অনুযায়ী সুস্থ ঘোষণা করা হচ্ছে। প্রথমে ১৫ মে রাঙ্গামাটি সদর উপজেলা থেকে চার জন, ২৩ মে রাজস্থলী উপজেলায় এক জন, ২৭ মে বিলাইছড়িতে তিন জন, ২৮ মে রাঙামাটি সদর হতে আরও দুই জন, ২ জুন ২৪ ঘণ্টায় রাঙ্গামাটি সদর হতে আরও সাত জন ও জুড়াছড়ি উপজেলা থেকে ছয় জন এবং আজ সর্বশেষ আজ ৫ জুন নয় জনকে সুস্থ ঘোষণা করা হয়।’

সিভিল সার্জন অফিস সূত্রে জানা গেছে, আজ ৫ জুন পর্যন্ত জেলা থেকে ১ হাজার ২০৮ টি নমুনা পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছে। এরমধ্যে ১ হাজার ২০ টির রিপোর্ট পাওয়া গেছে।

Comments

The Daily Star  | English

Old, unfit vehicles running amok

The bus involved in yesterday’s accident that left 14 dead in Faridpur would not have been on the road had the government not caved in to transport associations’ demand for allowing over 20 years old buses on roads.

3h ago