লঞ্চের ডেকে সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করতে দোতলা বার্থ

বরগুনা-ঢাকা রুটের যাত্রীবাহী লঞ্চে সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করতে দোতলা বার্থ সিস্টেম চালু হয়েছে। ফলে, ডেকের যাত্রীরা কেবিনের মতোই আলাদাভাবে থাকতে পারবেন। এটি দোতলা হওয়ায় এক জনের সঙ্গে আরেক জনের নিরাপদ দূরত্ব বজায় রাখাও সম্ভব হবে।
ছবি: সংগৃহীত

বরগুনা-ঢাকা রুটের যাত্রীবাহী লঞ্চে সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করতে দোতলা বার্থ সিস্টেম চালু হয়েছে। ফলে, ডেকের যাত্রীরা কেবিনের মতোই আলাদাভাবে থাকতে পারবেন। এটি দোতলা হওয়ায় এক জনের সঙ্গে আরেক জনের নিরাপদ দূরত্ব বজায় রাখাও সম্ভব হবে।

বরগুনা-ঢাকা রুটে দোতলা যাত্রীবাহী লঞ্চে এই প্রথম দোতলা বার্থ সিস্টেম চালু হলো।

লঞ্চের মালিক জনাব মাসুম খাঁন জানিয়েছেন, বেডগুলো সেপারেট করার জন্য চারপাশে ফাইবার গ্লাস দেবেন। এতে যাত্রীদের মধ্যে কারো সঙ্গে কারো ফিজিক্যাল কন্টাক্ট থাকবে না। তবে, এজন্য নৌ-পরিবহন অধিদপ্তরের নৌ-স্থপতি দ্বারা পরীক্ষা করারও প্রয়োজন আছে।

তিনি জানান, যাত্রীদের মধ্যে কার করোনা আছে তা কেউ জানে না। এই পদ্ধতিতে যাত্রীদের সর্বোচ্চ স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলা সম্ভব।

নতুন এই পদ্ধতিকে বরগুনা-ঢাকাগামী নৌপথের যাত্রীরা স্বাগত জানিয়েছেন।

এই রুটে নিয়মিত যাত্রী ধীমান সরকার জানান, এর ফলে কেবিন না পেলেও নিরাপদে ডেকে আসা সম্ভব।

আরেক নিয়মিত যাত্রী খোরশেদ আলম জানান, ট্রেনে এ ধরনের সিস্টেম থাকলেও লঞ্চে এই প্রথম চালু হয়েছে, এতে যাত্রীদের করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঝুঁকি কমবে।

বরিশালে বিআইডব্লিউটিএ সহকারী পরিচালক আজমল হুদা মিঠু জানান, এই পদ্ধতির ফলে যাত্রীরা নিরাপদে ও আরামে চলাচল করতে পারবেন। আমাদের দেশ কবে করোনামুক্ত হবে কেউ জানে না। তাই আমাদের দৈনন্দিন জীবনে চলার জন্য নতুন নতুন পন্থা অবলম্বন করতে হবে।

Comments

The Daily Star  | English
Impact of poverty on child marriages in Rasulpur

The child brides of Rasulpur

As Meem tended to the child, a group of girls around her age strolled past the yard.

13h ago