পেনাল্টি-ব্যর্থতায় মেসির ঘাড়ে নিঃশ্বাস ফেলছেন রোনালদো

কোপা ইতালিয়ার সেমিফাইনালের দ্বিতীয় লেগে আগের দিন ম্যাচের ১৬তম মিনিটেই এগিয়ে যেতে পারতো জুভেন্টাস। কিন্তু স্পট কিক থেকে গোল করতে ব্যর্থ হয়েছেন দলের সেরা তারকা ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো। যদিও তাতে খুব একটা সমস্যা হয়নি তাদের। অ্যাওয়ে গোলের সুবাধে ফাইনালে উঠেছে দলটি। তবে দিনভর আলোচনা রোনালদোর পেনাল্টি মিস নিয়ে। কারণ আর একটি মিস করলেই সংখ্যায় মেসির সঙ্গে চলে আসবেন সিআরসেভেন।
ফাইল ছবি: এএফপি

কোপা ইতালিয়ার সেমিফাইনালের দ্বিতীয় লেগে আগের দিন ম্যাচের ১৬তম মিনিটেই এগিয়ে যেতে পারতো জুভেন্টাস। কিন্তু স্পট কিক থেকে গোল করতে ব্যর্থ হয়েছেন দলের সেরা তারকা ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো। যদিও তাতে খুব একটা সমস্যা হয়নি তাদের। অ্যাওয়ে গোলের সুবাধে ফাইনালে উঠেছে দলটি। তবে দিনভর আলোচনা রোনালদোর পেনাল্টি মিস নিয়ে। কারণ আর একটি মিস করলেই সংখ্যায় মেসির সঙ্গে চলে আসবেন সিআরসেভেন।

কিন্তু তাতেই সমান হবে? যদিও সংখ্যা বলে তাই। কারণ ক্যারিয়ারে ২৭টি পেনাল্টি মিস করেছেন মেসি। রোনালদোর মিস সংখ্যা ২৬। ব্যবধান মাত্র এক। কিন্তু এ পরিসংখ্যানই শেষ কথা নয়। পেনাল্টি নেয়ায় আসলে কে এগিয়ে? মেসি? না রোনালদো? চলুন বিশ্লেষণ করে দেখা যাক...

মোট পেনাল্টি নেওয়ার তুলনামূলক চিত্র

বার্সেলোনা ও আর্জেন্টিনা দুই জায়গাতেই পেনাল্টি নেওয়ার ক্ষেত্রে দলের প্রথম পছন্দ মেসি। তেমনি রোনালদোও নিজ দেশ পর্তুগাল এবং তার ক্লাব জুভেন্টাসে। রিয়াল মাদ্রিদে থাকতেও প্রথম পছন্দ ছিলেন তিনি। রেকর্ডও কথা বলে তাদের পক্ষেই।

এখন পর্যন্ত মোট ১১৯টি পেনাল্টি শট নিয়েছেন মেসি। এর মধ্যে গোল করতে পেরেছেন ৯২টি। মিসের সংখ্যা ২৭। সফলতার হার ৭৭.৩১ শতাংশ। তবে মিস করা ২৭টি শটের মধ্যে দ্বিতীয় শট থেকে দল গোল পেয়েছে ৫ বার।

অন্যদিকে, রোনালদো মোট পেনাল্টি শট নিয়েছেন ১৫৩টি। এরমধ্যে ১২৭টি গোল, ২৬টি মিস। সফলতার হার ৮৩.০১ শতাংশ। মিস করা ২৬টি শটের মধ্যে দ্বিতীয় শট থেকে দল গোল পেয়েছে ৩ বার।

সেক্ষেত্রে গড়ে মেসির চেয়ে রোনালদো এগিয়ে আছেন অনেক।

মূল ম্যাচের তুলনামূলক চিত্র

মোট সংখ্যার মতো মূল ম্যাচেও পেনাল্টি থেকে গোল করায় এগিয়ে আছেন রোনালদো। মোট ১১৪টি শট নিয়ে ৮৮টি গোল দিয়েছেন মেসি। মিস সংখ্যা ২৬। সফলতার হার ৭৭.১৯ শতাংশ।

অন্যদিকে, রোনালদো মোট শট নিয়েছেন ১৪৫টি। সেখানে গোল পেয়েছেন ১২১ বার। ২৪ বার লক্ষ্যভেদ করতে পারেননি তিনি। ৮৩.৪৫ শতাংশ সফলতার হার।

টাই-ব্রেকারের তুলনামূলক চিত্র

টাই-ব্রেকারে গোল পাওয়ার ক্ষেত্রে কিছুটা এগিয়ে আছেন মেসি। এখন পর্যন্ত ৪টি শট নিয়েছেন তিনি। সেখানে লক্ষ্যভেদ করতে পেরেছেন ৪বার। মিস ১টি। সফলতার হার ৮০ শতাংশ।

অন্যদিকে, মোট ৮বার শট নিয়েছেন রোনালদো। এর মধ্যে ৬টি গোল ও ২টি মিস। সফলতার হার ৭৫ শতাংশ।

জাতীয় দলের জার্সিতে তুলনামূলক চিত্র

জাতীয় দলের জার্সি গায়ে এখন পর্যন্ত ২৪টি পেনাল্টি শট নিয়েছেন মেসি। এরমধ্যে গোল করতে পেরেছেন ১৯ বার। ৫টি মিস। সফলতার হার ৭৯.১৭ শতাংশ।

অন্যদিকে, পর্তুগালের হয়ে এখন পর্যন্ত ২০টি পেনাল্টি শট নিয়ে ১৪টি গোল দিয়েছেন রোনালদো। মিসের সংখ্যা ৬। ফলে এক্ষেত্রে তার সফলতার হার কিছুটা কম মেসির থেকে। ৭০ শতাংশ গোল করতে পেরেছেন তিনি।

ক্লাবের জার্সিতে তুলনামূলক চিত্র

সিনিয়র পর্যায়ে মেসি তার পুরো ক্যারিয়ার জুড়ে আছেন বার্সেলোনাতে। এখন পর্যন্ত এ ক্লাবের হয়ে ৯৫টি স্পট কিক নিয়েছেন মেসি। এরমধ্যে ৭৩ বার লক্ষ্যভেদ করতে পেরেছেন। মিস হয়েছে ২২টি শট। সফলতার হার ৭৬.৮৪ শতাংশ।

অন্যদিকে, সিনিয়র পর্যায়ে এখন পর্যন্ত ৪টি ক্লাবে খেলেছেন মেসি। তবে এরমধ্যে সবচেয়ে বেশি কাটিয়েছেন রিয়াল মাদ্রিদে। সে ক্লাবে সোনালী সময় কাটিয়েছেন। ৮৫.১১ শতাংশ পেনাল্টি গোল পেয়েছেন। মোট ৯৪টি শটের ৮০টি জালে বল পাঠান তিনি। মিস হয় ১৪ বার।

তবে পেনাল্টি নেওয়ার রোনালদো সবচেয়ে সফল বর্তমান ক্লাব জুভেন্টাসে। মোট ১৬টি শট নিয়ে মাত্র ২টি মিস করেছেন। গোল সংখ্যা ১৪টি। সফলতার হার ৮৭.৫০ শতাংশ।

ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে থাকতে মোট ২৩টি শট নিয়ে গোল পেয়েছেন ১৯ বার। মিস ৪টি। সফলতা ৮২.৬১ শতাংশ।

স্পোর্টিং লিসবনে থাকাকালীন সময়ে কোনো পেনাল্টি শট নেননি রোনালদো।

Comments

The Daily Star  | English

Afif exposing BCB’s bitter truth

Afif Hossain has been one of the most fortuitous cricketers in the national fold since his debut in February 2018.

6h ago