করোনাভাইরাস

মৃত্যু ৪ লাখ ৬৪ হাজার, আক্রান্ত ৮৭ লাখ ৭০ হাজারের বেশি

বিশ্বব্যাপী প্রতিনিয়ত মহামারি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা বাড়ছে। ইতোমধ্যে চার লাখ ৬৪ হাজারেরও বেশি মানুষ মারা গেছেন। আক্রান্ত হয়েছেন ৮৭ লাখ ৭০ হাজারের বেশি। এ ছাড়া, সুস্থও হয়েছেন প্রায় সাড়ে ৪৩ লাখ মানুষ।
ব্রাজিলে করোনা রোগীদের চিকিৎসায় কাজ করা এক নার্স। ১৭ জুন ২০২০। ছবি: রয়টার্স

বিশ্বব্যাপী প্রতিনিয়ত মহামারি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা বাড়ছে। ইতোমধ্যে চার লাখ ৬৪ হাজারেরও বেশি মানুষ মারা গেছেন। আক্রান্ত হয়েছেন ৮৭ লাখ ৭০ হাজারের বেশি। এ ছাড়া, সুস্থও হয়েছেন প্রায় সাড়ে ৪৩ লাখ মানুষ।

আজ রোববার জনস হপকিনস ইউনিভার্সিটির করোনাভাইরাস রিসোর্স সেন্টার এ তথ্য জানিয়েছে।

জনস হপকিনস ইউনিভার্সিটির সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ৮৭ লাখ ৭০ হাজার ৬২৯ জন এবং মারা গেছেন ৪ লাখ ৬৪ হাজার ৩৯ জন। এ ছাড়া, সুস্থ হয়েছেন ৪৩ লাখ ৪৭ হাজার ৬৪৫ জন।

করোনাভাইরাসে সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত ও মৃত্যু যুক্তরাষ্ট্রে। দেশটিতে আক্রান্ত হয়েছেন ২২ লাখ ৫৪ হাজার ৮৫৫ জন এবং মারা গেছেন ১ লাখ ১৯ হাজার ৭১৯ জন। এ ছাড়া, সুস্থ হয়েছেন ৬ লাখ ১৭ হাজার ৪৬০ জন।

যুক্তরাষ্ট্রের পর সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত ও মৃত্যু দক্ষিণ আমেরিকার দেশ ব্রাজিলে। দেশটিতে আক্রান্ত হয়েছেন ১০ লাখ ৩২ হাজার ৯১৩ জন, মারা গেছেন ৪৯ হাজার ৯৭৬ জন এবং সুস্থ হয়েছেন ৫ লাখ ৭৬ হাজার ৭৭৯ জন।

মৃত্যুর সংখ্যার দিক থেকে তৃতীয়তে রয়েছে যুক্তরাজ্য। দেশটিতে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে এখন পর্যন্ত ৪২ হাজার ৬৭৪ জন মারা গেছেন। আক্রান্ত হয়েছেন ৩ লাখ ৪ হাজার ৫৮০ জন। এ ছাড়া, সুস্থ হয়েছেন ১ হাজার ৩১৯ জন।

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বাড়ছে রাশিয়া ও পেরুতেও। রাশিয়ায় এখন পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন ৫ লাখ ৭৬ হাজার ১৬২ জন এবং মারা গেছেন ৭ হাজার ৯৯২ জন। এ ছাড়া, সুস্থ হয়েছেন ৩ লাখ ৩৪ হাজার ২৪ জন। পেরুতে আক্রান্ত হয়েছেন ২ লাখ ৫১ হাজার ৩৮৮ জন এবং মারা গেছেন ৭ হাজার ৮৬১ জন। এ ছাড়া, সুস্থ হয়েছেন ১ লাখ ৪৩ হাজার ১৭ জন।

প্রতিবেশী দেশ ভারতে আক্রান্ত হয়েছেন ৩ লাখ ৯৫ হাজার ৪৮ জন, মারা গেছেন ১২ হাজার ৯৪৮ জন এবং সুস্থ হয়েছেন ২ লাখ ১৩ হাজার ৮৩১ জন।

ইউরোপের দেশ স্পেনে এখন পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন ২ লাখ ৪৫ হাজার ৯৩৮ জন, মারা গেছেন ২৮ হাজার ৩২২ জন এবং সুস্থ হয়েছেন ১ লাখ ৫০ হাজার ৩৭৬ জন। ইতালিতে আক্রান্ত হয়েছেন ২ লাখ ৩৮ হাজার ২৭৫ জন, মারা গেছেন ৩৪ হাজার ৬১০ জন এবং সুস্থ হয়েছেন ১ লাখ ৮২ হাজার ৪৫৩ জন। ফ্রান্সে আক্রান্ত হয়েছেন ১ লাখ ৯৬ হাজার ৭২৪ জন, মারা গেছেন ২৯ হাজার ৬৩৬ জন এবং সুস্থ হয়েছেন ৭৪ হাজার ৪৩৬ জন। জার্মানিতে আক্রান্ত হয়েছেন ১ লাখ ৯০ হাজার ৬৭০ জন, মারা গেছেন ৮ হাজার ৮৯৫ জন এবং সুস্থ হয়েছেন ১ লাখ ৭৪ হাজার ৬০৯ জন।

মধ্যপ্রাচ্যের দেশ ইরানে আক্রান্ত হয়েছেন ২ লাখ ২ হাজার ৫৮৪ জন, মারা গেছেন ৯ হাজার ৫০৭ জন এবং সুস্থ হয়েছেন ১ লাখ ৬১ হাজার ৩৮৪ জন। তুরস্কে আক্রান্ত হয়েছেন ১ লাখ ৮৬ হাজার ৪৯৩ জন, মারা গেছেন ৪ হাজার ৯২৭ জন এবং সুস্থ হয়েছেন ১ লাখ ৫৮ হাজার ৮২৮ জন।

ভাইরাসটির সংক্রমণস্থল চীনে আক্রান্ত হয়েছেন ৮৪ হাজার ৫৫১ জন, মারা গেছেন ৪ হাজার ৬৩৯ জন এবং সুস্থ হয়েছেন ৭৯ হাজার ৫৩৪ জন।

উল্লেখ্য, গত ৮ মার্চ বাংলাদেশে প্রথম করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত করে সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান (আইইডিসিআর)। প্রতিষ্ঠানটির সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, দেশে এখন পর্যন্ত করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ১ লাখ ৮ হাজার ৭৭৫ জনকে শনাক্ত করা হয়েছে। মারা গেছেন ১ হাজার ৪২৫ জন। এ ছাড়া, সুস্থ হয়েছেন ৪৩ হাজার ৯৯৩ জন।

Comments

The Daily Star  | English
inflation in Bangladesh

Inflation edges up despite monetary tightening. Why?

Bangladesh's annual average inflation crept up to 9.59% last month, way above the central bank's revised target of 7.5% for the financial year ending in June

3h ago