করোনা মহামারিকালেও অস্ত্র প্রদর্শনীর নীতিতে উত্তর কোরিয়া!

মহামারি করোনাভাইরাসের কারণে পুরো বিশ্বে যখন ‘স্থবির’ অবস্থা বিরাজ করছে, তখনও নিজেদের অস্ত্রের শক্তি প্রদর্শনীর প্রস্তুতিই চালাচ্ছে উত্তর কোরিয়া। করোনা পরিস্থিতিতেও আগামী অক্টোবরে অনুষ্ঠেয় দেশটির ক্ষমতাসীন দল ওয়ার্কার্স পার্টির ৭৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে বৃহৎ পরিসরে সামরিক কুচকাওয়াজের প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে। এই আয়োজনে নতুন অস্ত্রের প্রদর্শনীও করতে পারে উত্তর কোরিয়া।
প্রতীকী ছবি। (সংগৃহীত)

মহামারি করোনাভাইরাসের কারণে পুরো বিশ্বে যখন ‘স্থবির’ অবস্থা বিরাজ করছে, তখনও নিজেদের অস্ত্রের শক্তি প্রদর্শনীর প্রস্তুতিই চালাচ্ছে উত্তর কোরিয়া। করোনা পরিস্থিতিতেও আগামী অক্টোবরে অনুষ্ঠেয় দেশটির ক্ষমতাসীন দল ওয়ার্কার্স পার্টির ৭৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে বৃহৎ পরিসরে সামরিক কুচকাওয়াজের প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে। এই আয়োজনে নতুন অস্ত্রের প্রদর্শনীও করতে পারে উত্তর কোরিয়া।

আজ সোমবার দেশটির প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের বরাত দিয়ে কোরিয়ার সংবাদমাধ্যম দ্য কোরিয়া হেরল্ডের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

প্রতিবেদনে বলা হয়, ধারণা করা হচ্ছে, আগামী অক্টোবরে অনুষ্ঠেয় এই আয়োজনের মাধ্যমে নতুন অস্ত্রের প্রদর্শনী করবে উত্তর কোরিয়া।

প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, পিয়ংইয়ংয়ের মিরিম বিমানঘাঁটিতে কিছু নতুন নির্মাণাধীন ভবন চিহ্নিত করা হয়েছে। যার পরিপ্রেক্ষিতে ধারণা করা হচ্ছে, আগামী ১০ অক্টোবরে অনুষ্ঠেয় আয়োজনে আন্তমহাদেশীয় ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র (আইসিবিএম) ও উৎক্ষিপ্ত আন্তমহাদেশীয় ক্ষেপণাস্ত্রের (এসএলবিএম) প্রদর্শনী করা হবে। ক্ষমতাসীন দলের ৭৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন প্রস্তুতিতে কাজ করছে দেশটির সামরিক বাহিনী।

মন্ত্রণালয় আরও জানিয়েছে, উত্তর কোরিয়া তাদের পারমাণবিক কর্মসূচি বন্ধ রেখেছে। তারা শুধু ক্ষেপণাস্ত্র কর্মসূচি নিয়ে কাজ করছে।

অন্যদিকে, সম্প্রতি লিফলেট বিতরণকে কেন্দ্র দুই কোরিয়ার মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে। দক্ষিণ কোরিয়াকে ‘প্রতিশোধমূলক শাস্তি’ দিতে ইতোমধ্যে হাজারো বেলুন ও কয়েক মিলিয়ন লিফলেট তৈরি করেছে উত্তর কোরিয়া।

উত্তর কোরিয়া জানিয়েছে, তারা দক্ষিণ কোরিয়া-বিরোধী লিফলেট বিতরণ কার্যক্রম শুরু করবে। কারণ, দুই দেশের সীমান্ত এলাকায় বিপুল পরিমাণে উত্তর কোরিয়া-বিরোধী লিফলেট পাওয়া যাচ্ছে। যার পরিপ্রেক্ষিতে সিউলের বিরুদ্ধে এই ব্যবস্থা নেওয়ার কথা জানিয়েছে পিয়ংইয়ং।

উল্লেখ্য, সাধারণত জাতীয় গুরুত্বপূর্ণ দিনগুলোতে সামরিক কুচকাওয়াজের আয়োজন করে থাকে উত্তর কোরিয়া। এসব আয়োজনের মধ্য দিয়ে দেশটি ক্ষেপণাস্ত্রসহ নতুন উদ্ভাবিত বিভিন্ন অস্ত্রের প্রদর্শনী করে থাকে। প্রতি পাঁচ বা ১০ বছর পর পর প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপনে বৃহৎ পরিসরে সামরিক কুচকাওয়াজের আয়োজন করে থাকে উত্তর কোরিয়া।

Comments

The Daily Star  | English

97pc work of HSIA 3rd terminal complete: minister

Only three percent of work, which includes calibration and testing of various systems is yet to be completed

Now