করোনা আপডেট: ফরিদপুর, ময়মনসিংহ, ফেনী, কুষ্টিয়া, চাঁদপুর

গত ২৪ ঘণ্টায় ফরিদপুরে আরও ১০১ জনের এবং ফেনীতে নতুন করে ১৮ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। কুষ্টিয়ায় করোনায় আরও দুজনের মৃত্যু হয়েছে ও ময়মনসিংহে নতুন করে আরও ২৭ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। চাঁদপুরে গত ২৪ ঘণ্টায় ৩২ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে এবং এ জেলায় করোনা উপসর্গ নিয়ে আরও চার জনের মৃত্যু হয়েছে।

গত ২৪ ঘণ্টায় ফরিদপুরে আরও ১০১ জনের এবং ফেনীতে নতুন করে ১৮ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। কুষ্টিয়ায় করোনায় আরও দুজনের মৃত্যু হয়েছে ও ময়মনসিংহে নতুন করে আরও ২৭ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। চাঁদপুরে গত ২৪ ঘণ্টায় ৩২ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে এবং এ জেলায় করোনা উপসর্গ নিয়ে আরও চার জনের মৃত্যু হয়েছে।

আজ বুধবার দ্য ডেইলি স্টারের স্থানীয় সংবাদদাতারা এ তথ্য জানান।

ফরিদপুরে আরও ১০১ জনের করোনা শনাক্ত

ফরিদপুরের জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও পৌরসভার মেয়রসহ আরও ১০১ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে ফরিদপুরে করোনাভাইরাস শনাক্তের সংখ্যা দাঁড়ালো ১ হাজার ৪০৭ জন।

ফরিদপুরের সিভিল সার্জন মো. ছিদ্দীকুর রহমান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

ফরিদপুরের জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান লোকমান হোসেন মৃধার জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। গত সোমবার ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নমুনা দিয়েছিলেন। তিনি বর্তমানে ফরিদপুর করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন।

লোকমান হোসেন মৃধার পিএস রেজাউল করিম বলেন, ‘গত রোববার লোকমান মৃধা শ্বাসকষ্ট অনুভব করলে তাকে সোমবার ভোরে ফরিদপুর ডায়াবেটিক হাসপাতালে নেওয়া হয়। চিকিৎসকদের পরামর্শ অনুযায়ী তাকে করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। বর্তমানে তিনি ওই হাসপাতালে এক কেবিনে চিকিৎসাধীন আছেন।’

এ ছাড়াও ফরিদপুরে নতুন শনাক্তের মধ্যে ১১ জন পুলিশ সদস্য, ২ জন র‌্যাব সদস্য, একজন চিকিৎসক ও একজন ওষুধ কোম্পানির বিক্রয় প্রতিনিধি আছেন।

ফরিদপুরে নতুন করে যে ১০১ জনের করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে তাদের মধ্যে ফরিদপুর সদরে ৫৫ জন, ভাঙ্গায় ২৫ জন, নগরকান্দা ১২ জন, বোয়ালমারীতে সাত জন, মধুখালী ও সালথায় একজন করে আছেন।

ফরিদপুরের সিভিল সার্জন মো. ছিদ্দীকুর রহমান বলেন, ‘আক্রান্তদের আপাতত বাড়িতে রেখে চিকিৎসা দেওয়া হবে। তবে, শারীরিক পরিস্থিতির অবনতি হলে তাদের ফরিদপুরের করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতালে স্থনান্তর করা হবে।’

ময়মনসিংহে আরও ২৭ জনের করোনা শনাক্ত

ময়মনসিংহ জেলায় গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ২৭ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। নতুন শনাক্তদের মধ্যে ময়মনসিংহ সিটি করপোরেশনসহ সদর উপজেলায় ১৭ জন, ভালুকায় ছয় জন, ঈশ্বরগঞ্জে দুই জন, তারাকান্দায় একজন ও নান্দাইলে একজন।

ময়মনসিংহের সিভিল সার্জন ডা. এবিএম মশিউল আলম এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

এ নিয়ে জেলায় করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১ হাজার ৪৯৮ জন।

ফেনীতে ইউএনওসহ নতুন আক্রান্ত ১৮ জন

ফেনীতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ও তার স্ত্রী, চিকিৎসক ও পুলিশ সদস্যসহ নতুন করে আরও ১৮ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে জেলায় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়ালো ৬৭১ জনে। এরমধ্যে ১৪ জন মারা গেছেন। সুস্থ হয়েছেন ১৯৩ জন।

বর্তমানে করোনা আক্রান্ত ৪০ জন ফেনী জেনারেল হাসপাতাল ও দাগনভূঁঞা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আইসোলেশন ওয়ার্ডে ভর্তি আছেন। অন্যরা স্বাস্থ্য বিভাগের অধীনে হোম আইসোলেশনে থেকে চিকিৎসা নিচ্ছেন।

ফেনীর ভারপ্রাপ্ত সিভিল এসএম মাসুদ রানা গতকাল আজ দুপুরে এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

নতুন আক্রান্ত ১৮ জনের মধ্যে ফেনী সদর উপজেলার এক চিকিৎসক, এক পুলিশ সদস্যসহ আট জন, দাগনভূঁঞা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) রবিউল হাসান ও তার স্ত্রীসহ পাঁচ জন, সোনাগাজী উপজেলায় একজন, ছাগলনাইয়া উপজেলায় একজন এবং চট্টগ্রামের জোরারগঞ্জ থানার দুই জন আছেন।

কুষ্টিয়ার করোনা আক্রান্ত দুজনের মৃত্যু

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে কুষ্টিয়ার আরও দুজনের মৃত্যু হয়েছে। এদের মধ্যে একজন মারা গেছেন খুলনায়। অন্যজন কুষ্টিয়ায় নিজ বাড়িতে। দুজনেই করোনা পজিটিভ ছিলেন এবং চিকিৎসাধীন ছিলেন।

জেলা সিভিল সার্জন এইচ এম আনোয়ারুল ইসলাম দ্য ডেইলি স্টারকে এ তথ্য জানান।

তিনি বলেন, ‘একজন খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে গতকাল রাত সাড়ে ১২টায় মারা যান। অন্যজন নিজের বাড়িতে আজ ভোরে মারা যান। খুলনায় মারা যাওয়া ব্যক্তির গত সোমবার করোনা শনাক্ত হয়। তাকে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালের আইসোলেশন ওয়ার্ডে রেখে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছিল। গতকাল বিকেলে তার অবস্থার অবনতি হলে দ্রুত খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে তার মৃত্যু হয়। নিজ বাড়িতে মারা যাওয়া ব্যক্তির করোনা শনাক্ত হয় গত ১৩ জুন। তাকে নিজ বাড়িতে রেখে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছিল।’

নিজ বাড়িতে মারা যাওয়া ব্যক্তির ছেলে বলেন, ‘বাবা আলাদা ঘরে থাকতেন। তিনি সব সময় ঘরের দরজা বন্ধ করে রাখতেন। গতকাল রাত তিনটার দিকে তিনি সর্বশেষ কথা বলেন। ভোরে তাকে মৃত পাওয়া যায়।’

চাঁদপুরে নতুন করে ৩২ জনের করোনা শনাক্ত ও করোনা উপসর্গ নিয়ে ৪ জনের মৃত্যু

চাঁদপুরে নতুন করে আরও ৩২ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এদের মধ্যে দুইজন আগেই উপসর্গ নিয়ে মারা গেছেন। আজ দুপুরে জেলা সিভিল সার্জন ডা.মো.সাখাওয়াত উল্লাহ এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

সিভিল সার্জন বলেন, ‘চাঁদপুরে নতুন করে ৭৭ জনের করোনা নমুনার রিপোর্ট আসে। তারমধ্যে পজিটিভ নতুন ৩২ জন। উপজেলার ভিত্তিক চাঁদপুরে ১৩ জন, শাহরাস্তিতে ১৭ জন ও হাইমচরে দুই জন আছেন। এ নিয়ে জেলায় করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে ৬৫২জনের। করোনা আক্রান্তে মারা যান নতুন দুই জনসহ ৪৯ জন।’

এ জেলায় গত ২৪ ঘণ্টায় করোনার উপসর্গ নিয়ে চার জনের মৃত্যু হয়েছে। আজ সকাল ৯টায় কচুয়া উপজেলায় এক জন মারা গেছেন। তার বাড়ি বরিশাল জেলার মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলায়। তিনি কচুয়ায় একটি ওষুধ কোম্পানির রিপ্রেজেন্টেটিভ ছিলেন। কচুয়া উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মো. সালাউদ্দিন মাহমুদ এটি নিশ্চিত করেন।

করোনা উপসর্গ জ্বর ও শ্বাসকষ্ট নিয়ে আজ ভোর ৪টায় মতলব দক্ষিণ ও মতলব উত্তর উপজেলার হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা মারা গেছেন। চাঁদপুর শহরের মমিনপাড়ায় বসবাসরত তার পরিবারের লোকজন এটি নিশ্চিত করেন।

তার পরিবার জানায়, তিনি গত ১০ দিন ধরে জ্বর, সর্দি ও শ্বাসকষ্টে ভুগছিলেন। গত ১৭ জুন বুধবার মতলব উত্তর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে তার করোনা নমুনা পরীক্ষার জন্য দিয়ে আসি। কিন্তু, গত এক সপ্তাহেও তার নমুনা পরীক্ষার রিপোর্ট আসেনি।’

এছাড়াও, করোনার উপসর্গ নিয়ে মতলব দক্ষিণের ডিঙ্গাভাঙা গ্রামের একই বাড়ির দুজন মারা গেছেন।

Comments

The Daily Star  | English
Road crash deaths during Eid rush 21.1% lower than last year

Road Safety: Maladies every step of the way

The entire road transport sector has long been riddled with multifaceted problems, which are worsening every day amid apathy from the authorities responsible for ensuring road safety.

2h ago