করোনাভাইরাস

দেশে মৃত্যু ২ হাজার ছাড়াল, নতুন শনাক্ত ২৭৩৮

গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন আরও ৫৫ জন। এখন পর্যন্ত মারা গেছেন দুই হাজার ৫২ জন। একই সময়ে ১৩ হাজার ৯৮৮টি নমুনা পরীক্ষা করে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত আরও দুই হাজার ৭৩৮ জনকে শনাক্ত করা হয়েছে। এ নিয়ে শনাক্ত রোগীর সংখ্যা বেড়ে এক লাখ ৬২ হাজার ৪১৭ জনে দাঁড়াল।
Coronavirus_New_Logo.jpg
ছবি: সংগৃহীত

গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন আরও ৫৫ জন। এখন পর্যন্ত মারা গেছেন দুই হাজার ৫২ জন। একই সময়ে ১৩ হাজার ৯৮৮টি নমুনা পরীক্ষা করে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত আরও দুই হাজার ৭৩৮ জনকে শনাক্ত করা হয়েছে। এ নিয়ে শনাক্ত রোগীর সংখ্যা বেড়ে এক লাখ ৬২ হাজার ৪১৭ জনে দাঁড়াল।

আজ রোববার দুপুর আড়াইটার দিকে করোনা পরিস্থিতি নিয়ে অনলাইনে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের দৈনন্দিন স্বাস্থ্য বুলেটিনে এ তথ্য জানিয়েছেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা।

তিনি জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় দুই হাজার ৭৩৮ জন শনাক্ত হয়েছেন। এ পর্যন্ত শনাক্ত হয়েছেন এক লাখ ৬২ হাজার ৪১৭ জন। মারা গেছেন আরও ৫৫ জন। তাদের মধ্যে ৩৭ জন পুরুষ ও ১৮ জন নারী। বয়সভিত্তিক বিশ্লেষণে তাদের মধ্যে একজনের বয়স ০-১০ বছরের মধ্যে, তিন জনের বয়স ৩১-৪০ বছরের মধ্যে, ১৭ জনের বয়স ৪১-৫০ বছরের মধ্যে, ১৩ জনের বয়স ৫১-৬০ বছরের মধ্যে, নয় জনের বয়স ৬১-৭০ বছরের মধ্যে ও ১২ জনের বয়স ৭১-৮০ বছরের মধ্যে। দেশে এখন পর্যন্ত করোনায় মৃত্যুবরণ করেছেন দুই হাজার ৫২ জন।

তিনি আরও জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন আরও এক হাজার ৯০৪ জন। এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ৭২ হাজার ৬২৫ জন। সব মিলিয়ে এ পর্যন্ত আট লাখ ৪৬ হাজার ৬২টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে।

স্বাস্থ্য বুলেটিনে জানানো হয়, ২৪ ঘণ্টায় পরীক্ষা বিবেচনায় শনাক্তের হার ১৯ দশমিক ৫৭ শতাংশ, মোট শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৪৪ দশমিক ৭২ শতাংশ এবং মৃত্যুর হার এক দশমিক ২৬ শতাংশ।

উল্লেখ্য, গত ৮ মার্চ দেশে প্রথম করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয় বলে জানায় সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান (আইইডিসিআর)। আর ১৮ মার্চ প্রথম একজনের মৃত্যুর সংবাদ জানানো হয়।

Comments

The Daily Star  | English

Personal data up for sale online!

Some government employees are selling citizens’ NID card and phone call details through hundreds of Facebook, Telegram, and WhatsApp groups, the National Telecommunication Monitoring Centre has found.

7h ago