ব্যালন ডি'অর দেওয়া হবে না এ বছর

বিশ্বব্যাপী মহামারি করোনাভাইরাসের কারণে উলটপালট ফুটবল অঙ্গন। ব্যাপক পরিবর্তন ঘটে গেছে প্রায় সব কিছুতেই। এবার চলতি বছরের বর্ষসেরা ফুটবলারের পুরস্কার ব্যালন ডি’অর না দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ফরাসি সাময়িকী ‘ফ্রান্স ফুটবল।’ সোমবার নিজেদের ওয়েবসাইটে এক বিবৃতি দিয়ে সিদ্ধান্তটি জানিয়েছে ফ্রান্স ফুটবল কর্তৃপক্ষ।
lionel messi ballon d'or
ছবি: এএফপি

বিশ্বব্যাপী মহামারি করোনাভাইরাসের কারণে উলটপালট ফুটবল অঙ্গন। ব্যাপক পরিবর্তন ঘটে গেছে প্রায় সব কিছুতেই। এবার চলতি বছরের বর্ষসেরা ফুটবলারের পুরস্কার ব্যালন ডি’অর না দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ফরাসি সাময়িকী ‘ফ্রান্স ফুটবল।’ সোমবার নিজেদের ওয়েবসাইটে এক বিবৃতি দিয়ে সিদ্ধান্তটি জানিয়েছে ফ্রান্স ফুটবল কর্তৃপক্ষ।

বিবৃতিতে ব্যালন ডি'অর বাতিলের কারণ ব্যাখ্যা করে ফ্রান্স ফুটবলের এডিটর প্যাসকেল ফারস বলেন, 'মৌসুম শুরু হয়েছিল নির্দিষ্ট কিছু নিয়মাবলীর মধ্য দিয়ে। আর শেষ হলো ভিন্ন নিয়মে। জানুয়ারি-ফেব্রুয়ারিতে দর্শকভর্তি গ্যালারিতে খেলা হয়েছে। মে থেকে স্টেডিয়াম ছিল খালি। এরপর ৩ বদলি খেলোয়াড়ের স্থলে ৫ জনের নিয়ম করা হলো। এছাড়া চ্যাম্পিয়ন্স লিগের সংস্করণেও বদলে গেছে। দুই লেগের জায়গায় কোয়ার্টার ফাইনাল ও সেমিফাইনালে খেলা হবে এক লেগ।'

ব্যক্তিগত পুরস্কারে হিসেবে সবচেয়ে বড় অর্জন বিবেচনা করা হয় ব্যালন ডি’অরকে। ১৯৫৬ সাল থেকে চালু হওয়ার পর ৬৪ বছরের ইতিহাসে এবারই প্রথম কারও হাতে উঠছে না এ পুরষ্কার। ফলে রেকর্ড ছয় বারের বিজয়ী লিওনেল মেসির হাতে আরও এক বছর থাকছে এ পুরষ্কারটি। গত বছর রিয়াল মাদ্রিদের ক্রোয়েশিয়ান তারকা লুকা মদ্রিচের হাত থেকে ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো ও ভার্জিল ভ্যান ডাইককে হারিয়ে মর্যাদার পুরস্কারটি জিতেছিলেন এ আর্জেন্টাইন।

প্রতি মৌসুমের পারফরম্যান্স বিবেচনায় নিয়ে সংক্ষিপ্ত তালিকা করার পর ভোটিং প্রক্রিয়া প্রতি বছর এ পুরষ্কার দেওয়া হয়। করোনাভাইরাসের কারণে এ মৌসুমে দেশের খেলা শেষ করা যায়নি। খোদ ফ্রান্সেই লিগ বাতিল হয়েছে মাঝ পথে। এছাড়া বিরতি শেষে শুরু হলেও টানা সূচির কারণে ফিটনেস নিয়ে ভুগতে হয়েছে খেলোয়াড়দের। যে কারণে অনেকেই সেরাটা দিতে পারেননি।

এরমধ্যেই অবশ্য চলতি মৌসুমে কে হবেন ব্যালন ডি'অর জয়ী এ নিয়ে নানা আলোচনা শুরু হয়ে গিয়েছিল। বিশেষ করে লিওনেল মেসির সপ্তম না ক্রিস্তিয়ানো রোনালদোর মেসিকে ছুঁয়ে ফেলা নিয়ে আলোচনা বেশি। আলোচনায় ছিলেন বায়ার্ন মিউনিখের পোলিশ তারকা রবার্ত লেভানডভস্কি। অনেকেই ভেবেছিলেন ক্যারিয়ারের প্রথম ব্যালন ডি'অরটি হয়তো এ তারকা এবারই পাবেন। তবে সব আলোচনায় জল ঢেলে দিয়েছে ফ্রান্স ফুটবল।

Comments

The Daily Star  | English

Don't pay anyone for visas, or work permits: Italian envoy

Italian Ambassador to Bangladesh Antonio Alessandro has advised visa-seekers not to pay anyone for visas, emphasising that the embassy only charges small taxes and processing fees

41m ago