ফ্রান্স থেকে রাফাল এলো ভারতে

ভারতের মাটিতে অবতরণ করল ফ্রান্সের তৈরি পাঁচটি অত্যাধুনিক রাফাল ফাইটার জেট। আজ বিকেলে হরিয়ানার অম্বালা বিমান ঘাঁটিতে রাফালগুলো অবতরণ করে।
রাফাল ফাইটার জেট। ছবি: রয়টার্স

ভারতের মাটিতে অবতরণ করল ফ্রান্সের তৈরি পাঁচটি অত্যাধুনিক রাফাল ফাইটার জেট। আজ বিকেলে হরিয়ানার অম্বালা বিমান ঘাঁটিতে রাফালগুলো অবতরণ করে।

রাফাল ফাইটার জেটগুলো প্রায় সাত হাজার কিলোমিটার পথ পাড়ি দিয়ে ভারতে পৌঁছেছে। ভারতীয় আকাশে প্রবেশের পর দুদিক থেকে দুটি সুখোই ৩০ এমকেআই সেগুলোকে পাহারা দিয়ে ঘাঁটিতে অবতরণ করে।

এক সিটের তিনটি ও দুই সিটের দুটি যুদ্ধবিমানের এই বহর ভারতীয় বিমান বাহিনীর ১৭ নম্বরের স্কোয়াড্রনে যুক্ত হবে বলে জানা গেছে।

বুধবার, ভারতীয় বিমান বাহিনী একটি ছবি টুইটে প্রকাশ করে জানায়, ‘গৃহে স্বাগতম গোল্ডেন অ্যারোস’।

ভারতের প্রতিরক্ষা মন্ত্রী রাজনাথ সিং টুইটে জানান, ‘পাখি’রা নিরাপদে আম্বালায় অবতরণ করেছে। তিনি বলেন, ‘রাফাল যুদ্ধবিমান মাটি স্পর্শ করার সঙ্গে সঙ্গেই ভারতের সামরিক ইতিহাসে নতুন যুগের সূচনা হলো। বহুমুখী ক্ষমতাসম্পন্ন এই উড়োজাহাজগুলো বিমানবাহিনীর শক্তিতে বৈপ্লবিক পরিবর্তন ঘটাবে।’

গত সোমবার ফ্রান্স থেকে ওই পাঁচ যুদ্ধবিমান ভারতের উদ্দেশে রওনা দেয়। যাত্রাপথে এগুলো সংযুক্ত আরব আমিরাতের আল ডাফরায় ফরাসি বিমান ঘাঁটিতে থামার পর আজ ভারতীয় আকাশ সীমায় প্রবেশ করে।        

রাফালের নিরাপদে অবতরণের জন্য আম্বালা বিমান ঘাঁটি নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তায় মুড়ে ফেলা হয়। ঘাঁটি সংলগ্ন এলাকাগুলোতে ১৪৪ ধারা জারি করে এক সঙ্গে চার জনের বেশি জমায়েত নিষিদ্ধ করা হয়। এছাড়াও গ্রামবাসীদের বাড়ির ছাদে উঠতে নিষেধাজ্ঞার পাশাপাশি ড্রোন ওড়ানো, ছবি তোলা, ভিডিও না করার নির্দেশ দেওয়া হয়।

২০০৭ সালে ইউপিএ সরকারের আমলে ফ্রান্সের দাসোঁ এভিয়েশনের কাছ থেকে ১২৬টি রাফাল যুদ্ধবিমান কেনার চুক্তি করে ভারত। রাফালকে বলা হয় ‘ফোর পয়েন্ট ফাইভ জেনারেশন’ ফাইটার এয়ারক্রাফট।

২০১৬ সালের ২৩ সেপ্টেম্বর নরেন্দ্র মোদির ক্ষমতায় আসার পর নতুন এক চুক্তিতে ফ্রান্সের কাছ থেকে ৩৬টি রাফাল কেনার সিদ্ধান্ত হয়। ৫৯ হাজার কোটি টাকায় ওই চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছিল।

এনডিটিভি জানায়, সমরাস্ত্রে ঠাসা রাফাল জেটগুলো ১৫০ কিলোমিটার দূর পর্যন্ত লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত করতে পারবে। অত্যাধুনিক মিসাইল যুক্ত রাফাল ১০০ কিলোমিটার জায়গার মধ্যে ৪৫টি নিশানায় এক সঙ্গে আঘাত হানতে পারে। যুদ্ধবিমানগুলো আকাশ থেকে আকাশে এবং আকাশ থেকে মাটিতে শত্রুর লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত করতে সক্ষম।

রাশিয়ার তৈরি সুখোই ফাইটার কেনার ২৩ বছর পরে ভারতীয় বিমান বাহিনীতে পাশ্চাত্যের যুদ্ধ বিমান যুক্ত হলো। বিশ্লেষকরা মনে করছেন, চীন ও পাকিস্তানের সঙ্গে উত্তেজনার মধ্যে এই যুদ্ধবিমানগুলো ভারতের বিমান বাহিনীর শক্তি বাড়াবে।

Comments

The Daily Star  | English

Personal data up for sale online!

Some government employees are selling citizens’ NID card and phone call details through hundreds of Facebook, Telegram, and WhatsApp groups, the National Telecommunication Monitoring Centre has found.

7h ago