অনুমতি ছাড়া সরকারি কর্মচারীরা গণমাধ্যমে কথা বলতে বা লিখতে পারবে না

বিভাগীয় প্রধানের পূর্বানুমোদন ছাড়া সরকারি কর্মচারীদের গণমাধ্যমের সঙ্গে কথা যাবে না। একই সঙ্গে অনুমতি ছাড়া গণমাধ্যমে তারা কোনো লেখা প্রকাশ করতে পারবেন না।

বিভাগীয় প্রধানের পূর্বানুমোদন ছাড়া সরকারি কর্মচারীদের গণমাধ্যমের সঙ্গে কথা যাবে না। একই সঙ্গে অনুমতি ছাড়া গণমাধ্যমে তারা কোনো লেখা প্রকাশ করতে পারবেন না।

আজ সোমবার এ বিষয়ে জনপ্রশাশন মন্ত্রণালয়ের সচিব শেখ ইউসুফ হারুন দ্য ডেইলি স্টারকে বলেন, ‘আমরা যদি আমাদের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের তাদের আচরণবিধির বিষয়টি নতুন করে স্মরণ করিয়ে দিই তাহলে সমস্যা কোথায়?’

নতুন করে কোনো প্রেক্ষাপট তৈরি হয়েছে কিনা?— ‘যাদের কথা বলার নয় তাদের অনেকেই গণমাধ্যমে বক্তব্য দিচ্ছেন। তাই নতুন করে এই চিঠি দেওয়া হয়েছে।’

গত ১৮ আগস্ট জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের এক চিঠিতে বলা হয়, ‘সরকারি কর্মচারী (আচরণ) বিধিমালা, ১৯৭৯ এর বিধি ২২ এর ব্যত্যয় ঘটিয়ে কোনো কোনো সরকারি কর্মচারী বিভাগীয় প্রধানের পূর্বানুমোদন ছাড়া কিংবা প্রকৃত দায়িত্ব পালনের ক্ষেত্র ছাড়া বিভিন্ন বিষয়ে গণমাধ্যম যথা— বেতার, বাংলাদেশ টেলিভিশন, বিভিন্ন বেসরকারি চ্যানেলের সংবাদ, টকশো, আলোচনা অনুষ্ঠান, পত্র-পত্রিকা বা অনলাইন মাধ্যমে বক্তব্য বা মতামত বা নিবন্ধ বা পত্র প্রকাশ করছেন। সরকারের নীতি-নির্ধারণী অনেক বিষয়ে তারা বক্তব্য বা মতামত দিচ্ছেন।

এমন অবস্থায় সরকারি কর্মচারী (আচরণ) বিধিমালা, ১৯৭৯ এর বিধি ২২ অনুসরণ করার অনুরোধ করা হয়েছে।

Comments

The Daily Star  | English

Hiring begins with bribery

UN independent experts say Bangladeshi workers pay up to 8 times for migration alone due to corruption of Malaysia ministries, Bangladesh mission and syndicates

1h ago