মেসিকে বার্সায় রাখতে পদত্যাগ করবেন বার্তোমেউ?

শুরুতে অটল থাকলেও বার্তোমেউ নাকি এবার নতি স্বীকার করতে যাচ্ছেন।
josep maria bartomeu
ছবি: এএফপি

লিওনেল মেসির বার্সেলোনা ছেড়ে চলে যেতে চাওয়ার কারণ হিসেবে অনেকে অনেক কারণ দাঁড় করাচ্ছেন। দোষারোপ করা হচ্ছে ক্লাবটির বর্তমান কর্মকর্তাদের। আর অভিযোগের তীর সবচেয়ে বেশি ছোঁড়া হচ্ছে সভাপতি জোসেপ মারিয়া বার্তোমেউয়ের দিকে। তার পদত্যাগ দাবি করে ন্যু ক্যাম্পের বাইরে বিক্ষোভও করছেন ভক্ত-সমর্থকরা।

তবে শুরুতে অটল থাকলেও বার্তোমেউ নাকি এবার নতি স্বীকার করতে যাচ্ছেন। কাতালান চ্যানেল ‘টিভিথ্রি’র দাবি এমনটাই।

বৃহস্পতিবার গণমাধ্যমটি জানিয়েছে, আর্জেন্টাইন অধিনায়ক মেসির সঙ্গে বার্সেলোনার সম্পর্ক যেন আগামীতেও বজায় থাকে সেজন্য ক্লাবটির সভাপতির পদ ছেড়ে দিতে রাজি আছেন বার্তোমেউ। তবে একটা শর্ত জুড়ে দিয়েছেন তিনি।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, যদি মেসি প্রকাশ্যে বলেন যে, বার্সায় তার থাকার ক্ষেত্রে মূল সমস্যা হলেন ক্লাবটির সভাপতি, তবে বার্তোমেউ দায়িত্ব থেকে সরে যেতে সম্মত হবেন।

সেখানে আরও বলা হয়েছে, উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগের কোয়ার্টার ফাইনালে বায়ার্ন মিউনিখের কাছে বিপর্যয়ের পর সভাপতি পদ ছাড়তে রাজি ছিলেন না বার্তোমেউ। এমনকি মেসি বুরোফ্যাক্সের মাধ্যমে বার্সার কাছে ক্লাব ছাড়তে চাওয়ার কথা জানালেও গদি আঁকড়ে রাখতে চেয়েছিলেন তিনি।

কিন্তু আর্জেন্টাইন তারকা মেসির মন বদলের কোনো আভাস পাওয়া যাচ্ছে না। তার সম্ভাব্য নতুন ঠিকানা নিয়েই ফুটবল অঙ্গনে চলছে তোলপাড়। ‘টিভিথ্রি’র দাবি, এমন পরিস্থিতিতে মেসিকে ন্যু ক্যাম্পে ধরে রাখতে শর্তসাপেক্ষে নিজের সিদ্ধান্ত পাল্টানোর কথা বলেছেন বার্সার ইতিহাসের অন্যতম বিতর্কিত সভাপতি বার্তোমেউ।

গেল মঙ্গলবার ক্লাব ছাড়ার আগ্রহ প্রকাশ করার পর এখন পর্যন্ত প্রকাশ্যে কোনো বক্তব্য দেননি ৩৩ বছর বয়সী মেসি। আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমের খবর, সংবাদ সম্মেলন ডেকে রেকর্ড ছয়বারের ব্যালন ডি’অর জয়ী ফরোয়ার্ড শিগগিরই নীরবতা ভেঙে তার এই সিদ্ধান্তের কারণ ব্যাখ্যা করবেন।

স্প্যানিশ গণমাধ্যম মার্কা তাদের প্রতিবেদনে বলেছে, মেসির ক্লাব ছাড়ার সিদ্ধান্ত ‘অপরিবর্তনীয়’ এবং বার্তোমেউয়ের সঙ্গে দেখা করার কোনো ইচ্ছা নেই তার।

সূত্র: স্পোর্ত

Comments

The Daily Star  | English

5.5 magnitude earthquake jolts Dhaka, Ctg, Sylhet

A magnitude 5.5 earthquake jolted Dhaka, Sylhet, Chattogram and some other parts of the country this evening.

1h ago