কোথায় হারিয়ে গেলেন ইলিয়াস আলীরা?

বিএনপির সাবেক সংসদ সদস্য এম ইলিয়াস আলীসহ অন্যান্য গুম বা নিখোঁজের ঘটনাগুলোর প্রায় কোনোটিরই কূল-কিনারা হয়নি।মানুষগুলোকে তুলে নেওয়া হলো বা আটক করা হলো বা রহস্যজনকভাবে নিখোঁজ হলেন,হারিয়ে গেলেন-আর সন্ধান মিলল না।
ilias ali
এম ইলিয়াস আলী। ছবি: সংগৃহীত

বিএনপির সাবেক সংসদ সদস্য এম ইলিয়াস আলীসহ অন্যান্য  গুম বা নিখোঁজের ঘটনাগুলোর প্রায় কোনোটিরই কূল-কিনারা হয়নি।মানুষগুলোকে তুলে নেওয়া হলো বা আটক করা হলো বা রহস্যজনকভাবে নিখোঁজ হলেন,হারিয়ে গেলেন-আর সন্ধান মিলল না।

রাজধানীর বনানী থেকে ২০১২ সালের ১৭ এপ্রিল রাতে ব্যক্তিগত গাড়ির চালকসহ নিখোঁজ হন ইলিয়াস আলী। তার স্ত্রী তাহমিনা রুশদীর লুনা এর দুই দিন পর হাইকোর্টে রিট আবেদন করেন।

তাহমিনার অভিযোগ, আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা অবৈধভাবে তার স্বামীকে আটক করেছিল। তার দলের নেতারাও একই অভিযোগ করছেন।

ইলিয়াসকে আদালতে হাজির করতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর প্রতি হাইকোর্টের নির্দেশ চেয়েছিলেন তাহমিনা।

তার রিট আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে হাইকোর্ট আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কাছে ১০ দিনের মধ্যে ব্যাখ্যা চেয়ে রুল জারি করে বলেছিলেন, ইলিয়াস আলীকে অবৈধভাবে আটক করা হয়নি এই মর্মে সন্তুষ্ঠ হওয়ার জন্যে কেন তাকে আদালতে হাজির করার নির্দেশ দেওয়া হবে না।

যা হোক, আট বছর পেরিয়ে গেছে। আবেদনকারী বা সরকার রিট আবেদনের শুনানির বিষয়ে কোনো উদ্যোগ না নেওয়ায় রুলের শুনানি আজও হয়নি।

ফলে, এই বিষয়টি অমীমাংসিত রয়ে গেছে। এর ওপর কোনো রায় দেওয়া হয়নি।

২০১২ সালের ১৯ এপ্রিল রুল জারির পর মে মাসে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পাঁচটি সংস্থা হাইকোর্টে পৃথক পৃথক প্রতিবেদন জমা দেয়।

এটর্নি জেনারেলের কার্যালয় দ্য ডেইলি স্টারকে জানিয়েছে, সংস্থাগুলো নিজ নিজ প্রতিবেদনে দাবি করেছে, বিএনপি নেতা ইলিয়াস আলী তাদের হাতে আটক নেই। তারা তাকে ‘তুলে নিয়ে আসেনি বা আটক করেনি’।

পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি), র‌্যাব, সিআইডি, বিশেষ শাখা (এসবি) ও বনানী থানার প্রতিবেদনে দাবি করা হয়, ইলিয়াস আলীর খোঁজ পেতে তারা সব ধরনের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

গুমের ঘটনায় সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে হাইকোর্টের নির্দেশনা চেয়ে ইলিয়াস আলীর মামলার পর আরও অনেক মামলা করা হয়েছে। কিন্তু, সেগুলোর সুরাহা চেয়ে আদালত থেকে কোনো নির্দেশ আসেনি।

ইলিয়াস আলীর স্ত্রী তাহমিনার আইনজীবী এএম মাহবুব উদ্দিন খোকন দ্য ডেইলি স্টারকে গত বৃহস্পতিবার বলেন, ‘যেহেতু আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সংস্থাগুলো আদালতকে বলেছে যে ইলিয়াস আলী তাদের হাতে আটক নেই তাই এ বিষয়ে কোনো প্রতিকার পাওয়া যাবে না। আর সে কারণেই হাইকোর্টের রুলের ওপর শুনানির চেষ্টা করা হয়নি।’

তার মতে, ইলিয়াস আলী ও অন্য যারা নিখোঁজ রয়েছেন তাদের খুঁজে বের করা রাষ্ট্রের সাংবিধানিক দায়িত্ব।

‘কিন্তু, আইনশৃঙ্খলা বাহিনী তা গুরুত্ব দিয়ে করছে বলে মনে হয় না,’ যোগ করেন আইনজীবী খোকন।

(সংক্ষেপিত, পুরো প্রতিবেদনটি পড়তে এই Legal remedy never found লিংকে ক্লিক করুন)

Comments

The Daily Star  | English

2 MRT lines may miss deadline

The metro rail authorities are likely to miss the 2030 deadline for completing two of the six planned metro lines in Dhaka as they have not yet started carrying out feasibility studies for the two lines.

9h ago