শীর্ষ খবর

ফেনীতে মহাসড়কের পাশে পাইপলাইনে লিকেজ, বের হচ্ছে গ্যাস

ফেনীর সদর উপজেলার মহিপাল এলাকায় ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের পাশে থেকে গ্যাস বের হচ্ছে। দিয়াশলাইয়ের কাঠি জ্বালালেই আগুন ধরে যাচ্ছে। এতে আতঙ্কিত হয়ে পড়েছেন স্থানীয় বাসিন্দারা। তাদের অভিযোগ, বাখরাবাদ গ্যাস ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানির কর্মকর্তাদের বার বার অবহিত করেও এর সমাধান পাওয়া যায়নি।
স্টার অনলাইন গ্রাফিক্স

ফেনীর সদর উপজেলার মহিপাল এলাকায় ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের পাশে থেকে গ্যাস বের হচ্ছে। দিয়াশলাইয়ের কাঠি জ্বালালেই আগুন ধরে যাচ্ছে। এতে আতঙ্কিত হয়ে পড়েছেন স্থানীয় বাসিন্দারা। তাদের অভিযোগ, বাখরাবাদ গ্যাস ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানির কর্মকর্তাদের বার বার অবহিত করেও এর সমাধান পাওয়া যায়নি।

আজ শনিবার সকালে বাখরাবাদ গ্যাস ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি ফেনীর আঞ্চিলক ব্যবস্থাপক মো. সাহাবউদ্দিন ঘটনাস্থল পরিদর্শনে আসেন।

গতকাল মহিপাল এলাকায় শাহীন হোটেলের সামনে বহু মানুষের জটলা দেখা যায়। জটলা ঠেলে গিয়ে দেখা গেল রাস্তার পাশে আগুন জ্বলছে। শাহীন হোটেলের ব্যবস্থাপক আবদুল আলীম বলেন, ‘অনেক আগে থেকেই এভাবে গ্যাস বের হয়েচ্ছিল। গত কয়েক দিন হলো বেশি দেখা যাচ্ছে। বাখরাবাদ ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানিকে জানানো হলে তারা বালু ফেলে যায়। কিন্তু তাতে কোনো সমাধান হয়নি।’

মহিপাল এলাকার পরিবহন নেতা মামুন চৌধুরী গতকাল দ্য ডেইলি স্টারকে বলেন, ‘ফেনীর মহিপাল ফ্লাইওভার নির্মাণের সময় গ্যাস লাইনে লিকেজ দেখা দিয়েছে।’

মো. সাহাবউদ্দিনের বলেন, ‘এটি যেহেতেু মহাসড়কের মধ্যে, তাই সড়ক খুঁড়তে হলে সড়ক ও জনপদ বিভাগের অনুমতি এবং সহযোগিতার বিষয় রয়েছে। এ ব্যাপারে আমরা তাদের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছি। তাদের কাছ থেকে সাড়া পাওয়ার পর আমরা ব্যবস্থা নিতে পারব।’

এ বিষয়ে জানতে চাইলে সড়ক জনপদ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী আহসান উদ্দিন আহমেদ দ্য ডেইলি স্টারকে বলেন, ‘বাখরাবাদ গ্যাস ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি জানানোর পরে আমরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। ট্রাফিক ব্যবস্থা ঠিক রেখে কীভাবে বিষয়টির সমাধান করা যায় সে উদ্যোগ নেওয়া হবে।’

Comments