বাংলাদেশে ২৫ হাজার টন পেঁয়াজ রপ্তানির সিদ্ধান্ত ভারতের

ভারত থেকে বিশেষ অনুমতির মাধ্যমে বাংলাদেশে ২৫ হাজার টন পেঁয়াজ রপ্তানির সম্ভাবনা রয়েছে।

ভারত থেকে বিশেষ অনুমতির মাধ্যমে বাংলাদেশে ২৫ হাজার টন পেঁয়াজ রপ্তানির সম্ভাবনা রয়েছে।

একটি কূটনৈতিক সূত্র জানিয়েছে, আজ শনিবার এ সিদ্ধান্তের ঘোষণা আসতে পারে।

গতকাল শুক্রবার নাম প্রকাশ না করার শর্তে ভারতীয় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক কর্মকর্তা দ্য ডেইলি স্টারকে বলেন, ‘বাংলাদেশ ভারতের সবচেয়ে ঘনিষ্ঠ বন্ধু দেশ। বাংলাদেশের জন্য ভারত বিশেষ ব্যবস্থায় ২৫ হাজার টন পেঁয়াজ রপ্তানি করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।’

এই সিদ্ধান্তটি আজ থেকে কার্যকর হওয়ারও সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি।

১৪ সেপ্টেম্বর থেকে ভারত পেঁয়াজ রপ্তানি নিষিদ্ধ করার পর থেকে দেশের বাজারে দাম বাড়তে থাকে এই পণ্যটির।

কোনো পূর্ব ঘোষণা ছাড়াই ভারতের পেঁয়াজ রপ্তানি নিষিদ্ধ করার ঘটনা এটিই প্রথম না। এর আগেও এমন সিদ্ধান্তের ফলে বাংলাদেশে বেড়েছে পেঁয়াজের দাম।

গত বছর সেপ্টেম্বরের শেষের দিকেও এমন নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছিল ভারত। স্বল্প সময়ের মধ্যেই এর প্রভাব পরে দেশের পেঁয়াজ বাজারে। বাংলাদেশে পেঁয়াজের দাম ৪০ টাকা থেকে বেড়ে প্রতি কেজি ৩০০ টাকা পর্যন্ত হয়।

গত মঙ্গলবার বাংলাদেশে ভারতীয় হাইকমিশনের কাছে লেখা একটি চিঠিতে বাংলাদেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, পেঁয়াজ রপ্তানিতে এমন আচমকা নিষেধাজ্ঞা গভীর উদ্বেগের বিষয় এবং এটি প্রয়োজনীয় খাদ্য সামগ্রীর উপর বিধিনিষেধ সম্পর্কিত পূর্বে গৃহীত সিদ্ধান্তর ব্যত্যয় ঘটানো।

গতকাল ঢাকা ও চট্টগ্রাম শহরের খুচরা বিক্রেতারা পাইকারি দামের চেয়ে প্রতি কেজিতে ১০ টাকা থেকে ২০ টাকা বেশি দরে পেঁয়াজ বিক্রি করছেন।

ভোক্তারা জানান, প্রশাসনের কর্মকর্তারা ঠিকমত বাজার পর্যবেক্ষণ না করায় কিছু অসাধু ব্যবসায়ী দাম বাড়িয়ে দিয়েছেন।

আমাদের নিজস্ব প্রতিবেদক জানিয়েছেন, চট্টগ্রামের খাতুনগঞ্জের পাইকারি বাজারে ভারতীয় পেঁয়াজ কেজি প্রতি ৬০ থেকে ৭০ টাকায় বিক্রি হয়েছে। খুচরা বাজারে এটি প্রতি কেজি বিক্রি হয়েছে ৭০ থেকে ৮০ টাকা দরে।

Comments