কার্যাদেশের ৫ মাসেও শুরু হয়নি সিঙ্গাইর-সিরাজপুর সড়কের মেরামত

খানাখন্দে ভরা সিঙ্গাইর-সিরাজপুর সড়ক মেরামতে পাঁচ মাস আগে কার্যাদেশ দেওয়া হলেও সড়কটির উন্নয়ন কাজ শুরু হয়নি। কাজ শুরু করতে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল বিভাগ (এলজিইডি) থেকে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানকে বারবার পত্র দিয়েও লাভ হচ্ছে না।

খানাখন্দে ভরা সিঙ্গাইর-সিরাজপুর সড়ক মেরামতে পাঁচ মাস আগে কার্যাদেশ দেওয়া হলেও সড়কটির উন্নয়ন কাজ শুরু হয়নি। কাজ শুরু করতে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল বিভাগ (এলজিইডি) থেকে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানকে বারবার পত্র দিয়েও লাভ হচ্ছে না।

উপজেলা প্রকৌশলীর কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, জেলার দক্ষিণ অংশের সঙ্গে জেলা সদর ও সিঙ্গাইরে

যোগাযোগের একমাত্র মাধ্যম এই সড়কটি। বিভিন্ন জায়গায় বিটুমিন উঠে বড় বড় গর্ত হয়ে সড়কটি চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। গত তিন চার বছর ধরে সড়টির এই অবস্থা।

সড়কটি সংস্কারে ২০১৯ সালের নভেম্বর মাসে দরপত্র আহ্বান করা হয়। ১২ কোটি ৭০ লাখ টাকায় কাজটি পান ডলি কনস্ট্রাকশন লিমিটেড নামের একটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান। চলতি বছরের ২৪ মার্চ প্রতিষ্ঠানটিকে কার্যাদেশ দেওয়া হয়। চুক্তিপত্র অনুযায়ী ২০২১ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর কাজ শেষ হওয়ার কথা রয়েছে। কিন্তু এর মধ্যে পাঁচ মাস অতিবাহিত হলেও কাজ শুরুই করেনি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানটি।

ডলি কনস্ট্রাকশন লিমিটেডের উপ-প্রকল্প পরিচালক মো. মনোয়ার হোসেন বলেন, ‘বৈশ্বিক মহামারির কারণে সরকারি আদেশে ২৬ মার্চ থেকে ১৫ মে পর্যন্ত দেশের সব উন্নয়ন কাজ বন্ধ ছিল। এ কারণে চুক্তিপত্র অনুযায়ী যথাসময়ে সড়কটির কাজ শুরু করা সম্ভব হয়নি। ১৫ মে-র পর কাজ করার নির্দেশনা দিয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করে সরকার। এরপর প্রকল্পটি বুঝিয়ে দেওয়ার জন্য গত ২৪ জুন উপজেলা প্রকৌশল অধিদপ্তরকে চিঠি দেওয়া হয়। কিন্তু উপজেলা প্রকৌশলীর

কার্যালয় প্রকল্প এলাকা বুঝিয়ে না দেওয়ায় কাজ শুরু করা যায়নি। আজ কাজের সাইট বুঝে পেয়েছি। আগামীকাল থেকে কাজ শুরু করব।’

এ ব্যাপারে উপজেলা প্রকৌশলী মুহাম্মাদ রুবাইয়াত জামান বলেন, ‘শুরু থেকেই ডলি কনস্ট্রাকশন লিমিটেড কর্তৃপক্ষ অসৎ উদ্দেশ্যে প্রকল্পের কাজ শুরু নিয়ে টালবাহানা করছে। কাজ শুরু করার জন্য প্রতিষ্ঠানটিকে পরপর তিনবার তাগিদপত্র দেওয়া হয়েছে। তারা এর একটিরও জবাব দেয়নি। এখন পিপিআর-২০০৮ এর চুক্তির ধারা মোতাবেক চুক্তি বাতিলের জন্য ব্যবস্থা নেওয়া হবে জানিয়ে পত্র দেওয়া হয়েছে। চুক্তি ভঙ্গ করলে ওই প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে চুক্তি বাতিল করা হবে।’

Comments