নারায়ণগঞ্জে ধর্ষণ বিরোধী মিছিলে পুলিশি বাধার অভিযোগ

নারায়ণগঞ্জে ধর্ষণের ঘটনার প্রতিবাদে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের বিক্ষোভ মিছিলে পুলিশি বাধার অভিযোগ উঠেছে।
দুটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের যৌথ উদ্যোগে বিক্ষোভ মিছিল বের হলে পুলিশ তাতে বাধা দেয় বলে অভিযোগ করা হয়। ছবি: স্টার

নারায়ণগঞ্জে ধর্ষণের ঘটনার প্রতিবাদে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের বিক্ষোভ মিছিলে পুলিশি বাধার অভিযোগ উঠেছে।

আজ সোমবার দুপুরে শহরের চাষাঢ়ায় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের সামনে থেকে ‘এন্টি রেপ স্কোয়াড’ ও ‘স্মাইল’ নামে দুটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের যৌথ উদ্যোগে বিক্ষোভ মিছিল বের হলে পুলিশ তাতে বাধা দেয় বলে অভিযোগ করা হয়।

এন্টি রেপ স্কোয়াড নারায়ণগঞ্জ জেলার সমন্বয়ক শাহরিয়ার শুভ বলেন, ‘এটা অত্যন্ত দুঃখজনক যে আজ আমরা কোনো রাজনৈতিক দলের ব্যানারে নয়, কিংবা কোনো ব্যক্তি স্বার্থের ব্যানারে নয়, আমরা সামাজিক সংগঠনের ব্যানারে দাঁড়িয়েছি। আমরা রাজপথে দাঁড়িয়েছিলাম সারা দেশে ধর্ষণের যে ঘটনাগুলো ঘটছে সেই ধর্ষণের সুষ্ঠু বিচার ও আমাদের মা বোনের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার দাবিতে।’

তিনি আরও বলেন, ‘এখানে যারা আছে অধিকাংশই ছাত্র। কিন্তু, নারায়ণগঞ্জ পুলিশের ব্যবহার দুঃখজনক। আমরা সড়ক বন্ধ করিনি, যান চলাচলেও বিঘ্ন ঘটাইনি। এর পরেও তারা ছাত্রদের সঙ্গে ধাক্কাধাক্কি করেছে। তাদের এমন আচরণের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই।’

এর আগে, শহীদ মিনারের সামনে ধর্ষণের প্রতিবাদে মানববন্ধন করতে চাইলে পুলিশ তাতেও বাধা দেয়। তখন নেতাকর্মীদের সঙ্গে বাকবিতণ্ডার পর ৫ মিনিটের জন্য মানববন্ধন করার সুযোগ দেয়।

শাহরিয়ার শুভ বলেন, ‘বোন তার ভাইয়ের সঙ্গে রিকশায় যাওয়ার পথে বোনকে প্রকাশ্যে হত্যা করা হয়, স্ত্রী তার স্বামীর সঙ্গে ঘুরতে যাওয়ার পর স্বামীকে বেধে রেখে স্ত্রীকে ধর্ষণ করা হয়, মা বাবাকে ঘরে তালাবন্দি করে বাক প্রতিবন্ধী মেয়েকে ধর্ষণ করা হয়। সেখানে আমার আপনার বোনের নিরাপত্তা কোথায়?’

নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আসাদুজ্জামান দ্য ডেইলি স্টারকে বলেন, ‘তাদের কর্মসূচিতে কোনো বাধা দেওয়া হয়নি। তাদের মানববন্ধন করতে দেওয়া হয়েছে। মিছিলের জন্য তারা কোনো অনুমতি নেয়নি। সড়কে বিশৃঙ্খলা যাতে না হয় তাই তাদের সরিয়ে দেওয়া হয়েছে।’

Comments

The Daily Star  | English