পুলিশ হেফাজতে যুবকের মৃত্যু, নির্যাতনে হত্যার অভিযোগ পরিবারের

বাগেরহাটে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (পিবিআই) হেফাজতে হত্যা মামলার এক আসামির মৃত্যু হয়েছে। তার পরিবারের সদস্যদের অভিযোগ, নির্যাতনের কারণে ওই যুবকের মৃত্যু হয়েছে।
স্টার অনলাইন গ্রাফিক্স

বাগেরহাটে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (পিবিআই) হেফাজতে হত্যা মামলার এক আসামির মৃত্যু হয়েছে। তার পরিবারের সদস্যদের অভিযোগ, নির্যাতনের কারণে ওই যুবকের মৃত্যু হয়েছে।

গত বছরের ১৮ অক্টোবর বাগেরহাট সদর উপজেলার খানজাহান আলী মাজার এলাকায় তালিম মল্লিক নামে ১৮ বছর বয়সী এক যুবককে ছুরিকাঘাতে হত্যা করা হয়। সেই মামলার ১ নম্বর আসামি ছিলেন রাজা ফকির (২৫)।

তিনি বাগেরহাট সদর উপজেলার বাবু ফকিরের ছেলে। গতকাল বাবু জানতে পারেন তার ছেলে মারা গেছেন। মরদেহ হাসপাতালে আছে।

 

বাবু ফকির দ্য ডেইলি স্টারকে বলেন, ‘পটুয়াখালীতে আত্মীয়ের বাড়ি থেকে পিবিআইয়ের উপপরিদর্শক (এসআই) সাঈদ গ্রেপ্তার করে রাজাকে বাগেরহাটে নিয়ে আসেন। বাগেরহাটে আনার পথে এবং আনার পরে তিনি রাজাকে নির্যাতন করেন। এসআই যখন আমাকে ফোন করেন, তখনো আমরা আমাদের ছেলের চিৎকার শুনতে পাই।’

বাগেরহাটের সিভিল সার্জন কে এম হুমায়ুন কবির দ্য ডেইলি স্টারকে বলেন, ‘বাগেরহাট পিবিআই সদস্যরা রাজা ফকির নামে এক যুবককে দুপুর ১টা ২০ মিনিটে হাসপাতালে নিয়ে আসেন। কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে পরীক্ষা করে দেখেন তিনি মারা গেছেন। ময়নাতদন্তের পরে মৃত্যুর কারণ জানা যাবে।’

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে আজ মঙ্গলবার সকালে পিবিআই’র পুলিশ সুপার শেখ জাহিদুল ইসলাম দ্য ডেইলি স্টারকে বলেন, ‘রাজা ফকির মাদকাসক্ত ছিলেন এবং খুনের মামলার এক নম্বর আসামি ছিলেন। গ্রেপ্তারের পরে তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েন। তাকে দ্রুত হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে সেখানে তিনি মারা যান।’

Comments

The Daily Star  | English