টি-টোয়েন্টির আকর্ষণ বাড়াতে যেসব পরিবর্তন চান ওয়ার্ন

ইতিহাস সেরা এই লেগ স্পিনার আইপিএলে যুক্ত আছেন রাজস্থান রয়্যালসের সঙ্গে। এবার রাজস্থানের অনেকগুলো ম্যাচই পড়েছে শারজাহ ক্রিকেট স্টেডিয়ামে। যেখানের মাঠের আকার এসেছে আলোচনায়।
shane warne
ছবি: রাজস্থান রয়্যালস

টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট যেন বোলারদের জন্য সৎ মায়ের মতন। ব্যাটসম্যানদের তাণ্ডব ঠেকাতেই হরদম পেরেশানিতে থাকতে হয় তাদের। তবে এই খেলাটায় বোলার-ব্যাটসম্যান সবার সমান ঝলক দেখানোর পরিবেশ তৈরি করে আরও আকর্ষণীয় করার মত দিয়েছেন শেন ওয়ার্ন। অস্ট্রেলিয়ান এই স্পিন বোলিং কিংবদন্তি সেজন্য তিনটি বদল চেয়েছেন।

ইতিহাস সেরা এই লেগ স্পিনার আইপিএলে যুক্ত আছেন রাজস্থান রয়্যালসের সঙ্গে। এবার রাজস্থানের অনেকগুলো ম্যাচই পড়েছে শারজাহ ক্রিকেট স্টেডিয়ামে। যেখানের মাঠের আকার এসেছে আলোচনায়।

ছোট বাউন্ডারি আর অতি ব্যাটিং বান্ধব উইকেটে এখানে প্রতি ম্যাচেই বোলারদের উপর বইছে টর্নেডো। প্রায়ই ছক্কা গিয়ে পড়ছে স্টেডিয়াম ছাড়িয়ে পাশের রাস্তায়। দুশোর উপর রান করেও জিততে পারছে না দলগুলো।

টুইটারে ওয়ার্ন তাই সাম্যাবস্থা জারি রাখার কিছু উপায় বাতলে দিয়েছেন এভাবে,   ‘টি-টোয়েন্টির উন্নতি করতে আমি যা করতাম-

১) প্রতি মাঠের বাউন্ডারি যত বেশি সম্ভব বড় রাখা। ছোট মাঠের আউটফিল্ডে লম্বা ঘাস রাখা।

২) একজন বোলার সর্বোচ্চ ৪ নয়, ৫ ওভার বল করার সুযোগ পাবেন।

৩) উইকেট হতে হবে টেস্ট ম্যাচের চতুর্থ দিনের মতো। একদম ফ্ল্যাট হওয়া চলবে না। আমরা কেবল চার-ছক্কা দেখতে নয়। ব্যাট বলের লড়াই দেখতে চাই।

সেই টুইট আবার শেয়ার করে তার পরামর্শ সবাই পছন্দ করেন কীনা জানতে চেয়েছেন ওয়ার্ন। সেখানে মন্তব্যে সাবেক অসি ব্যাটসম্যান মার্ক ওয়াহ একমত হয়ে লেগ বাই তুলে দেওয়ারও পরামর্শ দিয়েছেন, ‘পছন্দ করলাম। একটা জিনিস ভুলে গেছ যেটা আমি বলে আসছিলাম যে লেগ বাইটাও তুলে দিতে হবে। এরকম হলে ডেড বল হওয়া উচিত। ব্যাটসম্যান একটা বল মারতে না পারলে তার জন্য পুরস্কৃত করা তো যায় না।’

 

Comments

The Daily Star  | English

Dhaka getting hotter

Dhaka is now one of the fastest-warming cities in the world, as it has seen a staggering 97 percent rise in the number of days with temperature above 35 degrees Celsius over the last three decades.

8h ago