‘রোনালদো ম্যারাডোনার মতো, গার্দিওলা বা জিদানের মতো হতে পারে পিরলো’

৭৫ বছর বয়সী লুচেস্কু ইউরোপের ক্লাব ফুটবলের ইতিহাসের অন্যতম সেরা কোচ।
mircea lucescu
ছবি: সম্পাদিত

সময়ের অন্যতম সেরা খেলোয়াড় ক্রিস্তিয়ানো রোনালদোকে কিংবদন্তি আর্জেন্টাইন ফুটবলার দিয়েগো ম্যারাডোনার সঙ্গে তুলনা করেছেন দিনামো কিয়েভের কোচ মির্চা লুচেস্কু। পাশাপাশি কিছুদিন আগে জুভেন্টাসের দায়িত্ব নেওয়া আন্দ্রেয়া পিরলো ভবিষ্যতে পেপ গার্দিওলা বা জিনেদিন জিদানের মতো সফল কোচ হতে পারেও বলে মনে করছেন তিনি।

৭৫ বছর বয়সী লুচেস্কুর পরিচয়টা একটু জানা যাক। ইউরোপের ক্লাব ফুটবলের ইতিহাসের অন্যতম সেরা কোচ এই রোমানিয়ান। দীর্ঘ ৪১ বছরের কোচিং ক্যারিয়ারের ১২টি ক্লাবের দায়িত্ব পালন করেছেন তিনি। রোমানিয়া ও তুরস্কের জাতীয় দলকে নিয়েও কাজ করেছেন।

লুচেস্কু অধিকাংশ সময় কাটিয়েছেন অবশ্য ইউক্রেনের ক্লাব শাখতার দোনেৎস্কে। দীর্ঘ এক যুগ দায়িত্বে থেকে দলটিকে একগাদা ঘরোয়া শিরোপা জেতানোর পাশাপাশি চ্যাম্পিয়ন বানিয়েছিলেন ২০০৮-০৯ মৌসুমের উয়েফা কাপেও (বর্তমানে উয়েফা ইউরোপা লিগ)।

২০১৫ সালে পঞ্চম কোচ হিসেবে উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগে একশ ম্যাচে ডাগআউটে দাঁড়ানোর কীর্তি গড়েন তিনি। তার আগে এই মাইলফলক ছিল স্যার অ্যালেক্স ফার্গুসন, কার্লো অ্যানচেলত্তি, আর্সেন ওয়েঙ্গার ও জোসে মরিনহোর।

এসবের আগে লুচেস্কুর অধীনেই ইতালিয়ান সিরি আতে অভিষেক হয়েছিল পিরলোর। ১৯৯৫ সালে ব্রেশিয়ার সিনিয়র দলের হয়ে প্রথমবারের মতো খেলতে নেমেছিলেন তিনি। ইতালির সাবেক তারকা ফুটবলার পিরলোর পরের গল্পটা সবার জানা।

সেই লুচেস্কু এখন হাল ধরেছেন ইউক্রেনেরই আরেক সফল ক্লাব কিয়েভের। চলতি মৌসুমের চ্যাম্পিয়ন্স লিগেও জায়গা করে নিয়েছে দলটি। কিন্তু তাদেরকে স্পেনের বার্সেলোনা ও ইতালির জুভেন্টাসের মতো কঠিন প্রতিপক্ষকে মোকাবিলা করতে হবে। গ্রুপ ‘জি’র অন্য দল হাঙ্গেরির ফেরেন্সভারোস।

আগামী ২০ অক্টোবর নিজেদের মাঠে রোনালদোর জুভেন্টাসের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ শুরু করবে কিয়েভ। তার আগে ইতালিয়ান গণমাধ্যম তুত্তোস্পোর্তের সঙ্গে আলাপচারিতায় পর্তুগিজ তারকাকে প্রশংসায় ভাসিয়েছেন লুচেস্কু,  ‘সে ম্যারাডোনার মতো। সে যে দলেই খেলুক না কেন, সেখানে নিজের ছাপ রেখে আসে। সিআর সেভেনের মুখোমুখি হওয়া সবসময়ই দুশ্চিন্তার। কারণ, সে গোল করতে ভালোবাসে এবং তার সংকল্পের দৃঢ়তা অনন্য।’

পিরলোকে শিগগিরই ডাগআউটে প্রতিপক্ষ হিসেবে পাবেন লুচেস্কু। তবে সাবেক শিষ্য নতুন পরিচয় পাওয়ায় ভীষণ আনন্দ লাগছে তার। শুভকামনা জানিয়ে তিনি বলেছেন, ‘আমি জানতাম যে, পিরলো কোচ হতে পারবে। একই কথা প্রযোজ্য দিয়েগো সিমিওনের ক্ষেত্রেও, যাকে আমি পিসাতে (ইতালিয়ান ক্লাব) কোচিং করিয়েছিলাম। আমি এতে আশ্চর্য হইনি যে, পিরলো জুভেন্টাসে কোচিং ক্যারিয়ার শুরু করেছে। এটা তার জন্য ঝুঁকিপূর্ণ কোনো সিদ্ধান্ত নয়। ক্লাব তাকে বেছে নিয়েছে এবং তাকে সমর্থন করবে। আমি তার জন্য খুব খুশি।’

‘সে গার্দিওলা বা জিদানের মতো হতে পারে। আন্দ্রেয়া একজন চ্যাম্পিয়ন ফুটবলার ছিল এবং সে বড় মাপের কোচ হতে পারে।’

Comments

The Daily Star  | English

Coastal villagers shifted to LPG from Sundarbans firewood

'The gas cylinder has made my life easy. The smoke and the tension of collecting firewood have gone away'

1h ago