পদ্মা সেতুর ৪৮০০ মিটার দৃশ্যমান

পদ্মা সেতুর চার ও পাঁচ নম্বর পিলারের ওপর বসানো হলো ৩২তম স্প্যান ‘ওয়ান ডি’। আর এর মাধ্যমে দৃশ্যমান হলো সেতুর ৪ হাজার ৮০০ মিটার।
পদ্মা সেতুতে ৩২তম স্প্যান বসানো হয়েছে। ছবি: স্টার

পদ্মা সেতুর চার ও পাঁচ নম্বর পিলারের ওপর বসানো হলো ৩২তম স্প্যান ‘ওয়ান ডি’। আর এর মাধ্যমে দৃশ্যমান হলো সেতুর ৪ হাজার ৮০০ মিটার।

আজ রোববার সকাল ৯টা ২৪ মিনিটের দিকে স্প্যানটি সফলভাবে বসানো সম্পন্ন হয়। দ্বিতীয় দিনের মতো চলা স্প্যান বসানোর কার্যক্রমে প্রকৌশলীদের চেষ্টায় পিলারের ওপর স্থায়ীভাবে বসানো হয় স্প্যানটি।

আজ সকাল ৭টা থেকে স্প্যান বসানোর কার্যক্রম শুরু হয়। এর আগে গতকাল সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত প্রায় ৯ ঘণ্টা চেষ্টা করেও পদ্মা নদীতে তীব্র স্রোত ও নোঙর জনিত সমস্যার কারণে স্প্যানটি পিলারের ওপর বসানো সম্ভব হয়নি।

গতকাল সকাল সাড়ে ৯টায় স্প্যান বসানোর কার্যক্রম শুরু হয়। এরপর বিকেল ৫টা পর্যন্ত চেষ্টা চলে। তীব্র স্রোতের কারণে স্প্যান বহনকারী ক্রেনটি নোঙর করতে না পারায় কার্যক্রম স্থগিতের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে পদ্মা সেতু কর্তৃপক্ষ। এরপর রাতে পিলারের কাছেই অবস্থান করছিল স্প্যানবহনকারী ক্রেনটি।

মূল সেতুর নির্বাহী প্রকৌশলী দেওয়ান আবদুল কাদের দ্য ডেইলি স্টারকে বলেন, ‘দেশি-বিদেশি প্রকৌশলীদের চেষ্টায় সফলভাবে ৩২তম স্প্যান বসানো হয়েছে। এর মাধ্যমে দৃশ্যমান হলো সেতুর ৪ হাজার ৮০০ মিটার। চলতি মাসে আরও দুইটি স্প্যান বসানোর কথা আছে। আবহাওয়াসহ সবকিছু ঠিক থাকলে তিন ও চার নম্বর এবং সাত ও আট নম্বর পিলারের ওপর দুইটি স্প্যান বসবে। আর ডিসেম্বরের মধ্যে বাকি নয়টি স্প্যান বসানোর পরিকল্পনা আছে।

জানা যায়, ১৫০ মিটার দৈর্ঘ্য ও তিন হাজার ১৪০ টন ওজনের স্প্যানকে বহন করে তিন হাজার ৬০০ টন ধারণ ক্ষমতাসম্পন্ন ‘তিয়ান-ই’ ভাসমান ক্রেনটি। এরপর ভাসমান ক্রেনটি নোঙর করে ধীরে ধীরে তোলা হয় পিলারের উচ্চতায়। এরপর রাখা হয় পিলারের বেয়ারিংয়ের ওপর।

প্রকৌশলী সূত্রে জানা যায়, সেতুতে মোট ৪১টি স্প্যান বসানো হবে। পদ্মায় বন্যার পানি কমে যাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে স্রোতের তীব্রতাও স্বাভাবিক গতিতে ফিরেছে। ফলে পদ্মা সেতুর নির্মাণকাজেও গতি ফিরেছে।

পদ্মা সেতুর সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, মূল সেতু নির্মাণের জন্য কাজ করছে চীনের ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান চায়না মেজর ব্রিজ ইঞ্জিনিয়ারিং কোম্পানি (এমবিইসি) ও নদীশাসনের কাজ করছে দেশটির আরেকটি প্রতিষ্ঠান সিনো হাইড্রো করপোরেশন। সেতু নির্মাণে প্রায়োজন হবে দুই হাজার ৯১৭টি রোডওয়ে স্ল্যাব। এ ছাড়া, দুই হাজার ৯৫৯টি রেলওয়ে স্ল্যাব বসানো হবে। ২০১৪ সালের ডিসেম্বরে পদ্মা সেতুর নির্মাণ কাজ শুরু হয়। ছয় দশমিক ১৫ কিলোমিটার দীর্ঘ এ বহুমুখী সেতুর মূল আকৃতি হবে দোতলা। কংক্রিট ও স্টিল দিয়ে নির্মিত হচ্ছে পদ্মা সেতুর কাঠামো।

Comments

The Daily Star  | English

Is Bangladesh prepared for a major earthquake?

A 5.5 magnitude earthquake on the Richter scale rattled Bangladesh on the evening of May 29, sending tremors through major cities.

4h ago