স্টেডিয়াম বটে!

পুরো মাঠ ও গ্যালারি ঝোপঝাড়ে ভরে গেছে। মাঠ প্রাঙ্গণে সৃষ্টি হয়েছে বড় বড় গর্তের। ফলে স্টেডিয়াম বা এর আশেপাশের জায়গায় প্রবেশ করা হয়ে উঠেছে বিপজ্জনক।
Rangpur Stadium
ছবি: কঙ্কণ কর্মকার

অব্যবস্থাপনার কারণে অনেক দিন ধরেই পরিত্যক্ত অবস্থায় রয়েছে রংপুর স্টেডিয়াম। ১৯৬৮ সালে ইসলামপুরের নিকটে নির্মিত এই স্টেডিয়ামটি রক্ষণাবেক্ষণ ও সংস্কারের অভাবে এখন ব্যবহারের অযোগ্য। পুরো মাঠ ও গ্যালারি ঝোপঝাড়ে ভরে গেছে। মাঠ প্রাঙ্গণে সৃষ্টি হয়েছে বড় বড় গর্তের। ফলে স্টেডিয়াম বা এর আশেপাশের জায়গায় প্রবেশ করা হয়ে উঠেছে বিপজ্জনক।

প্রায় এক বছর আগে স্টেডিয়ামটিকে আন্তর্জাতিক মানে রূপান্তরের বিষয়ে আলোচনা শুরু হয়। সিটি মেয়রের অংশগ্রহণে এ নিয়ে একটি সভা অনুষ্ঠিত হলেও পরবর্তীতে কোনো অগ্রগতি হয়নি।

Rangpur Stadium
ছবি: কঙ্কণ কর্মকার

পাঁচ বছর আগে স্টেডিয়ামের একটি অংশ পরিত্যক্ত ঘোষণা করা হয়েছিল। তবে পরে আর কোনো সংস্কার বা পুনর্নির্মাণ কাজ হয়নি। স্টেডিয়ামটি জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের মালিকানাধীন এবং অবকাঠামো পরিচালনা ও রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্বে রয়েছে জেলা ক্রীড়া সংস্থা। তবে অবস্থাদৃষ্টে মনে হচ্ছে, কেউই স্টেডিয়ামটির মালিকানা বা রক্ষণাবেক্ষণের বিষয়ে আগ্রহী নয়। অথচ যথাযথ রক্ষণাবেক্ষণ করা হলে এটি দেশের সবচেয়ে উত্তরাঞ্চলের বিভাগের ক্রীড়া কার্যক্রমের কেন্দ্রবিন্দু হতে পারত!

Rangpur Stadium
ছবি: কঙ্কণ কর্মকার

রংপুর জেলা ক্রীড়া সংস্থার (ডিএসএ) সহ-সভাপতি মনজুর আহমেদ আজাদের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ‘স্টেডিয়ামের পুরনো অংশটি পাঁচ বছর আগে পরিত্যক্ত ঘোষণা করা হয়েছিল। ওই অংশটি ভেঙে ফেলার পর নতুন কাঠামো তৈরি করা হবে।’

জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট আনোয়ারুল ইসলাম জানান, ‘স্টেডিয়ামের সামনের অংশটি ইতোমধ্যে নাজুক ঘোষণা করা হয়েছে। খুব শীঘ্রই ভেঙে ফেলার কাজ শুরু হবে। সেখানে একটি চারতলা ভবন নির্মাণের জন্য খুব শীঘ্রই টেন্ডার আহ্বান করা হবে। ইতোমধ্যে আন্তর্জাতিক স্টেডিয়াম নির্মাণের একটি প্রস্তাব অনুমোদনের জন্য সংশ্লিষ্ট বিভাগে প্রেরণ করা হয়েছে।’

Comments

The Daily Star  | English

Dhaka footpaths, a money-spinner for extortionists

On the footpath next to the General Post Office in the capital, Sohel Howlader sells children’s clothes from a small table.

7h ago