শরিফুলকে সুন্দরভাবে শেখাচ্ছেন, বোঝাচ্ছেন মোস্তাফিজ

চলমান বিসিবি প্রেসিডেন্ট’স কাপে দুজনই খেলছেন তামিম একাদশে।
shariful and fizz
ছবি: সম্পাদিত

বর্তমানে দেশের সবচেয়ে নামী পেসার মোস্তাফিজুর রহমান। আর শরিফুল ইসলামের মধ্যে রয়েছে আগামীর সেরা হওয়ার সব উপকরণ। চলমান বিসিবি প্রেসিডেন্ট’স কাপে দুজনই খেলছেন তামিম একাদশে। একসঙ্গে থাকার সুযোগের সদ্ব্যবহার করছেন তরুণ পেসার শরিফুল। সিনিয়র মোস্তাফিজের কাছ থেকে অনেক কিছু শিখে ও বুঝে নিচ্ছেন তিনি।

অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপজয়ী বাংলাদেশ দলের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ সদস্য ছিলেন শরিফুল। বোলিংয়ের পাশপাশি আসরজুড়ে আগ্রাসী মনোভাব দেখিয়ে নজর কেড়েছিলেন তিনি। তার প্রতিভা ও সামর্থ্য নিয়ে ভীষণ উচ্ছ্বসিত দেশের ক্রিকেট অঙ্গনের সংশ্লিষ্টরা। তিনি এবার পেয়েছেন নিজেকে আরও সমৃদ্ধ করার অবকাশ।

রবিবার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম হোয়াটসঅ্যাপে একটি ভিডিও বার্তায় মোস্তাফিজের মতো বাঁহাতি শরিফুল জানান, ‘তামিম ভাই আমাকে বোলিংয়ের সময় বা নেটে অনুশীলনের সময় অনেক কিছু বলেন। তারপর মোস্তাফিজ ভাই আছেন আমাদের দলে। তাকে আমি অনেক প্রশ্ন করি। তিনি সবকিছু সুন্দরভাবে শেখান, বোঝান।’

‘(মোহাম্মদ) সাইফউদ্দিন ভাইকেও জিজ্ঞাসা করি। ব্যাটসম্যানদের দুর্বলতার জায়গা সম্পর্কে জানার চেষ্টা করি। তাদের সঙ্গে সবকিছু ভাগাভাগি করে ভালো লাগছে যে, তাদের কিছু জিজ্ঞাসা করলে সঙ্গে সঙ্গে সুন্দর করে বুঝিয়ে দেন।’

প্রেসিডেন্ট’স কাপের প্রথম ম্যাচটা ভালো যায়নি শরিফুলের। পরের ম্যাচে তিনি নিয়েছেন ৪ উইকেট। ১০ ওভারের কোটা পূরণ করে মাত্র ৩৭ রান দিয়ে তিনি সাজঘরে পাঠান আফিফ হোসেন, তৌহিদ হৃদয়, নাঈম হাসান ও রিশাদ হোসেনকে।

আসরে নিজের পারফরম্যান্সের প্রসঙ্গে শরিফুল যোগ করেন, ‘অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপের পর প্রিমিয়ার লিগে একটা ম্যাচ খেলে এরপর ছয়-সাত মাস পর এখানে সরাসরি এসেছি। প্রথম দিকে ম্যাচ ফিটনেস কিংবা গেম সেন্স কাজ করছিল না। এরপর দ্বিতীয় ম্যাচে মোটামুটি খেলেছি। ভালো লাগছে যে, এতদিন পরে মাঠে ফিরেছি। মাঠ ছাড়া আসলে ভালো লাগে না।’

Comments

The Daily Star  | English

Lifts at public hospitals: Where Horror Abounds

Shipon Mia (not his real name) fears for his life throughout the hours he works as a liftman at a building of Sir Salimullah Medical College, commonly known as Mitford hospital, in the capital.

8h ago