টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট শুরুর সম্ভাব্য তারিখ ১৫ নভেম্বর

রোববার মিরপুর শেরে বাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামে প্রস্তুতিমূলক ওয়ানডে আসর প্রেসিডেন্ট’স কাপের ফাইনাল শেষে নতুন খবর দেন বোর্ড প্রধান
Nazmul Hasan Papon
ছবি: বিসিবি

পাঁচটি দলকে নিয়ে একটি টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট আয়োজন করার পরিকল্পনা করছিল বিসিবি। যা দিয়েই মূলত শুরু হবে ঘরোয়া মৌসুম।  বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান জানিয়ে দিলেন, এই টুর্নামেন্ট শুরুর সম্ভাব্য তারিখ ১৫ নভেম্বর। এই টুর্নামেন্টের জন্য সোমবারই স্পন্সর আহবান করবে বোর্ড।

রোববার মিরপুর শেরে বাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামে প্রস্তুতিমূলক ওয়ানডে আসর প্রেসিডেন্ট’স কাপের ফাইনাল শেষে নতুন খবর দেন বোর্ড প্রধান। তিনি জানান প্রেসিডেন্ট’স কাপ সফলভাবে আয়োজন করতে পারায় সামনের দিকে এগিয়ে যাওয়া সহজ হয়েছে তাদের।

শুরুতে তিন দলকে নিয়েই টুর্নামেন্ট করার একটা ভাবনা থাকলেও আরও বেশি খেলোয়াড়দের সুযোগ দিতে চায় বিসিবি,   ‘আমরা একটা টি-টোয়েন্টি করতে চাইছি। এটা ছিল তিন দলের। এখন হবে পাঁচ দলের। এখন পর্যন্ত আমাদের সিদ্ধান্ত সব স্থানীয় খেলোয়াড় নিয়ে করব। পাঁচ দল নিয়ে করায় আরও বেশ কিছু ছেলে সুযোগ পাবে। আরও ৩০ জন খেলোয়াড় বাড়তি আসবে।’

করোনাভাইরাসের কারণে জৈব সুরক্ষিত বলয় তৈরি করে খেলা চালাতে হচ্ছে। অনেক বিষয়ে থাকতে হচ্ছে বাড়তি সতর্ক। বোর্ড প্রধান জানান পাঁচ দলের জন্য আরও কঠিন চ্যালেঞ্জ নিতে তারা তৈরি,  ‘এটা চ্যালেঞ্জিং হবে। অনেকে বলেছে তিন দল করতেই ত জান শেষ। এটা কঠিন কিন্তু আমরা এই চ্যালেঞ্জটা নিতে চাইছি।’ 

‘আশা করছি ১৫ নভেম্বর এটা শুরু হবে।  কালই বিস্তারিত দিয়ে দেব। আমরা এক্সপ্রেশন অব ইন্টারেস্ট দিয়ে দেব যে এই পাঁচ দলের জন্য কারা কারা স্পন্সর হতে চায়। ওই অনুযায়ী আমরা এটা ঠিক করে ফেলব।’

দলের সংখ্যা ঠিক হলেও দল কীভাবে তৈরি হবে তা এখনো চূড়ান্ত নয়।  স্পন্সররা চাইলে হতে পারে ড্রাফট। না হলে বিসিবিই খেলোয়াড়দের ভাগ করে দিতে পারে পাঁচ দলে। এছাড়া স্পন্সরদের দল বেছে নেওয়ার প্রক্রিয়াও এখনো ঠিক করা হয়নি বলে জানান নাজমুল।। সেজন্য দুটো অপশন চিন্তা করে রাখছেন তারা, ‘দুটো অপশনের একটা হচ্ছে লটারি আরেকটা হচ্ছে ওরা যদি বলে আমি এটা চাই, আমি ওটা। যদি মিলে যায় তাহলে পাঁচজনকে পাঁচতা দিবে। নাইলে লটারিতে চলে যাব।’

Comments

The Daily Star  | English

Cow running amok in a shopping mall: It’s not a ‘moo’ point

Animals in Bangladesh are losing their homes because people are taking over their spaces.

2h ago