এসএসসি-এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের কথা বিবেচনায় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার কথা ভাবছে সরকার

এএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের প্রস্তুতির বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে পুনরায় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান চালুর বিষয়ে ভাবা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি।
শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। ছবি: ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলন থেকে নেওয়া

এএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের প্রস্তুতির বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে পুনরায় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান চালুর বিষয়ে ভাবা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি।

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ মোকাবিলায় ইতোমধ্যে ১৪ নভেম্বর পর্যন্ত সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। আজ বৃহস্পতিবার এক ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি এ সিদ্ধান্তের কথা জানান।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘আগামী বছরের এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের কথা বিবেচনা করে স্বাস্থ্যঝুঁকি এড়িয়ে এবং যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি মেনে সীমিত আকারে তাদের ক্লাসে আনা যায় কি না, খুবই সীমিত পরিসরে কিছু ক্লাস খোলা রাখা যায় কি না— তা আমরা ভাবছি। তবে আগামী দুই সপ্তাহে পরিস্থিতি অনুকূলে এলে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এভাবে খোলার চেষ্টা করবে। সব কিছু নির্ভর করছে কোভিড পরিস্থিতির ওপর। পৃথিবীর অনেক জায়গায় কোভিড প্রকোপ আরও বাড়ছে। আমাদের দেশেও আশঙ্কা আছে শীতকালে এটি বাড়তে পারে। এগুলো মাথায় রেখে আমরা এ সিদ্ধান্ত নেবো।’

২০২১ সালের ফেব্রুয়ারিতে অনুষ্ঠেয় এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় প্রায় ২০ লাখ শিক্ষার্থীর অংশ নেওয়ার কথা রয়েছে। আর এপ্রিলে অনুষ্ঠেয় এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় প্রায় ১৩ লাখ শিক্ষার্থীর অংশ নেওয়ার কথা রয়েছে।

করোনাভাইরাসের সংক্রমণের কারণে গত ১৭ মার্চ থেকে দেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো বন্ধ রয়েছে। এর আগে, এই ছুটির মেয়াদ ৩১ অক্টোবর পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছিল। যা আজ আবারও বাড়িয়ে ১৪ নভেম্বর পর্যন্ত করা হলো।

করোনা সংকটের কারণে দেশের প্রায় চার কোটি শিক্ষার্থীর শিক্ষা কার্যক্রম ব্যাহত হচ্ছে। করোনার কারণে এ বছরের এইচএসসি ও সমমান, জেএসসি ও সমমান এবং পিইসি ও সমমানের পরীক্ষা বাতিল করা হয়েছে। সরকার ঘোষণা করেছে, ষষ্ঠ থেকে দশম শ্রেণির এক কোটিরও বেশি শিক্ষার্থীকে বার্ষিক পরীক্ষা ছাড়াই পরবর্তী ক্লাসে উত্তীর্ণ করা হবে।

আরও পড়ুন:

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটি বাড়ল ১৪ নভেম্বর পর্যন্ত

Comments

The Daily Star  | English

Mangoes and litchis taking a hit from the heat

It’s painful for Tajul Islam to see what has happened to his beloved mango orchard in Rajshahi city’s Borobongram Namopara.

14h ago