‘এরে দিয়ে বাকি সাংবাদিকদের একটা শিক্ষা দিতে হবে’

‘এরে মারা যাবে না, বাট এরে দিয়ে বাকি সাংবাদিকদের একটা শিক্ষা দিতে হবে’, এভাবে অপহরণকারীদের কথা বলতে শুনেছেন অপহৃত সাংবাদিক গোলাম সরওয়ার।
গোলাম সরওয়ার। ছবি: সংগৃহীত

‘এরে মারা যাবে না, বাট এরে দিয়ে বাকি সাংবাদিকদের একটা শিক্ষা দিতে হবে’, এভাবে অপহরণকারীদের কথা বলতে শুনেছেন অপহৃত সাংবাদিক গোলাম সরওয়ার।

আজ সোমবার চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় দ্য ডেইলি স্টারের সঙ্গে কথা বলেন গোলাম সরওয়ার।

সরওয়ারের বুক থেকে নিচে বেশ কিছু মারধরের চিহ্ন রয়েছে। মোট চার জন তাকে মারধর করেছেন বলে জানান তিনি।

সরওয়ার বলেন, ‘মোট চারটা কণ্ঠস্বর শুনেছি। চার জনের মধ্যে তিন জনকে শুদ্ধ ভাষায় কথা বলতে শোনা গেলেও একজন চট্টগ্রামের আঞ্চলিক ভাষায় কথা বলছিলেন।’

চোখে বেঁধে, কানে হেডফোন গুজে দিয়ে বেল্ট দিয়ে তারা বেধড়ক পিটিয়েছে জানিয়ে সরওয়ার বলেন, ‘তারা বারবার বলছিলেন, একে এমনভাবে মারতে হবে যাতে বাকি সাংবাদিকদের একটা শিক্ষা দেওয়া যায়।’

যে ঘরে সরওয়ারকে রাখা হয়েছিল সেখান থেকে ট্রেন চলার শব্দ শুনতেন বলেও জানিয়েছেন সরওয়ার।

তিনি বলেন, ‘গত বৃহস্পতিবার রাতে পাঠাও মোটরসাইকেলে বাড়ির উদ্দেশ্যে রওনা দিয়ে নগরীর ভিআইপি টাওয়ারের সামনে পৌঁছালে পেছন থেকে অজ্ঞাত কিছু লোক নাকমুখ চেপে ধরলে অজ্ঞান হয়ে পড়ি। জ্ঞান ফেরার পর দেখি আমি মাইক্রোবাসের ভেতরে।’ 

এরপর তাকে একটি ঘরে বন্দি করে নির্যাতন করা হয়েছে বলে জানান তিনি।

গত রোববার সন্ধ্যায় সীতাকুণ্ড উপজেলার কুমিরা এলাকার একটা খালের পাশে সাংবাদিক সরওয়ারকে ফেলে যায় অপহরণকারীরা। পরে স্থানীয়দের সহযোগিতায় তাকে সেখান থেকে উদ্ধার করে চমেক হাসপাতালে নেওয়া হয়। হাসপাতালের ১৪ নম্বর ওয়ার্ডে তার চিকিৎসা চলছে।

Comments

The Daily Star  | English

New School Curriculum: Implementation limps along

One and a half years after it was launched, implementation of the new curriculum at schools is still in a shambles as the authorities are yet to finalise a method of evaluating the students.

6h ago