মাত্র ৬ ভোটের দূরত্বে বাইডেন-ট্রাম্পের ভাগ্য

আর মাত্র ছয়টি ইলেকটোরাল ভোট পেলেই মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ৪৬তম প্রেসিডেন্ট হিসেবে নির্বাচিত হবেন ডেমোক্রেট প্রার্থী ও সাবেক মার্কিন ভাইস প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। পরিসংখ্যান বলছে তার জন্য এই ছয়টি ভোট পাওয়া শুধু সময়ের অপেক্ষা মাত্র।
ডোনাল্ড ট্রাম্প এবং জো বাইডেন। ছবি: সংগৃহীত

আর মাত্র ছয়টি ইলেকটোরাল ভোট পেলেই মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ৪৬তম প্রেসিডেন্ট হিসেবে নির্বাচিত হবেন ডেমোক্রেট প্রার্থী ও সাবেক মার্কিন ভাইস প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। পরিসংখ্যান বলছে তার জন্য এই ছয়টি ভোট পাওয়া শুধু সময়ের অপেক্ষা মাত্র।

আলজাজিরা এবং ফক্স নিউজের সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, জো বাইডেন পেয়েছেন ২৬৪টি এবং ডোনাল্ড ট্রাম্প পেয়েছেন ২১৪টি ইলেকটোরাল ভোট। জয়ের জন্য বাইডেনের প্রয়োজন আর মাত্র ছয়টি এবং ট্রাম্পের প্রয়োজন ৫৬টি ইলেকটোরাল ভোট।

এখন পর্যন্ত জর্জিয়া, নেভেদা, নর্থ ক্যারোলিনা, পেনসেলভেনিয়া এবং আলাস্কার ফলাফল ঘোষণা বাকি। এই পাঁচটি রাজ্যের মোট ইলেকটোরাল ভোটের সংখ্যা ৬০।

নিউইয়র্ক টাইমসের তথ্য অনুযায়ী বাইডেনের ইলেকটোরাল ভোটের সংখ্যা ২৫৩ এবং ট্রাম্পের ২১৪। আলজাজিরা এবং ফক্স নিউজের ফলাফলে অ্যারিজোয়ানা অঙ্গরাজ্যের ভোট যোগ করে বাইডেনকে বিজয়ী দেখালেও নিউইয়র্ক টাইমসের ফলাফলে এই রাজ্যের ফলাফল এখনও যোগ করেনি। তবে, তাদের ফলাফল তালিকায় এই রাজ্যে বাইডেন এগিয়ে থাকার পরিসংখ্যানই দেখাচ্ছে।

বাকি থাকা রাজ্যগুলোর মধ্যে নেভাদার ৮৬ শতাংশ ভোট গণনা শেষে ট্রাম্পের চেয়ে শূণ্য দশমিক ছয় পয়েন্টে এগিয়ে আছেন বাইডেন। এই রাজ্যের ইলেকটোরাল ভোটের সংখ্যা ৬। অর্থাৎ, শুধু মাত্র এগিয়ে থাকা এই রাজ্যের ভোট পেলেই পরবর্তী মার্কিন প্রেসিডেন্ট হতে চলেছেন বাইডেন।

জর্জিয়া, নর্থ ক্যারোলিনা, পেনসেলভেনিয়া এবং আলাস্কার মধ্যে ট্রাম্প ৩০ পয়েন্টে এগিয়ে আছেন আলাস্কায়। রাজ্যটিতে ৫৬ শতাংশ ভোট গণনা শেষ হয়েছে। বাকি তিনটি রাজ্যে ট্রাম্প এগিয়ে থাকলেও বাইডেনের সঙ্গে তার পয়েন্ট বা ভোটের পার্থক্য বেশ কম। ফলে সব ভোট গণনা শেষে হলে বদলে যেতে পারে চূড়ান্ত ফলাফল।

এই চারটি রাজ্যের মধ্যে জর্জিয়ার ইলেকটোরাল ভোট ১৬, নর্থ ক্যারোলিনার ১৫, পেনসেলভেনিয়ার ২০ এবং আলাস্কার ৩।

বিজয়ী হতে হলে ট্রাম্পকে বাকি থাকা পাঁচটি রাজ্যেই জয় পেতে হবে। অন্যথায় তার পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী খোলা থাকবে আদালতের দ্বারস্থ হওয়ার পথ।

নির্বাচন নিয়ে আদালতে যাওয়ার কথা বারবারই বলেছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। আদালতে কী ফলাফল হবে তা নিয়ে হতে পারে অনেক তর্ক-বিতর্ক। তবে, আদালতের রায় জানতে থাকতে হবে অপেক্ষাতেই।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের অধ্যাপক ড. ইমতিয়াজ আহমেদ দ্য ডেইলি স্টারকে এ বিষয়ে বলেন, ‘ট্রাম্প আদালতে যেতেই পারেন। যেহেতু, আদালত রিপাবলিকান, ট্রাম্প হয়তো মনে করছেন আদালতে গেলে ফলাফল তার পক্ষে আসতে পারে।’

Comments

The Daily Star  | English

Ongoing heatwave raises concerns over Boro yield

The heatwave that has been sweeping across the country for over two weeks has raised concerns regarding agricultural production, particularly vegetables, mango and Boro paddy that are in the flowering and grain formation stages.

1h ago