ট্রাম্পকে শান্ত থাকার আহ্বান জার্মানির, নীরব যুক্তরাজ্য

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে নির্বাচনের উত্তেজনায় শান্ত থাকার আহ্বান জানিয়েছেন জার্মান পররাষ্ট্রমন্ত্রী হাইকো মাশ। অপরদিকে যুক্তরাজ্যের মন্ত্রীরা নির্বাচনের বিষয়ে মন্তব্য করতে রাজী হননি বলে জানিয়েছে দ্য গার্ডিয়ান।
Donald Trump-22.jpg
ডোনাল্ড ট্রাম্প। ছবি: রয়টার্স ফাইল ফটো

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে নির্বাচনের উত্তেজনায় শান্ত থাকার আহ্বান জানিয়েছেন জার্মান পররাষ্ট্রমন্ত্রী হাইকো মাশ। অপরদিকে যুক্তরাজ্যের মন্ত্রীরা নির্বাচনের বিষয়ে মন্তব্য করতে রাজী হননি বলে জানিয়েছে দ্য গার্ডিয়ান।

জার্মানি নেতৃত্বাধীন ইউরোপের দেশগুলো ট্রাম্পকে নির্বাচন নিয়ে জালিয়াতির অভিযোগ তুলে নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছে। পাশাপাশি ট্রাম্পের অনুসারীদেরকে আমেরিকার উত্তাল পরিস্থিতিতে ‘আগুনে তেল’ না ঢালতে অনুরোধ করেছেন তারা।

জার্মান পররাষ্ট্রমন্ত্রী হাইকো মাশ বলেন, ‘কোনো ব্যক্তির চেয়ে আমেরিকা অনেক বড়। এ পরিস্থিতিতে আগুনে তেল দেওয়া দায়িত্বহীন আচরণ। চূড়ান্ত ফলাফল না পাওয়া পর্যন্ত মাথা ঠাণ্ডা রাখতে হবে।’

‘ফলাফল এখনো নির্ধারিত হয়নি, তবে তা মেনে নিতে হবে। প্রত্যেককে সংযমী হতে হবে। গণতন্ত্রে বিজয়ীর উচ্ছ্বাসের চেয়ে পরাজয়ে শান্ত থাকা বেশি গুরুত্বপূর্ণ’, যোগ করেন তিনি।

মাশ অবশ্য ধারণা করেন যে, নির্বাচনের ফলাফল চূড়ান্ত হলেও, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র পুরো শক্তি নিয়ে শিগগিরই আন্তর্জাতিক অঙ্গনে ফিরে আসতে পারবে না।

তবে তিনি বলেন, ‘বিশ্বকে সুশৃঙ্খল রাখতে যুক্তরাষ্ট্রকে প্রয়োজন, বিশৃঙ্খলার কারণ হিসেবে নয়।’

এদিকে, ব্রিটিশ মন্ত্রীরা মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচন নিয়ে ডোনাল্ড ট্রাম্পের অভিযোগের বিষয়ে মন্তব্য করতে অস্বীকৃতি জানান। ট্রাম্প পরাজয় স্বীকার না করলে এবং বাইডেনের বিজয়ে অভিনন্দন জানানোর ক্ষেত্রে যুক্তরাজ্য দ্বিধার মধ্যে পড়বে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

আইনি প্রক্রিয়াসহ নির্বাচনের সব আনুষ্ঠানিকতা শেষ না হওয়া পর্যন্ত যুক্তরাজ্য বিষয়টি থেকে দূরে থাকতে পারে।

যুক্তরাজ্যের বিচার বিভাগীয় মন্ত্রী ডেভিড ল্যামি বলেন, ‘ডোনাল্ড ট্রাম্প আমেরিকার জনগণের অংশগ্রহণে অবাধ ও নিরপেক্ষ নির্বাচনকে হেয় করার চেষ্টা করায় প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডমিনিক রাব নীরব আছেন। আমাদের গণতন্ত্রের পক্ষে দাঁড়ানোর সাহস থাকতে হবে। এর বিকল্প নেই।’

ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) ফরেন পলিসি প্রধান জোসেপ বোরেল মার্কিন নির্বাচন নিয়ে মিথ্যা জালিয়াতির অভিযোগ নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। তিনি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রকে জলবায়ু সংকটের বিষয়ে প্যারিস চুক্তি ও ইরানের সঙ্গে পারমাণবিক চুক্তিতে ফিরে আসার আহ্বান জানান।

মার্কিন রাষ্ট্র ব্যবস্থার ওপর ভরসা আছে উল্লেখ করে ফরাসী পররাষ্ট্রমন্ত্রী জিন-ঈভস লা দ্রিয়ান জানান, তিনি নির্বাচনের ফলাফলের বৈধতার বিষয়ে বিশ্বাস রাখেন।

তিনি বলেন, ‘বাইডেন নির্বাচিত হলেও, আমেরিকা ও ইইউ সম্পর্ক ট্রান্স-আটলান্টিক সম্পর্কের ক্ষেত্রে আগে যে অবস্থানে ছিল, সেখান থেকে নড়বে না।’

‘চার বছরে পৃথিবী অনেক বদলেছে। মার্কিন সমর্থনের ওপর নির্ভর না করে ইউরোপ নিজস্ব শক্তি হওয়ার চেষ্টা করছে’, যোগ করেন তিনি।

আরও পড়ুন:

পেনসেলভেনিয়ায় ট্রাম্পকে পেছনে ফেললেন বাইডেন

‘ব্যর্থতার দায় রিপাবলিকানদের “দুর্বল” সমর্থন’

ফিলাডেলফিয়ায় ভোট গণনা কেন্দ্রে হামলার পরিকল্পনা, তদন্তে নেমেছে পুলিশ

জর্জিয়া ও পেনসেলভেনিয়াতে হারলে ট্রাম্পের সম্ভাবনা শেষ

২৪ ঘণ্টায় ট্রাম্পের ১৬ টুইট, ৭টিই ‘বিভ্রান্তিকর’

ফিলাডেলফিয়ার ভোট গণনা বন্ধে ট্রাম্পের আবেদন খারিজ

জর্জিয়ায় ৯১৭ ভোটে এগিয়ে বাইডেন: এপি

‘মিথ্যা’ দাবি, ট্রাম্পের সংবাদ সম্প্রচার বন্ধ করে দিলো ৩ টিভি চ্যানেল

‘সহিংস’ বক্তব্যের কারণে ট্রাম্প সমর্থকদের গ্রুপ সরিয়ে ফেলেছে ফেসবুক

হোয়াইট হাউসের আরও কাছে বাইডেন

Comments

The Daily Star  | English

Economy with deep scars limps along

Business and industrial activities resumed yesterday amid a semblance of normalcy after a spasm of violence, internet outage and a curfew left deep wounds on almost all corners of the economy.

1h ago