হাসপাতাল ছাড়ছেন ম্যারাডোনা

অস্ত্রোপচারের ধকল সামলে ধীরে ধীরে সেরে উঠছেন দিয়েগো ম্যারাডোনা।
maradona
ছবি: টুইটার

অস্ত্রোপচারের ধকল সামলে ধীরে ধীরে সেরে উঠছেন দিয়েগো ম্যারাডোনা। শারীরিক অবস্থার আশানুরূপ উন্নতি হওয়ায় শিগগিরই হাসপাতাল ছাড়তে যাচ্ছেন তিনি। এমন সুখবর দিয়েছেন বিশ্বকাপজয়ী সাবেক এই আর্জেন্টাইন তারকার ব্যক্তিগত চিকিৎসক লিওপল্ড লুকে।

গত ২ নভেম্বর লা প্লাতার একটি ক্লিনিকে নেওয়া হয় ৬০ বছর বয়সী ম্যারাডোনাকে। আর্জেন্টিনার রাজধানী বুয়েন্স এইরেস থেকে যা এক ঘণ্টার পথ। শুরুতে ভাবা হয়েছিল, তেমন জটিল কোনো সমস্যা হয়নি তার। পরে জানা যায়, অবস্থা বেশ গুরুতর। তার মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণ হয়েছে। সেকারণে অস্ত্রোপচার করাতে হয় কিংবদন্তি এই ফুটবলারের।

এক সপ্তাহ পেরিয়ে যাওয়ার পর গণমাধ্যমের কাছে মঙ্গলবার লুকে বলেছেন, হাসপাতাল থেকে ছাড়া পাওয়ার পথে রয়েছেন ম্যারডোনা, ‘ছাড়পত্র দেওয়ার বিষয়টি বিবেচনায় রয়েছে। তিনি হাসপাতাল ছাড়তে চাইছেন। যদিও তিনি নিজের আকাঙ্ক্ষার কথা ইতোমধ্যে জানিয়েছেন, এটা একটা ভিন্ন প্রসঙ্গ, ভিন্ন চিকিৎসাগত পরিস্থিতি। একজন রোগী, যিনি ধারাবাহিকভাবে উন্নতি করছেন, তিনি ছাড়পত্র চাইছেন এবং আমরা তার জন্য এমন একটি জায়গা বেছে নেওয়ার আদেশ দিয়েছি, যেখানে তাকে সাদরে গ্রহণ করা হবে। এমন একটি বাড়ি, যেখানে থেকে পুনর্বাসন প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে তিনি আরাম পাবেন।’

maradona
ছবি: টুইটার

তিনি যোগ করেছেন, ‘সমর্থন যুগিয়ে যাওয়ার জন্য হাসপাতাল ও চিকিৎসকদের ধন্যবাদ। সর্বোপরি ধন্যবাদ এখানকার গোটা পরিবেশ এবং তার পরিবারের সদস্য ও সংশ্লিষ্টদের। ম্যারাডোনা হাসপাতাল ছাড়ার সন্নিকটে রয়েছেন। আজ হয়তো না, তবে শিগগিরই।’

সাম্প্রতিক বছরগুলোতে ম্যারাডোনার শারীরিক পরিস্থিতি নিয়ে শঙ্কা জেগেছে বেশ কয়েকবার। ২০১৮ সালের রাশিয়া বিশ্বকাপে আর্জেন্টিনা ও নাইজেরিয়া ম্যাচ চলাকালে মাঠেই জ্ঞান হারিয়ে ফেলেছিলেন তিনি। গত বছরও তাকে ভর্তি হতে হয়েছিল হাসপাতালে। সেসময় তার পাকস্থলীর অভ্যন্তরে রক্তক্ষরণ হয়েছিল।

গত ৩০ অক্টোবর শেষবার জনসম্মুখে দেখা গিয়েছিল আর্জেন্টাইন ক্লাব জিমনাসিয়া লা প্লাতার কোচ ম্যারাডোনাকে। ৬০তম জন্মদিনে নিজ ক্লাবের খেলা দেখতে মাঠে উপস্থিত হয়েছিলেন তিনি। তবে প্যাত্রোনাতোর বিপক্ষে লা প্লাতার পুরো ম্যাচ দেখা হয়নি তার। অসুস্থ হয়ে পড়ায় আগেভাগে মাঠ ছেড়েছিলেন।

ম্যারডোনার অস্ত্রোপচারের পর গত রবিবার প্রথমবারের মতো খেলতে নেমেছিল জিমনাসিয়া। আর্জেন্টিনার ক্লাব ফুটবলের শীর্ষ স্তরে ভেলেজ সার্সফিল্ডের সঙ্গে তারা ড্র করে ২-২ গোলে। ম্যারডোনার সুস্থতা কামনায় ম্যাচ শুরুর আগে জিমনাসিয়ার খেলোয়াড়রা একটি ব্যানার নিয়ে হাজির হয়। সেখানে লেখা ছিল, ‘আমরা তোমার সঙ্গে আছি।’

Comments

The Daily Star  | English

Small businesses, daily earners scorched by heatwave

After parking his motorcycle and removing his helmet, a young biker opened a red umbrella and stood on the footpath.

1h ago