আন্তর্জাতিক
করোনাভাইরাস

ভারতে ২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত ৪৪৮৭৯, মৃত্যু ৫৪৭

ভারতে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত আরও ৪৪ হাজার ৮৭৯ জনকে শনাক্ত করা হয়েছে। এ নিয়ে ভারতে মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা বেড়ে ৮৭ লাখ ২৮ হাজার ৭৯৫ জনে দাঁড়াল। সংক্রমণের দিক থেকে বিশ্বের মধ্যে ভারতের অবস্থান বর্তমানে দ্বিতীয়তে।
মুম্বাইয়ের একটি বস্তিতে করোনা পরীক্ষার জন্য নমুনা সংগ্রহ করা হচ্ছে। ছবি: রয়টার্স

ভারতে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত আরও ৪৪ হাজার ৮৭৯ জনকে শনাক্ত করা হয়েছে। এ নিয়ে ভারতে মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা বেড়ে ৮৭ লাখ ২৮ হাজার ৭৯৫ জনে দাঁড়াল। সংক্রমণের দিক থেকে বিশ্বের মধ্যে ভারতের অবস্থান বর্তমানে দ্বিতীয়তে।

একই সময়ে মারা গেছেন আরও ৫৪৭ জন। করোনায় আক্রান্ত হয়ে এখন পর্যন্ত দেশটিতে মৃত্যুবরণ করেছেন এক লাখ ২৮ হাজার ৬৬৮ জন। আর গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ৪৯ হাজার ৭৯ জন। মোট সুস্থ হয়েছেন ৮১ লাখ ১৫ হাজার ৫৮০ জন। ভারতে মোট শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৯২ দশমিক ৯৭ শতাংশ।

আজ শুক্রবার ভারতের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের বরাত দিয়ে দেশটির সংবাদমাধ্যম এনডিটিভির প্রতিবেদনে এই তথ্য জানানো হয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সবচেয়ে বেশি রোগী শনাক্ত হয়েছে মহারাষ্ট্রে। এরপর রয়েছে কর্ণাটক, অন্ধ্র প্রদেশ, তামিল নাড়ু, উত্তর প্রদেশ, কেরালা ও দিল্লিতে। দেশটিতে মোট শনাক্ত ৮৭ লাখ ২৮ হাজার ৭৯৫ জনের মধ্যে বর্তমানে আক্রান্ত রয়েছেন চার লাখ ৮৪ হাজার ৫৪৭ জন।

ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অব মেডিকেল রিসার্চের তথ্য অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে ১১ লাখ ৩৯ হাজার ২৩০টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। আর এখন পর্যন্ত পরীক্ষা করা হয়েছে ১২ কোটি ৩১ লাখ এক হাজার ৭৩৯টি নমুনা।

উল্লেখ্য, গত ৩০ জানুয়ারি ভারতে প্রথম করোনা আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়। জনস হপকিনস ইউনিভার্সিটির করোনাভাইরাস রিসোর্স সেন্টারের তথ্য অনুযায়ী, সংক্রমণের দিক থেকে বর্তমানে বিশ্বে ভারতের অবস্থান দুই নম্বরে। ভারতের আগে রয়েছে যুক্তরাষ্ট্র ও পরে ব্রাজিল।

জনস হপকিনস ইউনিভার্সিটির সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন পাঁচ কোটি ২৬ লাখ ৮১ হাজার ৩০৫ জন এবং মারা গেছেন ১২ লাখ ৯২ হাজার ২৭৯ জন। আর সুস্থ হয়েছেন তিন কোটি ৪১ লাখ ১৪৪ জন।

Comments

The Daily Star  | English

Sylhet floods keep worsening

The flood situation in Sylhet has been worsening rapidly with the rivers inundating vast areas and upending the lives of hundreds of thousands of people.

33m ago