শীর্ষ খবর

নোয়াখালীতে অস্ত্র-গুলিসহ ২ শীর্ষ সন্ত্রাসী গ্রেপ্তার

নোয়াখালীর সুবর্ণচর উপজেলার চরজুবলী ইউনিয়নে অভিযান চালিয়ে দুই জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। সে সময় তাদের কাছ থেকে দুইটি এলজি ও চার রাউন্ড কার্তুজ উদ্ধার করা হয়েছে। এই দুই জন পার্শ্ববর্তী জেলা লক্ষ্মীপুরের শীর্ষ সন্ত্রাসী বলে জানিয়েছে পুলিশ।

নোয়াখালীর সুবর্ণচর উপজেলার চরজুবলী ইউনিয়নে অভিযান চালিয়ে দুই জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। সে সময় তাদের কাছ থেকে দুইটি এলজি ও চার রাউন্ড কার্তুজ উদ্ধার করা হয়েছে। এই দুই জন পার্শ্ববর্তী জেলা লক্ষ্মীপুরের শীর্ষ সন্ত্রাসী বলে জানিয়েছে পুলিশ।

আজ সোমবার সকালে তাদেরকে বিচারিক আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

গ্রেপ্তারকৃতরা হচ্ছেন— লক্ষ্মীপুর জেলার রামগতি উপজেলার চর গজারিয়া ইউনিয়নের নতুন বাজার চরআলগী এলাকার নূর ইসলাম মাঝির ছেলে শেখ ফরিদ (৩২) ও একই উপজেলার চর পরগাছা ইউনিয়নের পূর্ব চর কলাখোপা গ্রামের আহমদ উল্যার ছেলে আইয়ুব নবী (৪২)।

পুলিশ জানায়, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে গতকাল রোববার রাত সাড়ে ১১টার দিকে চরজুবলী ইউনিয়নের জিয়া উদ্দিন বাজার বেড়িবাঁধ রামগতি-সুবর্ণচর সীমান্ত এলাকায় অভিযান চালানো হয়। সেসময় লক্ষ্মীপুর থেকে অস্ত্র বিক্রি করতে আসা শীর্ষ সন্ত্রাসী শেখ ফরিদ ও আইয়ুব নবীকে গ্রেপ্তার করা হয়। পরে তাদের তল্লাশি করে দুটি এলজি ও চার রাউন্ড কার্তুজ উদ্ধার করা হয়।

চরজব্বার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহেদ উদ্দিন বিষয়টি দ্য ডেইলি স্টারকে নিশ্চিত করে জানান, গ্রেপ্তারকৃত আইয়ুব নবী ও শেখ ফরিদের বিরুদ্ধে দস্যুতা ও অস্ত্র আইনসহ বিভিন্ন ঘটনায় হবিগঞ্জ সদর, রামগতি, হাতিয়া থানায় একাধিক মামলা রয়েছে। অস্ত্র ও গুলি উদ্ধারের ঘটনায় তাদের বিরুদ্ধে আরও একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

নোয়াখালী পুলিশ সুপার মো. আলমগীর হোসেনও বিষয়টি নিশ্চিত করে দ্য ডেইলি স্টারকে বলেন, ‘গ্রেপ্তার দুই ব্যক্তি লক্ষ্মীপুর জেলার বাসিন্দা। তারা অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী। তাদের বিরুদ্ধে একাধিক মামলা রয়েছে। নোয়াখালীতে অবৈধ অস্ত্রধারী কোনো লোকের ক্ষমা নেই। অবৈধ অস্ত্র উদ্ধারে এবং সন্ত্রাস, চাঁদাবাজি, মাদক ও জঙ্গীবাদ নির্মূলে পুলিশ কাজ করছে। জেলায় শান্তি-শৃঙ্খলা বজায় রাখতে জেলা পুলিশ অবিরাম কাজ করে যাচ্ছে।’

Comments

The Daily Star  | English

No global leader raised any questions about polls: PM

The prime minister also said that Bangladesh's participation in the Munich Security Conference reflected the country's commitment to global peace

5h ago