জার্মানিকে নিয়ে স্পেনের ‘ছেলেখেলা’

প্রতিযোগিতামূলক কোনো আসরে এটাই জার্মানির সবচেয়ে বড় হার।
ছবি: রয়টার্স

আগের দুই ম্যাচে বাজে ফলের কারণে কোণঠাসা ছিল স্পেন। উয়েফা নেশন্স কাপে টিকতে হলে না জিতলে চলত না তাদের। বিপরীতে, জার্মানির দরকার ছিল কেবল ড্র। কিন্তু জোয়াকিম লোর দলকে একদম বিধ্বস্ত করে দিয়েছে স্প্যানিশরা। ফেরান তরেসের হ্যাটট্রিকে জার্মানিকে তারা উপহার দিয়েছে বিব্রতকর হার।

মঙ্গলবার রাতে সেভিয়ায় ‘এ’ লিগের চার নম্বর গ্রুপের স্পেনের কাছে জার্মানরা হেরেছে ৬-০ গোলে। নেশন্স লিগের ফাইনালসে ওঠার লড়াইয়ে তাদের নিয়ে রীতিমতো ছেলেখেলা করেছে লুইস এনরিকের শিষ্যরা। প্রতিযোগিতামূলক কোনো আসরে এটাই জার্মানির সবচেয়ে বড় হার।

একপেশে ম্যাচের দুই অর্ধে তিনটি করে গোল করে স্বাগতিকরা। ম্যানচেস্টার সিটি ফরোয়ার্ড তরেস ছাড়াও স্পেনের হয়ে বাকি তিন গোল করেন আলভারো মোরাতা, রদ্রি, মিকেল ওইয়ারজাবাল।

morata
ছবি: টুইটার

ষষ্ঠ মিনিটেই এগিয়ে যেতে পারত স্প্যানিশরা। অধিনায়ক সার্জিও রামোসের ফ্রি-কিক দারুণভাবে ফিরিয়ে দেন গোলরক্ষক মানুয়েল নয়্যার। গোল পেতে বেশিক্ষণ অবশ্য অপেক্ষা করতে হয়নি তাদেরকে। ১৭তম মিনিটে ফাবিয়ান রুইজের কর্নারে জোরালো হেডে লক্ষ্যভেদ করেন অরক্ষিত মোরাতা।

২৫তম মিনিটে ফের জালে বল পাঠিয়েছিলেন জুভেন্টাসের স্ট্রাইকার মোরাতা। কিন্তু অফসাইডের কারণে তা বাতিল হয়। আট মিনিট পরই ব্যবধান দ্বিগুণ করেন তরেস। বেশ কয়েকটি সুযোগ হাতছাড়া করার পর নয়্যারকে পরাস্ত করেন তিনি। দানি ওলমোর হেড ক্রসবারে লেগে ফেরার পর দারুণ শটে বল জালে পাঠান তরেস।

৩৮তম মিনিটে আরেক গোল হজম করে সফরকারীরা। কোকের কর্নারে হেড করে নিশানা ভেদ করেন ম্যানচেস্টার সিটির মিডফিল্ডার রদ্রি। বিরতির আগে অবশ্য ধাক্কা খায় স্পেন। চোট পেয়ে মাঠ ছাড়েন রিয়াল মাদ্রিদের তারকা রামোস।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরু থেকেও একই ছন্দে খেলতে থাকে স্পেন। সেই ধারাবাহিকতায় পাল্টা আক্রমণে ৫৫তম মিনিটে হোসে গায়ার পাস থেকে নিজের দ্বিতীয় গোলটি করেন ফাঁকায় থাকা তরেস। এতে জার্মানির ম্যাচে ফেরার আশা শেষ হয়ে গেলেও স্প্যানিশদের গোলক্ষুধায় লাগাম পড়েনি।

ferran
ছবি: টুইটার

৭১তম মিনিটে ফের ফুটে ওঠে জার্মানির রক্ষণভাগের জীর্ণ দশা। রুইজের পাসে ২০ গজ দূর থেকে নিখুঁত শটে নয়্যারকে ফাঁকি দেন একেবারে খালি জায়গায় থাকা তরেস। সেই সঙ্গে জাতীয় দলের জার্সিতে প্রথম হ্যাটট্রিকের স্বাদ নেন তিনি।

৮৯তম মিনিটে জার্মানদের কফিনে শেষ পেরেকটি ঠুকে দেন ওইয়ারজাবাল। কোকের উঁচু করে বাড়ানো বল নিয়ন্ত্রণে নিয়ে ছয় গজের বক্সের ভেতরে ফেলেন ভ্যালেন্সিয়ার লেফট ব্যাক গায়া। বাকিটা অনায়াসে সারেন রিয়াল সোসিয়েদাদের ফরোয়ার্ড ওইয়ারজাবাল।

ছয় ম্যাচে তিন জয় ও দুই ড্রয়ে ১১ পয়েন্ট নিয়ে ফাইনালসে জায়গা করে নিয়েছে ২০১০ বিশ্বকাপের শিরোপা জেতা স্পেন। দুই জয় ও তিন ড্রয়ে চারবারের সাবেক বিশ্বচ্যাম্পিয়ন জার্মানির পয়েন্ট ৯। এক ম্যাচ করে কম খেলা ইউক্রেন ও সুইজারল্যান্ডের পয়েন্ট যথাক্রম ৬ ও ৩।

Comments

The Daily Star  | English

Speedy Trial Act set to become permanent law

Bill placed in parliament amid criticism from opposition

53m ago