ভারত-অস্ট্রেলিয়া ম্যাচে মাঠে ঢুকে কয়লা প্রকল্পের প্রতিবাদ

অস্ট্রেলিয়া-ভারতের ওয়ানডে সিরিজের প্রথম ম্যাচে গ্যালারিতে ফিরেছে দর্শক।
coal india australia
ছবি: টুইটার

বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাস মহামারি শুরুর পর ক্রিকেট স্টেডিয়ামে দর্শক প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা চালু হয়েছিল। মাঝের দীর্ঘ স্থবিরতা কাটিয়ে খেলা মাঠে ফিরলেও ভক্ত-সমর্থকদের সন্তুষ্ট থাকতে হচ্ছিল টেলিভিশনের পর্দায় ব্যাট-বলের লড়াই দেখে। সেটা আন্তর্জাতিক ম্যাচ হোক কিংবা ঘরোয়া। অবশেষে অপেক্ষার পালা শেষ হয়েছে। অস্ট্রেলিয়া-ভারতের ওয়ানডে সিরিজের প্রথম ম্যাচে গ্যালারিতে ফিরেছে দর্শক। কিন্তু নিরাপত্তা বলয় ভেঙে মাঠের ভেতরে ঢুকে আলোচনার খোরাক হয়েছেন দুই প্রতিবাদী দর্শক।

শুক্রবার সিডনিতে স্বাগতিক অস্ট্রেলিয়ার মুখোমুখি হয়েছে ভারত। এই ম্যাচ দিয়ে অজিদের মাটিতেও লম্বা সময় পর ফিরেছে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট। টস জিতে প্রথম ব্যাটিং বেছে নেয় অ্যারন ফিঞ্চের দল। তাদের ইনিংসের ষষ্ঠ ওভার শুরুর আগে নিরাপত্তা বেষ্টনী অতিক্রম করে মাঠে ঢুকে পড়েন দুই প্রতিবাদকারী। তাদের একজনের হাতে শোভা পাচ্ছিল একটি প্ল্যাকার্ড। অস্ট্রেলিয়ায় ভারতের আদানি গ্রুপের কয়লা প্রকল্পের বিরোধিতায় কিছু কথা লেখা ছিল সেখানে। তারা প্রায় পিচের কাছাকাছি পৌঁছে গিয়েছিলেন। পরে স্টেডিয়ামের নিরাপত্তাকর্মীরা তাদেরকে মাঠ থেকে বের করে নিয়ে যান।

fan australia
ছবি: টুইটার

অস্ট্রেলিয়ার কুইন্সল্যান্ডে কারমাইকেল কয়লাখনি এবং কারমাইকেল রেলরোড প্রকল্প নির্মাণ করছে ভারতের আদানি গ্রুপ। এটি হতে চলেছে অস্ট্রেলিয়ার বৃহত্তম কয়লা-খনন প্রকল্প। তবে এই প্রকল্পের বিরোধিতায় সোচ্চার হয়েছেন বহু পরিবেশ সংরক্ষণ কর্মী।

আট মাস আগে ক্রিকেট স্টেডিয়ামে শেষবার দেখা গিয়েছিল দর্শক। এরপর করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে বন্ধ হয়ে যায় মাঠের খেলা। ১১৮ দিনের বিরতির পর গত জুলাইতে ওয়েস্ট ইন্ডিজের ইংল্যান্ড সফর দিয়ে ক্রিকেট ফেরে মাঠে। এরপর আয়োজিত হয়েছে আরও বেশ কয়েকটি দ্বিপাক্ষিক সিরিজ। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের পাশপাশি ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ (আইপিএল), ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগ (সিপিএল) ও লঙ্কা প্রিমিয়ার লিগের (এলপিএল) মতো ফ্র্যাঞ্চাইজি আসরও মাঠে গড়িয়েছে। কিন্তু কোনোখানেই দর্শকদের মাঠে প্রবেশের অনুমতি ছিল না।

fan india
ছবি: টুইটার

সিডনিতে সিরিজের প্রথম দুই ওয়ানডেতে স্টেডিয়ামের ধারণক্ষমতার অর্ধেক দর্শক মাঠে ঢোকার সুযোগ পাচ্ছেন। ক্যানবেরায় তৃতীয় ও শেষ ওয়ানডেতে ধারণক্ষমতার ৬৫ শতাংশ টিকেট বিক্রির জন্য বরাদ্দ করা হয়েছে। ওয়ানডের পর মাঠে গড়াবে তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ। সাদা বলের এই ছয় ম্যাচের পাঁচটির টিকেট ছাড়ার ২৪ ঘণ্টার মধ্যে সব বিক্রি হয়ে গেছে।

দর্শকের উপস্থিতিতে গ্যালারিতে প্রাণ ফেরায় ভীষণ খুশি অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়ক ফিঞ্চ। ম্যাচের টসের সময় তিনি বলেছেন, ‘অস্ট্রেলিয়াতে ক্রিকেট ফেরাটা দারুণ ব্যাপার। দর্শকদের সামনে খেলতে পারাটা ভালো অনুভূতি হবে।’

Comments

The Daily Star  | English

Speedy Trial Act set to become permanent law

Bill placed in parliament amid criticism from opposition

58m ago