রোনালদোর জোড়া গোলে বার্সাকে হারিয়ে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন জুভেন্টাস

লা লিগায় সময়টা বাজে গেলেও চ্যাম্পিয়ন্স লিগে টানা পাঁচটি ম্যাচ জিতে যেন রীতিমতো উড়ছিল বার্সেলোনা। তবে ষষ্ঠ ম্যাচে এসে বাস্তবতা টের পেয়েছে দলটি। তাদের মাটিতে নামিয়েছে ইতালিয়ান পরাশক্তি জুভেন্টাস। ক্রিস্তিয়ানো রোনালদোর জোড়া গোলে প্রথম লেগে ঘরের মাঠে হারের কঠিন প্রতিশোধই নিল দলটি।
ছবি: রয়টার্স

লা লিগায় সময়টা বাজে গেলেও চ্যাম্পিয়ন্স লিগে টানা পাঁচটি ম্যাচ জিতে যেন রীতিমতো উড়ছিল বার্সেলোনা। তবে ষষ্ঠ ম্যাচে এসে বাস্তবতা টের পেয়েছে দলটি। তাদের মাটিতে নামিয়েছে ইতালিয়ান পরাশক্তি জুভেন্টাস। ক্রিস্তিয়ানো রোনালদোর জোড়া গোলে প্রথম লেগে ঘরের মাঠে হারের কঠিন প্রতিশোধই নিল দলটি।

ন্যু ক্যাম্পে মঙ্গলবার রাতে বার্সেলোনাকে ৩-০ গোলের ব্যবধানে হারিয়েছে জুভেন্টাস। ফলে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়েই দ্বিতীয় রাউন্ডে পা রাখল ইতালির দলটি। সমান ১৫ পয়েন্ট হলেও গোল ব্যবধানে এগিয়ে যায় তারা। প্রথম লেগের ম্যাচে ০-২ ব্যবধানে বার্সার কাছে হেরেছিল আন্দ্রেয়া পিরলোর শিষ্যরা।

পাশাপাশি একটি আক্ষেপ মুছেছে সময়ের অন্যতম সেরা তারকা রোনালদোর। লিওনেল মেসির সঙ্গে মুখোমুখি লড়াইয়ে এর আগে কখনোই গোল দিতে পারেননি তিনি। এদিন একেবারে জোড়া গোল করেই যেন পূর্ণতা আনলেন এ পর্তুগিজ তারকা। রোনালদোর জোড়া গোলের সঙ্গে গোল পেয়েছেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের তরুণ মিডফিল্ডার ওয়েস্টন ম্যাককিনিও।

আর একই সাঙ্গ হয়েছে ন্যু ক্যাম্পে বার্সেলোনার স্বপ্নযাত্রা। ঘরের মাঠে এতোদিন যেন দুর্গ ছিল তাদের। চ্যাম্পিয়ন্স লিগে শেষ ৩৮টি ম্যাচে এ মাঠে অপরাজিত ছিল দলটি। সময়ের হিসেবে পেরিয়েছে সাত বছর। সবশেষ ২০১৩ সালে সেমিফাইনালে বায়ার্ন মিউনিখের কাছে এ মাঠে হেরেছিল তারা। লম্বা সময় পর এদিন বড় হারেই থামল তাদের জয়রথ।

ঘরের মাঠে এদিন শুরু থেকেই ব্যাকফুটে ছিল বার্সেলোনা। মাঝমাঠের দখল ছিল সফরকারীদেরই। ম্যাচের ১৩তম মিনিটে এগিয়ে যায়ও তারা। অজথাই ডি-বক্সের মধ্যে রনালদ আরাউজো ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেন রোনালদোকে। ফলে পেনাল্টির বাঁশি বাজান রেফারি। আর সফল স্পটকিক থেকে গোল আদায় করে নিতে কোনো ভুল করেননি রোনালদো। 

আক্রমণের ধারা অব্যাহত রেখে ম্যাচের ২০তম মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ করে জুভেন্টাস। অসাধারণ এক গোল দেন ম্যাককিনি। অ্যারন রামসির কাছ থেকে বল পেয়ে ডান প্রান্তে হুয়ান কুয়াদ্রাদোকে পাস দিয়েছিলেন তিনি। আলতো চিপে ছোট ডি-বক্সে তাকে ফিরতি পাস দেন কুয়াদ্রাদো। দারুণ এক সাইড ভলিতে গোল জালে জড়ান ম্যাককিনি।

তবে দুই মিনিট পরই ব্যবধান কমাতে পারতো বার্সা। ক্লেমোঁ লংলের কাছ থেকে বল থেকে মেসির নেওয়া দূরপাল্লার শট ঝাঁপিয়ে কর্নারের বিনিময়ে ঠেকিয়ে দেন গোলরক্ষক জিয়ানলুইজি বুফন। ২৫তম মিনিটে ব্যবধান বাড়ানোর সুযোগ ছিল জুভেন্টাসের। অ্যালেক্স সান্দ্রোর ক্রসে দারুণ হেড নিয়েছিলেন আলভারো মোরাতা।  তবে অল্পের জন্য বারপোস্টের উপর দিয়ে লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়।

২৯তম মিনিটে মেসির পাস থেকে পিয়ানিচের নেওয়া দূরপাল্লার শট অল্পের জন্য লক্ষ্যে থাকেনি। ছয় মিনিট পর জর্দি আলবার সঙ্গে দেওয়া নেওয়া করে লক্ষ্যে ভালো শট নিয়েছিলেন মেসি। আবারো ঝাঁপিয়ে ঠেকিয়ে দেন গোলরক্ষক বুফন। যদিও প্রথম দফায় ঠিকভাবে ধরতে পারেননি। তবে কোনো বিপদ হয়নি। প্রথমার্ধের যোগ করা সময়ে আরও একবার আলবার সঙ্গে দেওয়া নেওয়া করে ভালো শট নিয়েছিলেন মেসি। এবারও তাকে হতাশ করেন বুফন।

৪৮তম অসাধারণ এক সেভ করেন গোলরক্ষক মার্ক-আন্দ্রে টের স্টেগেন। রামসির শট ঝাঁপিয়ে ঠেকিয়ে দেন এ গোলরক্ষক। তবে তার আগেই ডি-বক্সে বল ঠেকাতে গিয়ে বল হাতে লাগে লংলের। ফলে ভিএআর দেখে পেনাল্টির বাঁশি বাজান রেফারি। আরও একটি সফল স্পটকিকে নিজের দ্বিতীয় গোল আদায় করে নেন রোনালদো।

৫৮তম মিনিটে মেসির নেওয়া ফ্রিকিকে আতোঁয়ান গ্রিজমানের হেড বারপোস্টে লেগে বেরিয়ে গেলে হতাশা বাড়ে স্বাগতিকদের। সাত মিনিট পর অবিশ্বাস্য এক সেভ করেন জুভ গলরক্ষক বুফন। ফ্র্যাঙ্কি ডি ইয়ংয়ের সঙ্গে দেওয়া নেওয়া করে দারুণ এক শট নিয়েছিলেন মেসি। ঝাঁপিয়ে ঠেকিয়ে দেন ৪২ বছর বয়সী এ গোলরক্ষক। ৬৭তম মিনিটে তো সহজ সুযোগ নষ্ট করেন গ্রিজমান। পিয়ানিচের পাস থেকে ফাঁকায় বল পেয়ে গিয়েছিলেন। কিন্তু মারেন অনেক বাইরে।

৭০ মিনিটে মেসির পাস থেকে বদলী খেলোয়াড় মার্টিন ব্র্যাথওয়েটের প্রতিপক্ষ এক খেলোয়াড়ের পায়ে লেগে অল্পের জন্য লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়। পাঁচ মিনিট পর আরও একটি গোল হজম করেছিল বার্সা। তবে বনুচ্চি অফসাইড থাকায় বাতিল হয় সে গোল। ৮৫তম মিনিটে মেসির নেওয়া দূরপাল্লার শট অল্পের জন্য জাল খুঁজে পায়নি। চার মিনিট পর আরও এক দফা মেসিকে হতাশ করেন বুফন। ঠেকিয়ে দেন মেসির শট।

Comments

The Daily Star  | English

Economy with deep scars limps along

Business and industrial activities resumed yesterday amid a semblance of normalcy after a spasm of violence, internet outage and a curfew that left deep wounds in almost all corners of the economy.

3h ago