রাতে ফের মাঠে নামছে পিএসজি-বাসাকসেহির

চতুর্থ অফিসিয়ালের বর্ণবাদী মন্তব্যের অভিযোগ তুলে মঙ্গলবার রাতে ম্যাচ শেষ না করেই মাঠ ছেড়েছিল ইস্তানবুল বাসাকসেহিরের ফুটবলাররা। তাদের সমর্থন দিয়ে মাঠ ছাড়ে প্যারিস সেইন্ট জার্মেইও (পিএসজি)। এমন পরিস্থিতিতে উয়েফার নিয়ম অনুযায়ী ৩-০ গোলে হার মেনে ম্যাচ পরিত্যক্ত করা হয়। পাশাপাশি জরিমানাও করা হয় ক্লাবটিকে। তবে এ সব কিছুই হয়নি। রাতেই ফের মুখোমুখি হচ্ছে দলদুটি।
ছবি: রয়টার্স

চতুর্থ অফিসিয়ালের বর্ণবাদী মন্তব্যের অভিযোগ তুলে মঙ্গলবার রাতে ম্যাচ শেষ না করেই মাঠ ছেড়েছিল ইস্তানবুল বাসাকসেহিরের ফুটবলাররা। তাদের সমর্থন দিয়ে মাঠ ছাড়ে প্যারিস সেইন্ট জার্মেইও (পিএসজি)। এমন পরিস্থিতিতে উয়েফার নিয়ম অনুযায়ী ৩-০ গোলে হার মেনে ম্যাচ পরিত্যক্ত করা হয়। পাশাপাশি জরিমানাও করা হয় ক্লাবটিকে। তবে এ সব কিছুই হয়নি। রাতেই ফের মুখোমুখি হচ্ছে দলদুটি।

বুধবার বাংলাদেশ সময় রাত ১১টা ৫৫ মিনিটে একই ভেন্যুতে শুরু হবে খেলা। আর ম্যাচটি হবে ১৪তম মিনিট থেকেই। ম্যাচটি অবশ্য আগের মতো খুব বেশি গুরুত্ব বহন করছে না। কারণ আগের দিন আরবি লাইপজিগের কাছে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড ৩-২ গোলে হেরে যাওয়ায় ইতোমধ্যে শেষ ষোলোতে খেলা নিশ্চিত হয়েছে পিএসজির। বাসাকসেহির প্রতিযোগিতা থেকে বাদ পড়েছে আগেই।

মূলত বর্ণবাদের বিষয়টি স্পষ্ট হওয়াতেই এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে উয়েফা। অন্যথায় হারের পাশাপাশি জরিমানা গুনতে হতো বাসিকসেহিরকে। এ বিবৃতিতে উয়েফা জানিয়েছে, 'অনন্য একটা সিদ্ধান্তে বুধবার (আজ) ভিন্ন এক দল রেফারির অধীনে ম্যাচটার বাকি থাকা সময় খেলা হবে।'

রাতে ফের ম্যাচ অনুষ্ঠিত হলেও বদলে যাচ্ছে ম্যাচের চতুর্থ অফিশিয়াল। আর সে ম্যাচের তদন্তও করে উয়েফা।

মঙ্গলবার রাতে পার্ক দে প্রিন্সেসে ম্যাচের ১৪তম মিনিটে মাঠের বাইরে দাঁড়িয়ে তর্ক করায় তুরস্কের ক্লাবটির সহকারী কোচ ও ক্যামেরুনের সাবেক ফুটবলার পিয়েরে ওয়েবোকে লাল কার্ড দেখান রেফারি। বিতর্কের সূত্রপাত সেখান থেকেই।

লাল কার্ড দেখানোর সময় রেফারির সঙ্গে আলাপকালে চতুর্থ অফিসিয়াল সেবাস্তিয়ান কোলতেস্কু ওয়েবোকে ‘ওই কালো লোকটা’ বলে সম্বোধন করেন বলে অভিযোগ ওঠে। এই বর্ণবাদী মন্তব্যের তীব্র প্রতিবাদ জানান বাসাকসেহিরের খেলোয়াড়-কর্মকর্তারা। বেশ কিছুক্ষণ স্থায়ী হয় উত্তপ্ত পরিস্থিতি। কিন্তু কোনো সমাধান বের না হওয়ায় মাঠ ছেড়ে সাজঘরে ফিরে যান তারা। পরবর্তীতে নেইমার-কিলিয়ান এমবাপেরাও তাদেরকে অনুসরণ করেন।

Comments

The Daily Star  | English

To Europe Via Libya: A voyage fraught with peril

An undocumented Bangladeshi migrant worker choosing to enter Europe from Libya, will almost certainly be held captive by armed militias, tortured, and their families extorted for lakhs of taka.

8h ago