এমপি আসলামুলের নদী দখল, উদ্ধারে বাধা নেই: হাইকোর্ট

ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য মো. আসলামুল হকের বুড়িগঙ্গা নদীর দখলকৃত জমি উদ্ধারে আইনি বাধা নেই বলে জানিয়েছে হাইকোর্ট।
দেশটাকে তো জাহান্নাম বানিয়ে ফেলেছেন
স্টার ফাইল ফটো

ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য মো. আসলামুল হকের বুড়িগঙ্গা নদীর দখলকৃত জমি উদ্ধারে আইনি বাধা নেই বলে জানিয়েছে হাইকোর্ট।

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ পরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআইডব্লিউটিএ) উচ্ছেদ কার্যক্রম চ্যালেঞ্জ করে আসলামুল হকের তিনটি প্রতিষ্ঠানের সম্মিলিতভাবে করা একটি রিট আবেদন আজ বুধবার খারিজ করে দিয়েছেন হাইকোর্ট।

আদেশে হাইকোর্ট বলেন, দেশের নদীগুলো যে কোনও মূল্যে রক্ষা করতে হবে। এই নদীগুলোর সীমানা ক্যাডাস্ট্রাল সার্ভে (সিএস) রেকর্ডের ভিত্তিতে নির্ধারণ করা হয়েছে এবং জাতীয় নদী সংরক্ষণ কমিশনের (এনআরসিসি) তদন্ত প্রতিবেদন অবশ্যই এ ক্ষেত্রে গুরুত্ব দিয়ে বিবেচনা করতে হবে।

বিচারপতি মো. আশফাকুল ইসলাম ও বিচারপতি মোহাম্মদ আলীর হাইকোর্ট বেঞ্চ পর্যবেক্ষণে আরও বলেন, ঢাকার আশপাশের চারটি নদী সংক্রান্ত হাইকোর্টের ২০০৯ সালের নির্দেশনা নদী রক্ষার জন্য সবার দৃষ্টি খুলে দিয়েছে।

হাইকোর্ট বেঞ্চ জানায়, তিনটি প্রতিষ্ঠানের করা রিট পিটিশন গ্রহণযোগ্য নয়। কারণ, তাদের দাবি বিতর্কিত। তাই, এই আবেদন খারিজ করা হয়েছে।

হাইকোর্টের রায়ের পর এনআরসিসির আইনজীবী মনজিল মোরসেদ দ্য ডেইলি স্টারকে বলেন, এখন বিআইডব্লিউটিএকে অবিলম্বে আসলামুল হকের তিন প্রতিষ্ঠানের অবৈধ দখল থেকে নদীর জমি উদ্ধার করতে উচ্ছেদ অভিযান শুরু করতে হবে।

বিআইডব্লিউটিএ এর উচ্ছেদ কার্যক্রম চ্যালেঞ্জ করে চলতি বছরের ২২ অক্টোবর সিএলসি পাওয়ার লিমিটেড, ঢাকা ওয়েস্ট পাওয়ার লিমিটেড এবং মাইশা গ্রুপের ঢাকা উত্তর পাওয়ার ইউটিলিটি কোম্পানি লিমিটেড এই রিট আবেদন করে।

আবেদনে বিআইডব্লিউটিএকে তাদের স্থাপনা উচ্ছেদ কার্যক্রম বন্ধ করতে, জমির মালিকানা ও দখল নির্ধারণের জন্য একটি যৌথ জরিপ পরিচালনা এবং ক্ষতিপূরণ দেওয়ার নির্দেশ দেওয়ার জন্য উচ্চ আদালতের কাছে প্রার্থনা করা হয়।

Comments

The Daily Star  | English
Bangladesh economic crisis

We need humility, not hubris, to turn the economy around

While a privileged minority, sitting in their high castles, continue to enjoy a larger and larger share of the fruits of “development,” it is becoming obvious that the vast majority are increasingly struggling.

5h ago