বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভাঙচুর: প্রতিবাদে রাস্তায় সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীরা

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাস্কর্য ভাঙচুর ও অবমাননার প্রতিবাদে দেশের বিভিন্ন জেলার সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীরা আজ শনিবার সমাবেশ, র‍্যালি, মানববন্ধনসহ নানা কর্মসূচি পালন করেছেন।
সকালে টাঙ্গাইল শহরের শহীদ স্মৃতি পৌর উদ্যানে একটি প্রতিরোধ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। ছবি: স্টার

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাস্কর্য ভাঙচুর ও অবমাননার প্রতিবাদে দেশের বিভিন্ন জেলার সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীরা আজ শনিবার সমাবেশ, র‍্যালি, মানববন্ধনসহ নানা কর্মসূচি পালন করেছেন।

বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভাঙার প্রতিবাদে টাঙ্গাইলে সরকারি কর্মকর্তাদের সমাবেশ

‘জাতির পিতার সম্মান রাখবো মোরা অম্লান’ এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভাঙার প্রতিবাদে টাঙ্গাইল জেলার সব সরকারি কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের নিয়ে আজ সকালে টাঙ্গাইল শহরের শহীদ স্মৃতি পৌর উদ্যানে একটি প্রতিরোধ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

টাঙ্গাইলের জেলা প্রশাসক আতাউল গণির সভাপতিত্বে এই সমাবেশে বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) সফিকুল ইসলাম, জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা সুব্রত কুমার সিকদার প্রমুখ।

এ ছাড়া, জেলার সব উপজেলায়ও বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভাঙার প্রতিবাদে আজ প্রতিরোধ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

গাজীপুরে বঙ্গবন্ধুর সম্মান অক্ষুণ্ণ রাখার প্রত্যয়

গাজীপুরে বঙ্গবন্ধুর সম্মান অক্ষুণ্ণ রাখার প্রত্যয়ে সভা ও র‌্যালি করেছেন উপজেলা পর্যায়ের সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। আজ শনিবার বেলা ১১টায় গাজীপুর সদরসহ ও শ্রীপুর উপজেলা পরিষদ চত্বরে র‌্যালি ও আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়।

এ সব কর্মসূচিতে অংশগ্রহণকারীরা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাস্কর্য ভাঙ্গার নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান। তারা ব্যক্তিগত, পারিবারিক, সামাজিক, পেশাদারী ও রাষ্ট্রীয় জীবনে বঙ্গবন্ধুর সম্মান অক্ষুণ্ণ রাখার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।

গাজীপুর সদরসহ ও শ্রীপুর উপজেলা পরিষদ চত্বরে র‌্যালি ও আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়। ছবি: সংগৃহীত

মানিকগঞ্জে গণ কর্মচারীদের সমাবেশ অনুষ্ঠিত

জাতির পিতা শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি অবমাননা প্রতিরোধে সারাদেশের মতো মানিকগঞ্জেও আয়োজন করা হয়েছে গণ কর্মচারীদের সমাবেশ। আজ শনিবার সকাল সাড়ে ১০টায় মানিকগঞ্জ জেলা শহরের মানিকগঞ্জ সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে (বিজয় মেলার মাঠ) এই সমাবেশের আয়োজন করে মানিকগঞ্জ জেলা প্রশাসন।

মানিকগঞ্জের জেলা প্রশাসক এস এম ফেরদৌসের সভাপতিত্বে এবং অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মো. মনিরুজ্জামানের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত এই সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন ভারপ্রাপ্ত জেলা ও দায়রা জজ শাহানা হক সিদ্দিকা, পুলিশ সুপার রিফাত রহমান শামীম, সিভিল সার্জন ডা. আনোয়ারুল আমিন আখন্দ প্রমুখ।

জেলা প্রশাসক এস এম ফেরদৌস বলেন, ‘শেখ মুজিবুর রহমান কোন দলের সম্পদ নয়। তিনি দেশের সম্পদ। তিনি জাতির পিতা। আমাদের বক্তব্য হলো, জাতির পিতা একটি সাংবিধানিক বিষয়। জাতির পিতার সম্মান রক্ষা করা আমাদের সাংবিধানিক দায়িত্ব। এই সম্মানটি রক্ষা করার জন্য আমরা সরকারী কর্মচারীগন বাংলাদেশের সকল মানুষের সঙ্গে একাত্মতা ঘোষণা করছি।’

শনিবার সকাল সাড়ে ১০টায় মানিকগঞ্জ জেলা শহরের মানিকগঞ্জ সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে (বিজয় মেলার মাঠ) সমাবেশের আয়োজন করে মানিকগঞ্জ জেলা প্রশাসন। ছবি: সটার

বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভাঙচুর ও অবমাননার প্রতিবাদে পটুয়াখালী ও বরগুনায় মানববন্ধন

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাস্কর্য ভাঙচুর ও অবমাননার প্রতিবাদে পটুয়াখালী ও বরগুনা জেলা পর্যায়ের সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীরা মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছেন। আজ শনিবার সকাল ১০টায় পটুয়াখালী সার্কিট হাউজ প্রাঙ্গণে এই সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। পরে শহরে একটি প্রতিবাদ মিছিল বের করা হয়।

এদিকে, বরগুনা জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সামনে সকাল সাড়ে দশটা থেকে বেলা বারোটা পর্যন্ত মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছেন জেলার সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীরা।

বরগুনা জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সামনে সকাল সাড়ে দশটা থেকে বেলা বারোটা পর্যন্ত মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেন জেলার সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। ছবি: সংগৃহীত

কক্সবাজারে জেলার সর্বস্তরের সরকারি কর্মচারীদের বিশাল সমাবেশ

‘জাতির পিতার সম্মান রাখবো মোরা অম্লান’ এ শিরোনামে কক্সবাজার জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে কক্সবাজার জেলার সর্বস্তরের সরকারি কর্মচারীদের বিশাল সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। জাতির পিতার ভাস্কর্য ভাংচুরের প্রতিবাদে কক্সবাজার শহরের সাগর পাড়ের কবিতা চত্বরে আজ শনিবার দুপুর ১২টায় অনুষ্ঠিত সমাবেশে বক্তব্য দেন কক্সবাজারের জেলা প্রশাসক মো. কামাল হোসেন। অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মোহাম্মদ আমিন আল পারভেজ, শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনার (আরআরআরসি) শাহ রেজোয়ান হায়াত প্রমুখ।

সমাবেশে বক্তারা বলেন, ‘জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কোন একক ব্যক্তি, গোষ্ঠি, সম্প্রদায় ও দলের নন, তিনি সমগ্র দেশ ও জাতির। তাই তাকে নিয়ে বিরোধিতা করা রাস্ট্রদ্রোহিতার শামিল। বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য নিয়ে অনাহুত বিতর্ক সৃষ্টি বর্তমানে দেশে চলমান উন্নয়নের ধারাকে ব্যাহত করারই চক্রান্ত।’

Comments

The Daily Star  | English

How Lucky got so lucky!

Laila Kaniz Lucky is the upazila parishad chairman of Narsingdi’s Raipura and a retired teacher of a government college.

8h ago