শিক্ষার্থীরা থাকবেন কোথায়, প্রশ্নের উত্তরে ঢাবি উপাচার্য ‘আমার জানা নেই’

আবাসিক হল বন্ধ রেখে পরীক্ষা নেওয়ার বিষয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) উপাচার্য অধ্যাপক মো. আখতারুজ্জামান বলেছেন, একাডেমিক কাউন্সিলের যে সিদ্ধান্ত আছে, সেভাবেই হবে।
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক মো. আখতারুজ্জামান। ফাইল ছবি

আবাসিক হল বন্ধ রেখে পরীক্ষা নেওয়ার বিষয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) উপাচার্য অধ্যাপক মো. আখতারুজ্জামান বলেছেন, একাডেমিক কাউন্সিলের যে সিদ্ধান্ত আছে, সেভাবেই হবে।

হল না খুললে শিক্ষার্থীরা থাকবেন কোথায়? জানতে চাইলে উপাচার্য বলেন, ‘এ মুহূর্তে বিষয়টি আমার জানা নেই এবং একাডেমিক কাউন্সিলেরও এ ব্যাপারে কোনো সিদ্ধান্ত নেই।’

করোনাভাইরাস মহামারির মধ্যেই আগামী ২৬ ডিসেম্বর থেকে স্নাতক শেষ বর্ষ ও স্নাতকোত্তর পরীক্ষা নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ঢাবি। আবাসিক হল না খুলে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের এমন সিদ্ধান্তের সমালোচনা চলছে সর্বত্র। দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে উদ্বিগ্ন শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা প্রকাশ করছেন ক্ষোভ।

এসব বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের ভাবনা কী, আজ রোববার রাতে তা জানতে চাওয়া হয় ঢাবি উপাচার্য অধ্যাপক মো. আখতারুজ্জামানের কাছে।

উপাচার্য বলেন, ‘শিক্ষার্থীরা কোথায় থাকবে, কীভাবে পরীক্ষা দেবে, সেটি আপনি বিভিন্ন জায়গা থেকে একটু জানুন। তাছাড়া, এ বিষয়ে একটি সুন্দর এবং চমৎকার সার্ভে করে আপনি আমাদের দিন, বিশ্ববিদ্যালয়ের মেধাবী শিক্ষার্থীদের সর্বোচ্চ সুরক্ষা ও মঙ্গলের জন্য সবই আমরা করব।’

একাডেমিক কাউন্সিলের গৃহীত সিদ্ধান্তই চূড়ান্ত থাকবে, না পরীক্ষার আগে হল খুলে দেওয়া হবে?

উপাচার্য বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয়ের সব কাজই শিক্ষার্থীদের জন্য, আমরা সবাই এখানে সে কারণেই নিয়োজিত। শিক্ষার্থীদের সমস্যা বিবেচনায় যখন যে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে, সাংবাদিকদের সহায়তায় আমরা তাৎক্ষণিক সবাইকে সব জানিয়ে দেব।’

গত ১০ ডিসেম্বর ঢাবির একাডেমিক কাউন্সিলের সভায় সিদ্ধান্ত হয়, আগামী ২৬ ডিসেম্বর থেকে অগ্রাধিকারভিত্তিতে স্নাতক শেষ বর্ষ ও স্নাতকোত্তরের পরীক্ষাগুলো স্বাস্থ্যবিধি ও সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে অনুষ্ঠিত হবে। শিক্ষার্থীরা নিজ নিজ বিভাগ বা ইনস্টিটিউট থেকে পরীক্ষার সময়সূচী জানতে পারবেন।

সংশ্লিষ্ট বিভাগ বা ইনস্টিটিউট শিক্ষার্থীদের সঙ্গে যোগাযোগ ও উপস্থিতি নিশ্চিত করে পরীক্ষা নেবে। শিক্ষার্থীদের ইনকোর্স, মিডটার্ম কিংবা টিউটোরিয়াল পরীক্ষা অনলাইনে অ্যাসাইনমেন্ট দিয়ে বা মৌখিকভাবে নেওয়া হবে।

শিক্ষার্থীদের সুবিধার্থে প্রয়োজনে পরীক্ষাগুলো তুলনামূলক কম বিরতিতে বা একই দিনে দুটি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা বলা হয়েছে। একইভাবে ল্যাব ও ব্যবহারিক পরীক্ষাগুলোও নেওয়া হবে।

সেদিনের একাডেমিক কাউন্সিলের সভায় শিক্ষার্থীদের থাকা ও হল খোলার ব্যাপারে কোনো সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি।

আরও পড়ুন:

‘আবাসিক হল বন্ধ রেখে পরীক্ষার সিদ্ধান্ত অমানবিক’

২৬ ডিসেম্বর থেকে ঢাবিতে অনার্স-মাস্টার্স পরীক্ষা

 

Comments

The Daily Star  | English
Bangladesh's forex reserves

Forex reserves rise $377m in a week

Bangladesh's foreign currency reserves rose $377 million in a week to about $20.57 billion, central bank figures showed.

36m ago