খেলা

ইংল্যান্ডের ঐতিহ্যবাহী ওভাল মাঠের সঙ্গে জুড়ল বাংলাদেশের রতনের নাম!

ইংল্যান্ডের সারে কাউন্টি ক্রিকেট ক্লাবের মাঠ ওভাল ক্রিকেট ইতিহাসেরই সবচেয়ে বিখ্যাত মাঠগুলোর একটি। ১৮৮০ সালে এই মাঠেই নিজ দেশে প্রথম টেস্ট খেলেছিল ইংল্যান্ড
Shahidul Alam Ratan
ছবি: ফেসবুক

বিজয়ের দিনে এক বাংলাদেশির বিজয়ের খবরই বটে। বাংলাদেশি কোচ শহিদুল আলম রতনের নাম জুড়ে গেল ইংল্যান্ডের বিখ্যাত ভেন্যু দ্য ওভালের নামের সঙ্গে। প্রতীকী সম্মান হিসেবে ‘কিআ শহিদুল আলম রতন ওভাল’ নামটি থাকবে ২৪ ঘণ্টা।

ইংল্যান্ডের সারে কাউন্টি ক্রিকেট ক্লাবের মাঠ ওভাল ক্রিকেট ইতিহাসেরই সবচেয়ে বিখ্যাত মাঠগুলোর একটি। ১৮৮০ সালে এই মাঠেই নিজ দেশে প্রথম টেস্ট খেলেছিল ইংল্যান্ড।  সারের সঙ্গে বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান কিআ’র স্পন্সরশীপ চুক্তি অনুযায়ী মাঠটির নাম অনেকদিন থেকেই এখন 'কিআ ওভাল'। মঙ্গলবার তাদের ওয়েবসাইটেই একদিনের জন্য এই নামের সঙ্গে রতনের নাম জুড়ে দেওয়ার কথা জানানো হয়।

এর পেছনের গল্পটি বেশ মনকাড়া।  ‘ক্যাপিটাল কিড ক্রিকেট’ নামের একটি সেচ্ছাসেবী সংস্থার প্রধান নির্বাহী রতন। বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকে অনুদান ক্রিকেটারদের নিয়ে কাজ করেন। করোনাভাইরাসের সময়ে লকডাউনে এই সংস্থা নেয় দারুণ উদ্যোগ। ‘ন্যাশনাল লটারি ফাউন্ডেশনের’ অনুদান নিয়ে তারা পাশে দাঁড়ায় লন্ডন ও ইংল্যান্ডের বিভিন্ন শহরের তৃণমূল পর্যায়ের ক্রিকেটারদের।

পুরো কার্যক্রম পরিচালনায় ছিলেন রতন।  পুরস্কার হিসেবে ন্যাশনাল লটারি ও সারে কাউন্টি ক্লাব রতনকে দিল এই সম্মান।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এই কোচ ও উদ্যোক্তা    ‘ন্যাশনাল লটারি ও সারে কাউন্টি ক্রিকেট ক্লাব আমাকে বেছে নেওয়ায় আমি নিজেকে সম্মানিত মনে করছি। আজ ১৫ ডিসেম্বর আমার জীবনের সেরা স্মৃতি হয়ে থাকবে। আমার ক্রিকেটীয় কার্যক্রমের পেছনে যারা সমর্থন যুগিয়েছেন তাদের সবাইকে ধন্যবাদ।’

সারের ক্রিকেটার আমির ভিরদি আর রায়ান প্যাটেল জানান, রতনে উদ্যোগের কারণে প্রচুর তরুণ ক্রিকেটার উপকৃত হয়েছেন।

২০০১ থেকে ২০০৪ সাল পর্যন্ত বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডে চাকরিতে যুক্ত ছিলেন রতন। কাজ করেছেন হাই পারফরম্যান্স ইউনিটে। লম্বা সময় থেকেই এই কোচ ইংল্যান্ডে বসবাস করছেন। 

Comments