খেলা

ভারতের দুর্দশা চোখে পানি দিয়েও বিশ্বাস হচ্ছিল না শোয়েবের

ক্রিকেটে ভারত-পাকিস্তানের দ্বৈরথ চিরায়ত। মাঠ ও মাঠের বাইরের নানান ইস্যুতে দল দুটির খেলোয়াড়দের পরস্পরকে কথার খোঁচা দিতে দেখা যায় প্রায়শই।
shoaib akhtar
ছবি: টুইটার

ক্রিকেটে ভারত-পাকিস্তানের দ্বৈরথ চিরায়ত। মাঠ ও মাঠের বাইরের নানান ইস্যুতে দল দুটির খেলোয়াড়দের পরস্পরকে কথার খোঁচা দিতে দেখা যায় প্রায়শই। সেই ধারায় তির্যক বাক্যবাণে জর্জরিত করার মোক্ষম একটি সুযোগ পেয়ে হাতছাড়া করেননি পাকিস্তানের সাবেক গতি তারকা শোয়েব আখতার। অস্ট্রেলিয়ার কাছে ভারতের নাকানিচোবানি খাওয়া নিয়ে তিনি জানিয়েছেন, ঘুম থেকে ওঠার পর চোখে পানি দিয়েও অমন স্কোর বিশ্বাস করতে পারেননি!

অ্যাডিলেড টেস্টের ফয়সালা হয়েছে তৃতীয় দিনেই। শনিবার সকালের সেশনে বিরাট কোহলিরা অলআউট হন নিজেদের টেস্ট ইতিহাসের সর্বনিম্ন ৩৬ রানে! এরপর ৯০ রানের মামুলি লক্ষ্য পাওয়া স্বাগতিক অস্ট্রেলিয়া তুলে নেয় ৮ উইকেটের অনায়াস জয়।

চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ভারতের দুর্দশা দেখে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটারে ‘রাওয়ালপিন্ডি এক্সপ্রেস’ খ্যাত শোয়েব ব্যঙ্গাত্মকভাবে লিখেছেন, ‘ঘুম থেকে উঠলাম এবং দেখলাম (ভারতের) স্কোর ৩৬৯। কিন্তু বিশ্বাস করতে পারলাম না। এরপর পানি দিয়ে চোখ ধুয়ে নিলাম এবং দেখলাম স্কোর ৩৬/৯। আমি সেটাও বিশ্বাস করতে পারলাম না এবং তাই ফের ঘুমিয়ে পড়লাম।’

দুই অজি পেসার জস হ্যাজেলউড আর প্যাট কামিন্সের তোপে ভারতের একজন ব্যাটসম্যানও দ্বিতীয় ইনিংসে ছুঁতে পারেননি দুই অঙ্ক। এমনকি অতিরিক্ত খাত থেকেও আসেনি দুই অঙ্কের রান। প্রায় দেড়শো বছরের টেস্ট ইতিহাসে প্রথমবারের মতো ঘটেছে এমন ঘটনা। সর্বোচ্চ ৯ রান করেন ওপেনার মায়াঙ্ক আগারওয়াল। কামিন্সের বাউন্সারে হাতে আঘাত পেয়ে ব্যাটিং চালিয়ে যেতে পারেননি ভারতের শেষ ব্যাটসম্যান মোহাম্মদ শামি। তাই ৯ উইকেটে ৩৬ রানেই শেষ হয় সফরকারীদের ইনিংস।

কেবল টুইট করেই অবশ্য ক্ষান্ত হননি এক সময়ের বিশ্ব কাঁপানো পেসার শোয়েব। পরবর্তীতে নিজের একটি ভিডিও শেয়ার করেছেন তিনি, যেখানে তাকে একই সুরে বলতে শোনা গিয়েছে, ‘বিব্রতকর হার। বিব্রতকর ব্যাটিং। দুনিয়ার সেরা ব্যাটিং লাইনআপ গুঁড়ো গুঁড়ো হয়ে পড়ল।… ৩৬ রানে অলআউট। এটা লজ্জাজনক পারফরম্যান্স। এটা ভয়াবহ।... এমনটা ঘটে ক্রিকেটে। এখন সহ্য করো। সমালোচনা সহ্য করো। তোমাদের সঙ্গে এখন এসব ঘটবে। শক্তিশালী ভারত মুখ থুবড়ে পড়ল।’

Comments