পরিবেশ কর্মকর্তাকে কুমিল্লা-৬ এমপির হুমকি

‘খুব ক্ষমতা না, তালা ঝুলিয়ে দিব অফিসে’

কুমিল্লা সদর (দক্ষিণ) উপজেলায় পরিবেশ অধিদপ্তরের অনুমতি ছাড়া পাহাড় কাটার ঘটনায় ব্যবস্থা নেওয়ায় কুমিল্লা-৬ আসনের সংসদ সদস্য আ ক ম বাহাউদ্দিন বাহার হুমকি দিয়েছেন অধিদপ্তরের কুমিল্লা জেলা উপ-পরিচালককে।

কুমিল্লা সদর (দক্ষিণ) উপজেলায় পরিবেশ অধিদপ্তরের অনুমতি ছাড়া পাহাড় কাটার ঘটনায় ব্যবস্থা নেওয়ায় কুমিল্লা-৬ আসনের সংসদ সদস্য আ ক ম বাহাউদ্দিন বাহার হুমকি দিয়েছেন অধিদপ্তরের কুমিল্লা জেলা উপ-পরিচালককে।

গতকাল বুধবার টেলিফোনে পরিবেশ অধিদপ্তরের স্থানীয় কার্যালয়ে তালা ঝুলিয়ে দেওয়ারও হুমকি দিয়েছেন তিনি।

এ সংক্রান্ত অডিও রেকর্ডটি দ্য ডেইলি স্টারের হাতে এসেছে।

কুমিল্লা সদর (দক্ষিণ) উপজেলায় সড়ক ও জনপথ বিভাগের সড়ক প্রশস্তকরণ প্রকল্পে পরিবেশ অধিদপ্তরের অনুমোদন ছাড়াই এক লাখ ১৪ হাজার ঘনফুট পাহাড় কাটে ঠিকাদারি সংস্থা হাসান টেকনো বিল্ডার্স লিমিটেড ও হক এন্টারপ্রাইজ।

প্রতিষ্ঠান দুটির পক্ষে অবস্থান নিয়ে সংসদ সদস্য আ ক ম বাহাউদ্দিন বাহার অধিদপ্তরের কর্মকর্তাকে হুমকি দেন। গত ১৬ নভেম্বর ঠিকাদারি সংস্থার প্রতিনিধির উপস্থিতিতে পাহাড় কাটার স্থান পরিদর্শন করে প্রতিবেদন দেন উপ-পরিচালক শওকত আরা কলি।

এমপিকে ছাড়া কিভাবে এ প্রতিবেদন দেওয়া হলো সে কৈফিয়ত চান এমপি।

তিনি উপ-পরিচালকের বিরুদ্ধে ক্ষমতার অপব্যবহারের অভিযোগ এনে কুমিল্লায় এসব চলবে না বলেও হুঁশিয়ারি দিয়েছেন।

‘আপনি কিভাবে এখানে কাজ করেন আমি দেখে নিব। ননসেন্স কোথাকার। খুব ক্ষমতা হয়েছে না আপনার। একেবারে তালা ঝুলিয়ে দিব অফিসে। দশ মিনিটের মধ্যে আপনি আমার অফিসে আসবেন,’ অডিও রেকর্ডে এভাবে কথা বলতে শুনা যায় সংসদ সদস্যকে।

উপ-পরিচালক শওকত আর কলি এ বিষয়ে দ্য ডেইলি স্টারের সঙ্গে কথা বলতে অপারগতা প্রকাশ করেছেন।

সংসদ সদস্য আ ক ম বাহাউদ্দিন বাহারকে বেশ কয়েকবার ডেইলি স্টারের পক্ষ থেকে ফোন দেওয়া হলে তিনি ফোন ধরেননি। এসএমএস করা হলেও তিনি কোনো উত্তর দেননি।

পরিবেশ অধিদপ্তর চট্টগ্রাম অঞ্চলের পরিচালক মোহাম্মদ মোয়াজ্জম হোসাইন দ্য ডেইলি স্টারকে বলেছেন, ‘একজন মাননীয় আইনপ্রণেতার কাছ থেকে এমন ব্যবহার অপ্রত্যাশিত। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর যে ১০ অগ্রাধিকার প্রকল্প রয়েছে তার মধ্যে পরিবেশ সুরক্ষা অন্যতম। আমরা চাই জনপ্রতিনিধিরা প্রধানমন্ত্রীর পরিবেশ সুরক্ষার প্রকল্প বাস্তবায়নে আমাদের সহযোগিতা করবেন।’

‘রাষ্ট্রীয় গুরুত্বপূর্ণ প্রয়োজনে পাহাড় কাটা যায়’ উল্লেখ করে তিনি আরও বলেছেন, ‘সে ক্ষেত্রে পরিবেশ অধিদপ্তরের অনুমতি নিয়েই পাহাড় কাটতে হবে। আমরা চাইব আইনপ্রণেতারা আইন প্রয়োগে আমাদের সহযোগিতা করবেন।’

Comments

The Daily Star  | English

The bond behind the fried chicken stall in front of Charukala

For close to a quarter-century, a business built on mutual trust and respect between two people from different faiths has thrived in front of Dhaka University's Faculty of Fine Arts

1h ago