থার্টি ফার্স্টে ডিএমপির ১৩ নির্দেশনা

কোভিড-১৯ মহামারির মধ্যে আসা বছরের শেষ রাতে ঢাকা শহরে প্রকাশ্য উৎসব-উদযাপন বন্ধ রাখার কথা জানিয়ে ১৩ দফা নির্দেশনা দিয়েছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি)। পুলিশের নির্দেশনা অনুযায়ী, শহরের রাস্তায়, ফ্লাইওভার, ভবনের ছাদে কিংবা প্রকাশ্য জায়গায় কোনো ধরনের জমায়েত, সমাবেশ বা উৎসব করা যাবে না।

কোভিড-১৯ মহামারির মধ্যে আসা বছরের শেষ রাতে ঢাকা শহরে প্রকাশ্য উৎসব-উদযাপন বন্ধ রাখার কথা জানিয়ে ১৩ দফা নির্দেশনা দিয়েছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি)। পুলিশের নির্দেশনা অনুযায়ী, শহরের রাস্তায়, ফ্লাইওভার, ভবনের ছাদে কিংবা প্রকাশ্য জায়গায় কোনো ধরনের জমায়েত, সমাবেশ বা উৎসব করা যাবে না।

ঢাকা মহানগরের সার্বিক নিরাপত্তা ও আইন-শৃঙ্খলার স্বার্থে এই নিষেধাজ্ঞা দেওয়ার কথা বলেছে ডিএমপি।

ডিএমপি বলেছে, উন্মুক্ত জায়গায় নববর্ষ উদযাপন উপলক্ষে কোনো ধরনের অনুষ্ঠান বা সমবেত হওয়া যাবে না বা নাচ, গান ও কোনো সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান করা যাবে না; কোথাও কোনো ধরনের আতশবাজি বা পটকা ফাটানো যাবে না।

তবে, সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে সীমিত আকারে আবাসিক হোটেলগুলোতে নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় অনুষ্ঠান করা যাবে। সেক্ষেত্রে কোনভাবেই ডিজে পার্টি করা যাবে না।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ও শহরের অভিজাত এলাকা হিসেবে পরিচিত গুলশান, বনানী ও বারিধারা এলাকায় সেই রাতে চলাচল সীমিত রাখার কথা জানিয়েছে ডিএমপি। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় সন্ধ্যা ছয়টার পর বহিরাগত কোনো ব্যক্তি বা যানবাহন প্রবেশ করতে পারবে না। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আবাসিক এলাকায় বসবাসরত শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের গাড়ি নির্ধারিত সময়ের পর পরিচয় দিয়ে শাহবাগ ক্রসিং দিয়ে প্রবেশ করতে পারবে।

গুলশান ও বনানী এলাকায় রাত ৮টার পর বহিরাগতরা প্রবেশ করতে পারবে না। তবে, ওইসব এলাকার বাসিন্দারা নির্ধারিত সময়ের পর কামাল আতাতুর্ক এভিনিউ (কাকলী ক্রসিং) এবং মহাখালী আমতলী ক্রসিং দিয়ে পরিচয় দিয়ে প্রবেশ করতে পারবেন। গুলশান, বনানী, বারিধারা ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আবাসিক এলাকার বাসিন্দা না হলে, ওইসব এলাকায় যাওয়ার ক্ষেত্রে নিরুৎসাহিত করা হয়েছে। গুলশান, বনানী ও বারিধারা এলাকার বাসিন্দাদের সেদিন রাত ৮টার মধ্যে নিজ এলাকায় ফিরবার অনুরোধ করেছে ডিএমপি।

রাত ৮টার পর হাতিরঝিল এলাকায় কাউকে অবস্থান করতে দেওয়া হবে না উল্লেখ করে আরও বলা হয়েছে, ৩১ ডিসেম্বর সন্ধ্যা ৬টার পর ঢাকা মহানগরীর কোনো বার খোলা রাখা যাবে না। ফাস্টফুডের দোকান বন্ধ করতে হবে রাত ১০টার মধ্যে।

ইংরেজি নববর্ষের প্রাক্কালে ৩১ ডিসেম্বর সন্ধ্যা ৬টা থেকে ১ জানুয়ারি ভোর ৬টা পর্যন্ত ঢাকা মহানগরীর বিভিন্ন আবাসিক হোটেল, রেস্তোরাঁ, জনসমাবেশ ও উৎসবস্থলে সব ধরনের লাইসেন্সকৃত আগ্নেয়াস্ত্র বহন না করার জন্যও অনুরোধ জানিয়েছে ডিএমপি।

Comments

The Daily Star  | English

Bangladeshi students likely to fly home from Kyrgyzstan on chartered flights

There have been no major attacks in hostels of international students since last night

16m ago