পেঁয়াজ রপ্তানি নিষেধাজ্ঞা তুলে নিয়েছে ভারত

প্রায় তিন মাস ১৫ দিন পর আবারও বাংলাদেশে পেঁয়াজ রপ্তানির অনুমতি দিয়েছে ভারত। দিনাজপুরের হিলি স্থলবন্দরসহ দেশের অন্যান্য বন্দর দিয়ে আগামী ১ জানুয়ারি থেকে ভারত থেকে পেঁয়াজ আমদানি করা হতে পারে বলে জানিয়েছেন স্থানীয় আমদানিকারকরা।

প্রায় তিন মাস ১৫ দিন পর আবারও বাংলাদেশে পেঁয়াজ রপ্তানির অনুমতি দিয়েছে ভারত। দিনাজপুরের হিলি স্থলবন্দরসহ দেশের অন্যান্য বন্দর দিয়ে আগামী ১ জানুয়ারি থেকে ভারত থেকে পেঁয়াজ আমদানি করা হতে পারে বলে জানিয়েছেন স্থানীয় আমদানিকারকরা।

ভারত গত ১৪ সেপ্টেম্বর পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ করে দেয়।

গতকাল সোমবার রাতে ভারতের বৈদেশিক বাণিজ্য বিভাগের মহাপরিচালক অমিত যাদব স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে বিষয়টি জানানো হয়। রাতেই ভারতীয় রপ্তানিকারকরা প্রজ্ঞাপনের কপির মাধ্যমে বাংলাদেশি আমদানিকারকদের বিষয়টি জানিয়েছেন।

হিলি স্থলবন্দর আমদানি ও রপ্তানিকারক গ্রুপের সভাপতি হারুনুর রশিদ জানান, রপ্তানি বন্ধ ঘোষণার তিন মাস ১৫ দিন পর আবার ভারত সরকার পেঁয়াজ রপ্তানির অনুমতি দিয়েছে বলে সোমবার রাতে একটি পত্রের কপি দিয়ে ভারতীয় রপ্তানিকারকরা তাদের জানিয়েছেন। একইসঙ্গে জানানো হয়েছে, পেঁয়াজ রপ্তানির ক্ষেত্রে কোনো মূল্য নির্ধারণ করা হয়নি। ১ জানুয়ারি থেকে পেঁয়াজ রপ্তানি করা হবে বলে তারা জানিয়েছেন।

তিনি জানান, এখন পেঁয়াজ আমদানির জন্য এলসি খোলার প্রস্তুতি চলছে। আগামীকাল আইপি (ইমপোর্ট পারমিশন) খোলাসহ এ সংক্রান্ত সব প্রক্রিয়া সম্পন্ন করে ব্যাংকগুলো থেকে এলসি খোলার পর যাবতীয় প্রস্তুতি নেওয়া হবে।

যেহেতু পেঁয়াজ রপ্তানির ক্ষেত্রে ন্যূনতম কোনো মূল্য নির্ধারণ করা হয়নি, তাই প্রতি টন পেঁয়াজ ২শ’ থেকে আড়াইশ মার্কিন ডলারে এলসি খোলা হবে বলে জানান তিনি।

তিনি জানান, আমদানি শুরু হলে দেশের বাজারে পেঁয়াজে দাম কমবে।

Comments

The Daily Star  | English