স্মিথ-কোহলিকে টপকে শীর্ষে উইলিয়ামসন

টেস্ট ব্যাটসম্যানদের র‍্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষস্থানের লড়াইটা গত পাঁচ বছর ধরে সীমাবদ্ধ ছিল স্টিভ স্মিথ আর বিরাট কোহলির মধ্যে। সেই ধারায় ছেদ ঘটিয়েছেন নিউজিল্যান্ডের অধিনায়ক কেইন উইলিয়ামসন।
Kane Williamson
ছবি: ব্ল্যাকক্যাপস টুইটার

টেস্ট ব্যাটসম্যানদের র‍্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষস্থানের লড়াইটা গত পাঁচ বছর ধরে সীমাবদ্ধ ছিল স্টিভ স্মিথ আর বিরাট কোহলির মধ্যে। সেই ধারায় ছেদ ঘটিয়েছেন নিউজিল্যান্ডের অধিনায়ক কেইন উইলিয়ামসন। পাকিস্তানের বিপক্ষে মাউন্ট মঙ্গানুই টেস্টে অসাধারণ পারফর্ম করে আইসিসি র‍্যাঙ্কিংয়ের এক নম্বরে উঠেছেন তিনি।

৮৯০ রেটিং পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে থেকে ২০২০ সাল শেষ করেছেন উইলিয়ামসন। এর আগে ২০১৫ সালের শেষদিকে টেস্ট ব্যাটসম্যানদের র‍্যাঙ্কিংয়ের এক নম্বর জায়গাটা দখল করেছিলেন তিনি। কিন্তু আসনে দীর্ঘস্থায়ী হতে পারেননি। এরপর থেকে হয় কোহলি, নয়তো স্মিথ, এই দুজনের মধ্যে হাতবদল হয়েছে শীর্ষস্থান।

পাকিস্তানের বিপক্ষে নাটকীয় জয়ের ম্যাচে প্রথম ইনিংসে ১২৯ ও দ্বিতীয় ইনিংসে ২১ রান করেন উইলিয়ামসন। ফলে তার নামের পাশে যোগ হয় ১৩ রেটিং পয়েন্ট। তাতেই পেছনে পড়ে যান ভারতীয় অধিনায়ক কোহলি ও অস্ট্রেলিয়ান তারকা স্মিথ।

ছুটিতে থাকা কোহলি আছেন আগের মতোই দুই নম্বরে। তার রেটিং পয়েন্ট ৮৭৯। কিন্তু ভারতের বিপক্ষে মেলবোর্ন টেস্টে যথাক্রমে ০ ও ৮ রান করায় স্মিথ নেমে গেছেন দুই ধাপ। তিনে থাকা এই খেলোয়াড়ের রেটিং পয়েন্ট ৮৭৭।

করোনাভাইরাসের আঘাতে জর্জরিত এই বছরে চার টেস্টে ৮৩ গড়ে উইলিয়ামসনের রান ৪৯৮। তবে কোহলি ও স্মিথের পারফরম্যান্স খুবই হতাশাজনক। কোহলি তিন ম্যাচে ১৯.৩৩ গড়ে করেছেন ১১৬ রান। সমান টেস্টে ১৮.২৫ গড়ে স্মিথের সংগ্রহ ৭৩ রান।

মেলবোর্নে প্রথম ইনিংসে ১১২ ও দ্বিতীয় ইনিংসে অপরাজিত ২৭ রান করে দলকে জিতিয়ে পাঁচ ধাপ এগিয়েছেন আজিঙ্কা রাহানে। ভারপ্রাপ্ত ভারতীয় অধিনায়ক উঠে এসেছেন ষষ্ঠ স্থানে। ২০১৯ সালের অক্টোবরে ক্যারিয়ারসেরা পঞ্চম স্থানে ছিলেন তিনি।

টেস্ট বোলারদের র‍্যাঙ্কিংয়ে শীর্ষ চারে নেই কোনো পরিবর্তন। আগের মতোই শীর্ষে আছেন অস্ট্রেলিয়ার প্যাট কামিন্স। পরের তিনটি স্থান রয়েছে যথাক্রমে ইংল্যান্ডের স্টুয়ার্ট ব্রড এবং নিউজিল্যান্ডের নিল ওয়াগনার ও টিম সাউদির দখলে। দুই ধাপ এগিয়ে সেরা পাঁচে জায়গা করে নিয়েছেন অজি পেসার মিচেল স্টার্ক।

সাদা পোশাকের অলরাউন্ডারদের র‍্যাঙ্কিংয়ের চূড়ায় যথারীতি আছেন ইংল্যান্ডের বেন স্টোকস। বাংলাদেশের তারকা সাকিব আল হাসান রয়েছেন চতুর্থ স্থানে।

Comments

The Daily Star  | English

Two Indian SEZs saw no visible progress in over 2 years. Here’s why

India’s Prime Minister Narendra Modi emphasised the need for initiating operations fast at two special economic zones (SEZs) meant for Indian companies on meeting with his Bangladeshi counterpart Sheikh Hasina in Delhi on June 22.

8h ago