খেলা

দুই মাসে দুই ডাবল সেঞ্চুরি উইলিয়ামসনের, বিপদে পাকিস্তান

পাকিস্তানের উপর রানের বোঝা চাপিয়ে বড় জয়ের ভিতও তৈরি হয়ে গেছে স্বাগতিকদের।
kane williamson
ছবি: টুইটার

গত ডিসেম্বরে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে হ্যামিল্টনে করেছিলেন ক্যারিয়ারসেরা ২৫১। এক মাস পরই পাকিস্তানের বিপক্ষে ক্রাইস্টচার্চে কেইন উইলিয়ামসনের ব্যাটে দেখা মিলল আরেকটি ডাবল সেঞ্চুরির। তার ২৩৮ রানের ইনিংসে রানের পাহাড়ে চড়ল নিউজিল্যান্ড। পাকিস্তানের উপর রানের বোঝা চাপিয়ে বড় জয়ের ভিতও তৈরি হয়ে গেছে স্বাগতিকদের।

সোমবার দ্বিতীয় ইনিংসে ১ উইকেটে ৮ রান তুলে পাকিস্তান শেষ করেছে তৃতীয় দিনের খেলা। তারা পিছিয়ে আছে ৩৫৪ রানে। এর আগে নিউজিল্যান্ড প্রথম ইনিংস ঘোষণা করে ৬ উইকেটে ৬৫৯ রান তুলে।

আগের দিনের ৩ উইকেটে ২৮৬ রান নিয়ে খেলতে নেমেছিল কিউইরা। অধিনায়ক উইলিয়ামসন নেমছিলেন ১১২ রান নিয়ে। তার সঙ্গী হেনরি নিকোলস দিন শুরু করেছিলেন ৮৯ রানে। পাকিস্তানের বোলারদের হতাশায় পুড়িয়ে ডাবল সেঞ্চুরি পূরণ করে ফেলেন উইলিয়ামসন। নিকোলসও তুলে নেন সেঞ্চুরি। চতুর্থ উইকেটে তারা যোগ করেন নিউজিল্যান্ডের পক্ষে রেকর্ড ৩৬৯ রান।

৩৬৪ বলে ২৮ চারে নিজের নান্দনিক ইনিংসটি সাজান উইলিয়ামসন। ক্রিকেটপ্রেমীদের আরও একবার মুগ্ধ করে বেশ কিছু রেকর্ডের মালিকও বনে গেছেন আইসিসি টেস্ট ব্যাটসম্যানদের র‍্যাঙ্কিংয়ে শীর্ষে থাকা এই তারকা।

সাবেক ক্রিকেটার ব্রেন্ডন ম্যাককালামের সঙ্গে নিউজিল্যান্ডের পক্ষে রেকর্ড ৪টি ডাবল সেঞ্চুরির কীর্তিতে ভাগ বসিয়েছেন উইলিয়ামসন। দলটির অধিনায়ক হিসেবে সর্বোচ্চ ৩টি ডাবল সেঞ্চুরির রেকর্ডেও নিজের নাম উঠিয়েছেন তিনি। সাবেক দুই দলনেতা ম্যাককালাম ও স্টিভেন ফ্লেমিংয়েরও আছে একই অর্জন।

২৩৮ রানের ইনিংস খেলার পথে নিউজিল্যান্ডের তৃতীয় ক্রিকেটার হিসেবে ৭ হাজার টেস্ট রানের মাইলফলক পেরিয়ে গেছেন উইলিয়ামসন। মাত্র ১৪৪ ইনিংস লেগেছে তার। ব্রায়ান লারা, রিকি পন্টিং, জ্যাক ক্যালিসের মতো কিংবদন্তিরা পড়ে গেছেন তার পেছনে।

উইলিয়ামসন-নিকোলসের ৫৫৩ বলের ম্যারাথন জুটি ভাঙেন পাকিস্তানের পেসার মোহাম্মদ আব্বাস। ২৯১ বলে ১৮ চার ও ১ ছক্কায় ১৫৭ রান করে বিদায় নেন তিনি। এরপর বিজে ওয়াটলিংকে থিতু হতে দেননি শাহিন শাহ আফ্রিদি।

তবে ১২ রানের মধ্যে ২ উইকেট তুলে নেওয়া পাকিস্তান স্বস্তি পায়নি একটুও। ততক্ষণে নিউজিল্যান্ডের সংগ্রহ পেরিয়ে গেছে সাড়ে চারশো। ষষ্ঠ উইকেট জুটিতে উইলিয়ামসন ও ড্যারিল মিচেল রান তোলেন ওয়ানডে ঢঙে। তাদের ১৬৩ বলের জুটিতে আসে ১৩৩ রান। 

উইলিয়ামসন ফাহিম আশরাফের শিকার হওয়ার পর সপ্তম উইকেট জুটিতে পাকিস্তানের বোলারদের নাস্তানাবুদ করে ছাড়েন মিচেল ও কাইল জেমিসন। টি-টোয়েন্টি ঘরানার ব্যাটিংয়ে ৫০ বলের অবিচ্ছিন্ন জুটিতে তারা যোগ করেন ৭৪ রান।

ক্যারিয়ারের চতুর্থ টেস্ট খেলতে নামা মিচেল তুলে নেন সাদা পোশাকে প্রথম সেঞ্চুরি। ১১২ বলে ১০২ রানে অপরাজিত থাকেন তিনি। তার ইনিংসে ছিল ৮ চার ও ২ ছক্কা।

শেষ বিকালে নিউজিল্যান্ড ইনিংস ঘোষণা করলে ব্যাটিংয়ে নামে পাকিস্তান। দেখেশুনে দিন পার করে দেওয়ার দিকে মনোযোগ ছিল ওপেনারদের। প্রথম পাঁচ ওভারে স্কোরবোর্ডে ওঠেনি কোনো রান। তারপরও উজ্জীবিত নিউজিল্যান্ডের বোলারদের সামনে শেষরক্ষা হয়নি তাদের।

অষ্টম ওভারে সাজঘরে ফেরেন শান মাসুদ। ২৫ বল খেলে রানের খাতা খুলতে পারেননি তিনি। উইকেটে আছেন আবিদ আলী ২৭ বলে ৭ ও নাইটওয়াচম্যান আব্বাস ১৪ বলে ১ রানে।

Comments

The Daily Star  | English

Economy with deep scars limps along

Business and industrial activities resumed yesterday amid a semblance of normalcy after a spasm of violence, internet outage and a curfew that left deep wounds in almost all corners of the economy.

7h ago