৭৩ দেশের ২২৬ সিনেমা নিয়ে ঢাকা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব

আগামী ১৬ জানুয়ারি থেকে শুরু হচ্ছে ‘ঊনবিংশ ঢাকা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব-২০২১’। ‘নান্দনিক চলচ্চিত্র, মননশীল দর্শক, আলোকিত সমাজ’- শ্লোগান নিয়ে ১৬ জানুয়ারি থেকে ২৪ জানুয়ারি পর্যন্ত চলবে এই উৎসব। এবারের আসরটি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি উৎসর্গ করা হয়েছে।
চলচ্চিত্র উৎসব উপলক্ষে আজ বৃহস্পতিবার ঢাকা ক্লাবে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। ছবি: সংগৃহীত

আগামী ১৬ জানুয়ারি থেকে শুরু হচ্ছে ‘ঊনবিংশ ঢাকা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব-২০২১’। ‘নান্দনিক চলচ্চিত্র, মননশীল দর্শক, আলোকিত সমাজ’- শ্লোগান নিয়ে ১৬ জানুয়ারি থেকে ২৪ জানুয়ারি পর্যন্ত চলবে এই উৎসব। এবারের আসরটি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি উৎসর্গ করা হয়েছে।

মোট ৭৩টি দেশের ২২৬টি চলচ্চিত্র প্রদর্শিত হবে এবারের উৎসবে। চলচ্চিত্রগুলো রাজধানীর কেন্দ্রীয় গণগ্রন্থাগারের শওকত ওসমান স্মৃতি মিলনায়তন, জাতীয় জাদুঘরের প্রধান মিলনায়তন ও কবি সুফিয়া কামাল মিলনায়তন, কেন্দ্রীয় গণগ্রন্থাগারের শওকত ওসমান স্মৃতি মিলনায়তন, শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় চিত্রশালা ও নৃত্যশালা মিলনায়তন, শিল্পকলার নন্দন থিয়েটার (মুক্তমঞ্চ), বসুন্ধরার স্টার সিনেপ্লেক্স এবং সীমান্ত স্কয়ার সিনেপ্লেক্সে দেখানো হবে।

এ উপলক্ষে আজ বৃহস্পতিবার ১৪ জানুয়ারি ঢাকা ক্লাবে একটি সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। এতে উপস্থিত ছিলেন উৎসবের চেয়ারম্যান কায়সার কামাল, পরিচালক আহমেদ মুজতবা জামাল, তত্ত্বাবধানকারী ম. হামিদ, উৎসব উপদেষ্টা রফিকুজ্জামান, উৎসবের তিন জুরি চলচ্চিত্র সমালোচক মঈনুদ্দীন খালেদ, অভিনেত্রী রোকেয়া প্রাচী ও অভিনেতা ফেরদৌস আহমেদ।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন তথ্য প্রতিমন্ত্রী ডা. মো. মুরাদ হোসেন, বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার বিক্রম কে দোরাইস্বামী। এ ছাড়া, বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির মহাপরিচালক লিয়াকত আলী লাকি উপস্থিত থাকবেন।

২০ জানুয়ারি বিকেল ৪টায় অভিনেতা, সংসদ সদস্য আসাদুজ্জামান নূরের সভাপতিত্বে ভার্চুয়াল আলোচনায়  অংশ নিবেন ভারতের খ্যাতিমান অভিনেত্রী শর্মিলা ঠাকুর।

Comments

The Daily Star  | English

Fixed expenses to eat up 40pc of next budget

The government has to spend about 40 percent of the next budget on subsidies, interest payments, and salaries and allowances of government employees, which will limit its ability to spend on social safety net, health and education.

1h ago