নিখোঁজের ৪ দিন পর শীতলক্ষ্যায় শিক্ষার্থীর মরদেহ উদ্ধার

নারায়ণগঞ্জের বন্দর উপজেলায় নিখোঁজের চার দিন পর শীতলক্ষ্যা নদী থেকে এক শিক্ষার্থীর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।
মিরপুরে নির্মাণাধীন ভবন থেকে পড়ে ২ শ্রমিকের মৃত্যু
প্রতীকী ছবি। স্টার ডিজিটাল গ্রাফিক্স

নারায়ণগঞ্জের বন্দর উপজেলায় নিখোঁজের চার দিন পর শীতলক্ষ্যা নদী থেকে এক শিক্ষার্থীর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

আজ সোমবার দুপুর ১টায় শহরের নবীগঞ্জ খেয়াঘাট এলাকায় নদীতে ভাসমান অবস্থায় তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়। পরে মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে পুলিশ।

নারায়ণগঞ্জ নৌ থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. ছগীর দ্য ডেইলি স্টারকে বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

তিনি বলেন, ‘নদীতে লাশ ভাসতে দেখে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা মরদেহ উদ্ধার করে আমাদের কাছে হস্তান্তর করে। খবর পেয়ে স্বজনরা এসে পরিচয় শনাক্ত করে। তার শারীরে কোনো আঘাতের চিহ্ন আছে কিনা বোঝা যাচ্ছে না। ময়নাতদন্তের পর মৃত্যুর সঠিক কারণ বলা যাবে।’

পরিবারের বরাত দিয়ে তিনি বলেন, ‘১৪ জানুয়ারি বন্ধুদের সঙ্গে বিয়ের অনুষ্ঠানে যাচ্ছে বলে বাসা থেকে বের হয় সুজন। এরপর থেকেই নিখোঁজ ছিল। এ ঘটনায় পরদিন বন্দর থানায় তার বাবা নিখোঁজের জিডি করেন। এ বিষয়ে তদন্ত চলছে বিস্তারিত পরে জানানো হবে। এ ঘটনায় আইনি ব্যবস্থা গ্রহণের প্রক্রিয়া চলমান।’

নিহত সুজন মাহমুদ (২৫) বন্দর উপজেলার আবুল হোসেনের ছেলে এবং নারায়ণগঞ্জ সরকারি তোলারাম কলেজের অনার্স চতুর্থ বর্ষের হিসাববিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী।

Comments

The Daily Star  | English